মুরাদনগরে সওজ’র জমিতে নির্মিত অবৈধ মার্কেট গুড়িয়ে দিয়েছে প্রশাসন

মুরাদনগর প্রতিনিধি:–

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার রাজাচাপিতলা স্টেশনের পাশে সওজ’র জমি দখল করে নির্র্মিত সেই অবৈধ মার্কেট উচ্ছেদের মাধ্যমে জমি দখলমুক্ত করা হয়েছে। এসময় অবৈধভাবে নির্মিত স্থাপনাগুলি ভোলড্রেজার দিয়ে গুড়িয়ে দেয়া হয়। সোমবার বেলা ১১টার দিকে মুরাদনগর উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও উচ্ছেদ অভিযানের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসেন এ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. হাবিবুর রহমানসহ সওজ বিভাগ ও প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে কুমিল্লা-নবীনগর সড়কটি প্রশস্ত করে উচ্ছেদকৃত মার্কেটস্থলে এবং সন্নিকটস্থ যুদ্ধ বিধ্বস্ত ব্রীজের উত্তর পূর্বপাশে সওজ জমি দখলমুক্ত করে উভয়স্থানে যাত্রীদের ওঠানামা করার জন্য বাস স্টপেজ ও যাত্রী ছাউনী নির্মানের দাবী জানিয়েছে এলাকাবাসী।
জানা গেছে, মুরাদনগর উপজেলার চাপিতলা গ্রামের আ. কুদ্দুছ মেম্বার, নজু মিয়া গং চাপিতলা স্টেশনের পাশে সড়ক ও জনপদ বিভাগের জমি জোরপূর্বক দখল করে মার্কেট নির্মাণ করে ৭ টি দোকান বরাদ্দ দিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়। কুমিল্লা-নবীনগর সড়কের ওপরে অবৈধ এ ধরনের স্থাপনা নির্মাণের ফলে প্রতিনিয়ত ওই সড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হচ্ছিল। এতে সাধারণ পথচারীসহ যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। এদিকে ২০০০ সালে স্থানীয় সরকার বিভাগ থেকে ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি ব্রিজ নির্মিত হলেও অবৈধ দোকান তৈরি করায় ব্রিজের প্রবেশ পথ বন্ধ হয়ে যায়। এতে ওই ব্রিজটি ব্যবহারের অনুুপযোগী হয়ে পড়ে। সূত্র জানায়, স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় চাপিতলা বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন সেতুর টপস্ল্যাব এর কয়েকটি স্থান বোমা পড়ে উড়ে গিয়েছিল। পরবর্তীতে ওই সেতুটি মেরামতের মাধ্যমে যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু করা হলেও বর্তমানে সেতুটি দুর্বল অবস্থায় রয়েছে। আর এই অবৈধ দখলদারদের কারণে গাড়ী বাস ষ্ট্যান্ডের পাশে থামানোর জায়গা না থাকায় দুর্বল সেতুটির উপর অনেকটা ঝুঁকি নিয়ে থামিয়ে যাত্রী উঠানামা করে আসছিল। এ নিয়ে দৈনিক রূপসী বাংলায় ২০১২ সালের ১১ আগষ্ট “মুরাদনগরে সওজের জায়গা দখল করে অবৈধ মার্কেট নির্মাণ” শিরোনামে খবর প্রকাশের পর সড়ক ও জনপদ বিভাগ অবৈধ দখলে থাকা সরকারি জমি উদ্ধারে পদক্ষেপ নেয়। গতকাল সোমবার অবৈধ এ মার্কেটটি দখলমুক্ত হওয়ায় জনমনে অনেকটা স্বস্তি ফিরে এসেছে। এজন্য সড়ক ও জনপদ বিভাগসহ প্রশাসনকে অভিনন্দন জানিয়েছে এলাকাবাসী। এছাড়া উচ্ছেদকৃত মার্কেটস্থলে এবং যুদ্ধ বিধ্বস্ত সেতুর উত্তর পূর্ব পাশে নির্মিত অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে যাত্রীদের ওঠানামা করার জন্য বাস স্টপেজ ও যাত্রী ছাউনী নির্মাণ করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেছে এলাকাবাসী। এ বিষয়ে সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. হাবিবুর রহমান জানান, এ মার্কেটটি অপসারনের জন্য বারবার নোটিশ করা সত্তেও কর্ণপাত না করায় গত সপ্তাহে মাইকিং করে উচ্ছেদ অভিযানের বিষয়টি অবহিত করা হয়। সোমবার ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে অবৈধভাবে নির্মিত এ মাকেটটি উচ্ছেদ করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে এ সড়কের সকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply