মুরাদনগরে ধর্ষন চেষ্টার ভিডিও দেখিয়ে চাদাঁ আনতে গিয়ে ২ বখাটে গ্রেফতার

মুরাদনগর (কুমিল্লা) প্রতিনিধি :–
কুমিল্লার মুরাদনগরে ধর্ষন চেষ্টার ভিডিও পর্নোগ্রাফি করে বাজারজাত করার ভয় দেখিয়ে দাবিকৃত চাদাঁ আনতে গিয়ে ২ বখাটেকে
আটক করে পুলিশে দিয়েছে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। পুলিশ পর্নোগ্রাফির কাজে ব্যবহৃত একটি ল্যাপটপ ও একটি মোবাইল ফোন জব্দ করেছে। ধৃতদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ৫ এপ্রিল শনিবার বিকাল অনুমান ৫টায় নিমাইকান্দি গ্রামের ভাড়াটিয়া মোস্তফা কামালের ছেলে রিফাত হাসান তার বোন শান্তার এক বান্ধবীকে রুমে ডেকে এনে দরজা বন্ধ করে দেয়। পরে রিফাত হাসান শান্তার ওই বান্ধবীকে ধর্ষনের চেষ্টা চালায় এবং বিষয়টি অতিগোপনে ভিডিও করে রাখে। উক্ত ভিডিও পর্নোগ্রাফি করে বাজারজাত করার ভয় দেখিয়ে রিফাত হাসান ও তার সহযোগিরা বোনের বান্ধবীর মায়ের নিকট ৫ লাখ টাকা চাদাঁ দাবি করে। বিষয়টি কাউকে জানালে ১০ লাখ টাকা চাদাঁ দিতে হবে বলে হুমকি দেয়। ইজ্জত-সম্মানের দিক তাকিয়ে ওই মেয়ের মা ১ লাখ টাকা চাদাঁ দিতে রাজি হয় এবং শনিবার নগদ ৮ হাজার টাকা পরিশোধ করে। বাকী ৯২ হাজার টাকা রোববার সন্ধ্যায় দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়। সে মতে রোববার সন্ধ্যায় ৮/১০ জনের একদল বখাটে মেয়ের মায়ের নিকট থেকে প্রতিশ্রুতি ৯৮ হাজার টাকা চাদাঁ আনতে যায়। তখন বিষয়টি এলাকার লোকজন জানতে পেরে চাদাঁ নিতে আসা বখাটেদের আটক করার চেষ্টা করে। এ সময় অপর বখাটেরা দৌড়ে পালিয়ে গেলেও মোস্তফা কামালের ছেলে রিফাত হাসান (২০) ও আবুল কালাম আজাদের ছেলে মির্জা মাহমুদুল হাসানকে (২০) আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশকে খবর দেয়। মুরাদনগর থানার অফিসার ইনচার্জ নাজিম উদ্দিনের নির্দেশে এস আই ওসমান গনির নেতৃত্বে একদল পুলিশ রোববার রাতে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছেঁ আটকে রাখা বখাটেদের উত্তেজিত ও বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসীর কবল থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। ওইদিন রাতেই ধৃত ২ জনসহ ৮ জন বখাটের বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি তৈরীতে শিশু ব্যবহার, পর্নোগ্রাফির মাধ্যমে ভয়ভীতি দেখিয়ে চাদাঁ দাবি ও আদায়, মোবাইল ফোনে পর্নোগ্রাফি সরবরাহ এবং সহায়তা করার অপরাধে পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রন আইন-২০১২ এর ৮ (১) (২) (৩) (২) ধারায় মুরাদনগর থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়। পরদিন সোমবার দুপুরে তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করলে বিজ্ঞ ম্যাজিষ্ট্রেট তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।
মুরাদনগর থানার অফিসার ইনচার্জ নাজিম উদ্দিন জানান, ধৃত রিফাত হাসান ও মির্জা মাহমুদুল হাসান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে। তাদের তথ্য মেতাবেক পর্নোগ্রাফির কাজে ব্যবহৃত একটি ল্যাপটপ ও একটি মোবাইল জব্দ করা হয়েছে। উক্ত ঘটনায় অপর অভিযুক্তদের গ্রেফতার করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply