নাসিরনগরে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে পুলিশসহ আহত ৩০

আকতার হোসেন ভুইয়া,নাসিরনগর(ব্রাহ্মণবাড়িয়া ) :–
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলা গোকর্ণ ইউনিয়নের জেঠা ও নুরপুর গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষে পুলিশসহ প্রায় ৩০জন আহত হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে বাড়িঘরে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পুলিশ ৪০ রাউন্ড গুলি ও দুই রাউন্ড টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে। এ ঘটনায় পুলিশ ১৫ জনকে আটক করেছে।
পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, চৈয়ারকুড়ি বাজারে সিএনজি চালিত অটোরিক্সা স্ট্যান্ড নিয়ে পূর্ব বিরোধের জের ধরে জেঠা গ্রামের মো. সাজিদ মিয়া ও নূরপুর গ্রামের মো. এমরান মিয়ার কথা কাটাকাটি হয়। এ খবর পেয়ে উভয় গ্রামের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রথমে পুলিশ ও পরে র‌্যাব এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। সংর্ঘষের সংবাদ পেয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এটিএম মনিরুজ্জামান সরকার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা চৌধুরী মোয়াজ্জম আহমদ,স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ হান্নানসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আলোচনার মাধ্যমে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন। সংঘর্ষ চলাকালে কয়েকটি বাড়িতে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে আগুনে আতিকুর রহমান খসরুর সাতটি ছাগল ও দু’টি গরু পুড়ে মারা যায়।আহতদের মধ্যে মাত্র কয়েকজন নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমেপ্লক্সে চিকিৎসা নিয়ে চলে যায়। বাকিরা পুলিশের ভয়ে অন্যত্র  চিকিৎসা নেয়। আহতদের মধ্যে ডালিম সরকার (৪০) শিব্বির আহমেদ(২৫) নামে দুই পুলিশ কনস্টেবলসহ সফিকুল ইসলামকে(১৮)উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। আশংকাজনক অবস্থায় আবদুর রহমানকে(৩৫) জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।
গোকর্ণ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ হান্নান জানান, সিএনজি অটোরিক্সা স্ট্যান্ড নিয়ে দুই নেতার মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এ বিষয়টিই গ্রাম পর্যায়ে ছড়িয়ে যায়। পরবর্তীতে পুলিশ ও র‌্যাবের অ্যাকশানের পাশাপাশি এলাকার গণ্যমান্যরা গিয়ে আলোচনার মাধ্যমে পরিস্থিতি শান্ত করেন।
পুলিশ জানায় এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তবে পরিস্থিতি অবনতির আশংকায় এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে পুলিশ গুলি ও টিয়ার সেল ছোড়া হয়েছে’।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply