জামায়াত-বিএনপি ক্ষমতায় আসলে দেশে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের উত্থান হয়—-রেলমন্ত্রী

চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি :–
রেলপথ মন্ত্রী মোঃ মুজিুবল হক বলেছেন, জামায়াত-বিএনপি ক্ষমতায় গিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন না কওে শুধু খাম্বা বিতরণ করে জনগণের হাজার হাজার কোটি টাকা লুটে নেয়। তারা জনগণকে ধোকা দিতে জানে, দেশের উন্নয়ন জানে না। তারা শুধু ধবংসের রাজনীতি বিশ্বাস করে। তারা ক্ষমতায় এলে দেশের জেলায় জেলায় বোমা বিষ্ফোরিত হয়, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের উত্থান হয়। দেশে শান্তি-শৃংখলা থাকেনা। আর আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসলে দেশ উন্নয়নের জোয়ারে ভাসে। ২০০৯ সালে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এসে মাত্র সাড়ে ৩ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল। সকলের দোয়া ও বঙ্গবন্ধু কন্যা বাংলার প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আমরা ১০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে সক্ষম হয়েছি। শিল্প-কারখানা সচল ও দেশের উন্নয়নের চালিকা শক্তি বিদ্যুৎ। সে লক্ষ্যেই আমরা কাজ কওে যাচ্ছি। নতুন অন্যান্য কেন্দ্রগুলোতে উৎপাদন শুরু হলে এ সরকারের সময়ে প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে সম্ভব হবে। তিনি গত শনিবার সন্ধ্যায় চৌদ্দগ্রামের ঘোলপাশা ইউনিয়নের মতিয়াতলি ও ঈশানচন্দ্র নগর গ্রামের ২১৯ পরিবারের মাঝে বিদ্যুৎ সংযোগের উদ্বোধন পূর্ব আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন। ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম ভূইয়ার সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যেও মাঝে আরো বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সামছুদ্দিন চৌধুরী সেলিম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবময় দেওয়ান, উপজেলা পরিষদেও ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম হাজারী, পৌর মেয়র মিজানুর রহমান, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান শাহ জালাল মজুমদার, কাজী জাফর আহমেদ ও মাসুম প্রমুখ। একইদিন বিকেলে তিনি উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের ভাটরা কালজড়ী বিদ্যানিকেতনের নতুন ভবনের জন্য ভিত্তি প্রস্তও স্থাপন ও বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও  পরিচালনা কমিটির সভাপতি মাষ্টার এম এ মতিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন চৌদ্দগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেবময় দেওয়ান, উপজেলা আওংয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সামছুদ্দীন আহমেদ চৌধুরী সেলিম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নরুল ইসলাম হাজারী, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবুল হসেম চেয়ারম্যান, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও শ্রীপুর ইউনিয়নের চেয়াম্যান শাহজালাল মজুমদার, উপজেলা আওয়ামীলীগ সদস্য নজরুল ইসলাম মজুমদার নজির, প্রফেসর আলমগীর হোসেন, মেক্স গ্রুপের চেয়ারম্যান নজির আহমেদ প্রমুখ। অনুষ্ঠানের পূর্বে মন্ত্রী ৫১ লাখ ৮৬ হাজার টাকা ব্যায়ে নির্মিত রাজাপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নতুন ভবনের উদ্ভোধন ও ভাটরা কালজয়ী বিদ্যানিকেতনের জন্য একটি নতুন ভবনের ভিত্তি প্রস্তও স্থাপন করেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply