ফেইসবুকে নবীজিকে নিয়ে কটাক্ষ করার জের : কুমিল্লার হোমনায় হিন্দু পরিবারের ১৩টি ঘর-বাড়ি ভাংচুর : ৫৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা : আটক ১১ , ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে প্রশাসনের সহায়তা

কুমিল্লা প্রতিনিধি :–
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা:)কে নিয়ে কটাক্ষ করার জের ধরে কুমিল্লার হোমনা উপজেলার বাগশিতারামপুর গ্রামের ৩১টি হিন্দু পরিবারের ১৩টি ঘর-বাড়িসহ ১টি মন্দির ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। গত রোববার বিকেলে ওই ঘটনার পর থেকে সোমবার পর্যন্ত পুলিশ ১১ জনকে আটক করেছে। এছাড়া জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এ ঘটনায় গতকাল সোমবার ডা. হরিপদ দাস বাদী হয়ে ৫৫ জনকে এজাহার নামীয় এবং অজ্ঞাতনামা দেড় সহস্রাধিক ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করে হোমনা থানায় মামলা দায়ের করেন।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, হোমনা উপজেলার চান্দেরচর ইউনিয়নের বাগশিতারামপুর গ্রামের উদ্দব চন্দ্র দাস (২৫) নামে স্থানীয় কিন্ডারগার্টেনের এক শিক্ষক ও শ্রীনিবাস চন্দ্র দাস (৩০) নামে দুই যুবক ফেইসবুকে মহানবী হযরত মুহাম্মদকে (সা:) নিয়ে কটাক্ষ করে মন্তব্য পোস্ট দেয়ার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে ওই গ্রামের বাসিন্দারা ছাড়াও পার্শ¦বর্তী মুরাদনগর উপজেলার পাঁচকিত্তাসহ আরো কয়েকটি গ্রামের বিক্ষুব্ধ কয়েক শ’ লোক গত রোববার বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বাগশিতারামপুর গ্রামের জেলে পাড়ার বাড়ি-ঘরসহ একটি মন্দিরে হামলা-ভাংচুর চালায়।

স্থানীয় চিকিৎসক স্যাম পদ দাস, হরি পদ গোস্মামী, সুমতি বালা, ঊষা রানী দাস, পরিমল চন্দ্র দাসসহ স্থানীয়রা জানান, শালিসের মাধ্যমে রোববার বিকালে উদ্দব চন্দ্র দাস ও শ্রীনিবাসের বিচার করার কথা ছিল। সে অনুযায়ী গত শনিবার রাতে হরি পদ গোস্মামীর বাড়িতে চিকিৎসক রাম পদ দাস, সহদেব দাস, অমর চন্দ্র দাস, তপন চন্দ্র দাস, স্থানীয় ইউপি সদস্য নাইম মোল্লা, সুরুজ মিয়া প্রধান, রবিউল্লাহ, রমিজ উদ্দিন, গিয়াস উদ্দিন ও আবদুল মতিন এর উপস্থিতিতে শালিস বৈঠক বসে। ওই বৈঠকে দ্বিতীয় অভিযুক্ত যুবক শ্রীনিবাস উপস্থিত না থাকায় পরেরদিন রোববার দুপুর ২টায় শালিস বৈঠকের সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু শালিস শুরুর আগেই গত রোববার বিভিন্ন স্থান থেকে কয়েকশ’ লোক জেলে পাড়ার বাড়ি ঘরে হামলা-ভাংচুর চালায়। আতংকে নারী-পুরুষরা পার্শ্ববর্তী বাহেরচর, কৃপারামপুর, জয়নগরসহ বিভিন্ন গ্রামে আশ্রয় নেয়। তারা আরও জানান, পুলিশ ও প্রশাসনের তৎপরতায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের লোকজন সোমবার গ্রামে ফিরে আসে। হোমনা থানার ওসি আসলাম শিকদার জানান, এ ঘটনায় ৫৫ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা দেড়/দুই হাজার লোকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। হামলার সাথে জড়িত সন্দেহে ১১ জনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। কুমিল্লার সহকারী পুলিশ সুপার (মুরাদনগর সার্কেল) মো. নজরুল ইসলাম জানান, যাদের বিরুদ্ধে নবীজিকে কটাক্ষ করার অভিযোগ উঠেছে বাগসিতারামপুর গ্রামের সেই উদ্ধব দাস ও শ্রীনিবাসকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।  কুমিল্লার জেলা প্রশাসক মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া জানান, সোমবার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আবদুল মতিন, এডিএম মো. গোলামুর রহমান, হোমনা উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাড. মো. আজিজুর রহমান মোল্লা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শামিহা ফেরদৌসীসহ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ৩১টি পরিবারকে নগদ ৬ হাজার টাকা, ২ বান্ডিল ঢেউ টিন ও ২০ কেজি করে চাউল প্রদান করা হয়। এছাড়াও সরকারের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য প্রয়োজনীয় সকল সহায়তা দেয়ারও আশ্বাস দেন।
গতকাল সোমবার ঘটনাস্থলে আরো উপস্থিত ছিলেন মুরাদনগার উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাকির হোসেন, এনএসআইর যুগ্ম পরিচালক মো. মজিবুর রহমান ও ডিআরআরও মোহাম্মদ আলী, চান্দেরচর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল বাশার মোল্লা, ঘারমোড়া ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান মোল্লা।
বিচার শালিসে উপস্থিত স্থানীয় ইউপি সদস্য নাইম মোল্লা ও রাম পদ দাস জানান, উদ্দব চন্দ্র দাস বিষয়টি অস্বীকার করে এবং এ ব্যাপারে তার বন্ধু শ্রীনিবাস বলতে পারবে বলে জানালে পরদিন রোববার দুপুর ২টায় শ্রীনিবাসের উপস্থিতিতে বিচার শালিসের সময় নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু তার আগেই উত্তেজিত জনতা ওই হামলা চালায়।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply