দাউদকান্দিতে অপহৃত স্কুল ছাত্র পারভেজ কসবা থেকে উদ্ধার

আলমগীর হোসেন,দাউদকান্দি :–  
কুমিল্লার দাউদকান্দিতে বাড়ি ফেরার পথে স্কুল ছাত্রকে অপহরণ করা হয়েছে। পরে তাকে বি-বাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলার নতুন বাজার থেকে তার পরিবারের সদস্যরা উদ্ধার করে। ঘটনাটি ঘটেছে গত বুধবার দাউদকান্দি উপজেলার সুন্দলপুর ইউনিয়নের দশপাড়া গ্রামে। অপহৃত স্কুল ছাত্র মিজানুর রহমান পারভেজ (১২) দাউদকান্দির মোহাম্মদপুর পশ্চিম ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামের সৌদি আরব প্রবাসী আলাউদ্দিন সরকারের পুত্র ও সুন্দলপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের যষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র। পারভেজ তার নানার বাড়ি উপজেলার বারপাড়া ইউনিয়নের বেকিসাতপাড়া গ্রামে থেকে লেখাপড়া করেন। স্কুল ছাত্র পারভেজ জানান, প্রতিদিনের ন্যায় গত বুধবার স্কুল ছুটির পর বাড়ি ফিরছিলাম। আমি যখন দশপাড়া প্রাইমারী স্কুলের নিকট পৌছি তখন একটি কালো মাইক্রোবাস থেকে ৫/৬ জন লোক দ্রুত নেমে আমাকে গাড়িতে তুলে ফেলে। গাড়িতে উঠিয়ে মুখে টেপ দিয়ে হাত-পা বেধে ফেলে। দশপাড়া থেকে শহীদনগর ট্রমা সেন্টারের সামনে নিয়ে অপর একটি কালো মাইক্রোতে আমাকে উটানো হয়। কিছুক্ষন পর আমাকে ট্যাবলেট ও পানি খাওয়ানোর পর জ্ঞান হারিয়ে ফেলি। রাতে জ্ঞান ফিরে দেখি আমি ট্রেনে আছি। ট্রেনটি কুমিল্লা থেকে আঙ্গাউড়া যাচ্ছিল। এসময় এক ট্রেন যাত্রী আল-আমিন আমাকে কোথায় যাচ্ছি, কেন যাচ্ছি, কার বাড়ি যাচ্ছি, কার কাছে যাচ্ছি জানতে চাইলে আমাকে যারা অপহরন করেছে তারা চলে যায়। পরে ট্রেনের যাত্রী আমার মাকে ফোন করে আমার সন্ধান দেয়। ট্রেনের যাত্রী মোঃ আল-আমিন জানান, আমি যখন ট্রেনের উঠলাম দেখতে পেলাম কয়েকজন লোক ছেলেটির পাশে বসে আছে, আর কি যেন বলছে এবং তাদেরকে খুব হতাশাগ্রস্ত দেখা যায়। এসময় আমি ছেলেটির খোজ খবর নিতে শুরু করলে তার সাথে থাকা লোকগুলো কোথায় যেন পালিয়ে যায়। ছেলেটির কথা সন্দেহ জনক ও এলোপাতাড়ি হওয়ায় তার কাছে বিভিন্ন বিষয়ে জানতে চাই। অবশেষে তার স্কুল ব্যাগে থাকা তার মায়ের মোবাইল নাম্বারে ফোন করে জানতে পারি তাকে খোজে পাওয়া যাচ্ছে না। আমি তাকে আমার সাথে আমার এলাকা কসবা উপজেলার নতুন বাজারে নিয়ে যাই এবং তার অভিবাভকদের সাথে কথা বলি। পরে তারা বুধবার দিবাগত রাতে ছেলেটিকে আমার কাছ থেকে নিয়ে যায়। অপহৃত পারভেজের মা পারুল আক্তার বলেন, ছেলেকে খোজাখুজির মধ্যে ব্যস্ত থাকায় পুলিশকে জানাতে বিলম্ব হয়েছে। মোঃ আল-আমিন নামের এক ট্রেনের যাত্রীর সহযোগিতায় আল্লাহ রহমতে আমার ছেলেকে সুস্থ অবস্থায় ফিরে পেয়েছি। পরে বিষয়টি পুলিশকে জানিয়েছি। সুন্দলপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক রাশেদুল ইসলাম লিপু জানান, অপহরনের বিষয়টি পুলিশকে প্রাথমিক ভাবে মুঠোফোনে জানানো হয়েছে। এ ব্যাপারে দাউদকান্দি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (সার্বিক) আবু ছালাম মিয়া জানান, মিজানুর রহমান পারভেজের অপহরনের বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে। এ বিষয়ে পুলিশ সর্তক অবস্থানেও রয়েছে। এদিকে স্কুল ছাত্র অপহরণের ঘটনায় অভিবাভক ও ছাত্রছাত্রীদের মাঝে চরম আঙ্কত বিরাজ করছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply