কুমিল্লায় যক্ষা নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম নিয়ে সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের সাথে গোলটেবিল বৈঠক

নিজস্ব প্রতিনিধি :–

মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় কুমিল্লার একটি হোটেলের সম্মেলন কক্ষে কুমিল্লার সাংবাদিকবৃন্দ ও সুশীল সমাজদের নিয়ে ‘যক্ষা নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমঃ অগ্রগতি ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে জাতীয় যক্ষা নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচি, জেলা স্বাস্থ্য ও জেলা ব্র্যাক। কুমিল্লার সিভিল সার্জন ডা. মো: মুজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) সঞ্জয় কুমার ভৌমিক। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা বিএমএ’র সভাপতি ডা.গোলাম মহিউদ্দীন দীপু ও সাধারণ সম্পাদক ডেপুটি সিভিল সার্জন আলহাজ্ব ডা.মোহাম্মদ আজিজুর রহমান সিদ্দিকী। মূল আলোচক ছিলেন বক্ষব্যাধি বিশেষজ্ঞ ডা.ইমাম উদ্দিন আহমেদ, স্বাগত বক্তব্য রাখেন ব্র্যাকের জেলা প্রতিনিধি বিভাস কিশোর দাস, মাল্টিমিডিয়া উপস্থাপন করেন সিনিয়র সেক্টর স্পেশালিস্ট মো: হুমায়ুন কবির। কুমিল্লা প্রেস ক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী এনামুল হক ফারুকের উপস্থাপনায় পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন মাওলানা মো: মিজানুর রহমান। মত বিনিময় পর্বে বক্তব্য রাখেন কুমিল্লা প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল হাসানাত বাবুল, কুমিল্লা প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: শহীদুল হক সেলিম, বিটিভির কুমিল্লা প্রতিনিধি মো: জাহাঙ্গীর আলম রতন, দৈনিক জনকন্ঠের প্রতিনিধি মীর শাহ আলম, জেলা ইমাম সমিতির সভাপতি মাওলানা মো: আহসানুল করিম আল আজহারী, বাংলাদেশ প্রতিদিনের কুমিল্লা প্রতিনিধি মহীউদ্দিন মোল্লা, সাংবাদিক মাহবুবুল আলম, কুমিল্লার কাগজের স্টাফ রিপোর্টার মাহফজ নান্টু ও কুমিল্লার আলোর সাংবাদিক মাহবুবা আক্তার। অনুষ্ঠানের বাংলাদেশ প্রেক্ষিতে কুমিল্লায় যক্ষা পরিস্থিতির অগ্রগতি ও চ্যালেঞ্জ নিয়ে মুক্ত ও প্রাঞ্জল আলোচনা হয়। এতে সহযোগিতা করেন জেলা ব্র্যাকের সিনিয়র ব্যবস্থাপক মো: রফিকুল আলম, মো: গোলাম মোস্তফা, প্রবীর কুমার বণিক, সোসাল কমিউনিকেটর মো: নজরুল ইসলাম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নারীনেত্রী দিলনাঁশি মোহসেন, সাংবাদিক Ñ শাহাজাদা এমরান, সাইয়্যিদ মাহমুদ পারভেজ, ওমর ফারুকী তাপস, নজরুল ইসলাম দুলাল, মোতাহার হোসেন মাহাবুব, সাদিক মামুন, বাহার রায়হান, এন.কে রিপন, তাপস চন্দ্র সরকার, মামশাদ কবীর, দিলরুবাইয়াত সৌরভী, সাইফুল ইসলাম সুমন, বাচ্চু বকাউল, মো: মনির হোসেন, জামাল উদ্দিন দামাল, জুয়েল, স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা মো: আলাউদ্দিন, এফপিএবির জেলা কর্মকর্তা মো: শাহজাহান, যক্ষার পিও মো: শামছুল হক প্রমুখ। কুমিল্লায় যক্ষা পরিস্থিতির অগ্রগতি ও চ্যালেঞ্জ বিষয়ে গোল টেবিল বৈঠকে যে অগ্রগতির কথা বেরিয়ে আসে তা হচ্ছে জেলায় যক্ষা রোগীর চিকিৎসার সাফল্যের হার ৯২% (জাতীয় পর্যায়ে টার্গেট ৮৫%)। কিন্তু যক্ষা রোগীর সনাক্তের হার ৬৮% (জাতীয় পর্যায়ে টার্গেট ৭২%)। তাই ৩ সপ্তাহের বেশি একনাগারে কাশি থাকলে সরকারী হাসপাতাল বা ব্র্যাক কেন্দ্রে জনগণকে বিনামূল্যে কফ পরীক্ষা পাঠাতে ব্যাপক সামাজিক আন্দোলন প্রয়োজন। শিশুদের যক্ষার সনাক্তের হারও কুমিল্লার অনেক কম। তাই যক্ষা রোগীর সংস্পর্শে আসা শিশুদের বা ২ সপ্তাহের বেশি একনাগারে কাশি থাকা শিশুদেরও বিনামূল্যে উপরোক্ত হাসপাতাল বা কেন্দ্রে বিনামূল্যে কফ পরীক্ষা করাতে পাঠানো প্রয়োজন। কুমিল্লায় যক্ষার পরিস্থিতির আরেকটি উন্নতির দিক হচ্ছে বাদুরতলা বক্ষব্যাধি ক্লিনিকে বিশ্বের সর্বাধুনিক যন্ত্র জিন-এক্সপার্ট মেশিন বসানো হয়েছে কিন্তু বক্ষব্যাধি ক্লিনিক ছাড়া অন্যত্র থেকে এখানে রোগী রেফার হচ্ছে খুবই নগন্য। কুমিল্লায় যক্ষা পরিস্থিতির সবচেয়ে ভয়াবহ দিকটি হচ্ছে কুমিল্লা নগরীর দক্ষিণ ঠাকুরপাড়ায় একটি মারাতœক এক্সডিআর যক্ষা রোগীর সন্ধান মেলে যাকে ঢাকায় ও পরে নেত্রকোনার নির্জন পাহাড়ে ডেমিয়ান হসপিটালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত বলে ঘোষনা করা হয়। এই রোগীর সংস্পর্শে আসা আতœীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবদের ব্যাপক পরীক্ষা-নিরীক্ষার প্রয়োজন যাদের সংস্পর্শে আসা অন্যরাও এক্সডিআর রোগী হতে বাধ্য। তাছাড়া কুমিল্লার নগরীর থিরা পুকুর পাড়ে একটি সহ পুরো জেলায় ১৯ জন এমডিআর জটিল যক্ষার রোগী রয়েছেন Ñ যাদের সংস্পর্শে সমাজে ব্যাপকভাবে এমডিআর জটিল যক্ষা ছড়াচ্ছে। এ  লক্ষ্যে ডটস পদ্ধতি (স্বাক্ষীর সামনে রোগীর বাধ্যতামূলক যক্ষার ঔষধ সেবন) আরো জোরদার, জবাবদিহিমূলক, স্বচ্ছ, তদারকীমূলক করতে হবে। যক্ষার রোগীদের পূর্ণ মেয়াদ পর্যন্ত ঔষধ সেবন করা বাধ্যতামূলক করতে হবে। যক্ষার চিকিৎসায় আরেকটি অগ্রগতির দিক হচ্ছে দরিদ্র রোগীদের জন্য যক্ষা রোগ সনাক্ত করতে ব্র্যাকের মাধ্যমে চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী সর্বোচ্চ তিন হাজার টাকা পর্যন্ত আর্থিক সাহায্য দেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে সরকারী ও বেসরকারী পর্যায়ে সম্বনিত উদ্যোগ নিয়ে মিডিয়ায় ব্যাপক প্রচারের মাধ্যমে যক্ষা রোগ নির্মূলে সবাইকে সামাজিক আন্দোলনে শ্রীঘই নামতে হবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply