পালিয়ে বেড়াচ্ছেন দেবিদ্বারে বিএনপি নেতাকর্মীরা,থানা পুলিশের কান্ড !

স্টাফ রিপোর্টার,কুমিল্লা:–
এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার তিন হাজারের অধিক বিএনপি নেতাকর্মী। গত ৫ জানুয়ারী জাতীয় সংসদ সদস্য ও ২৭ ফেব্রুয়ারি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে একাধিক সহিংস ঘটনায় এ পর্যন্ত বিএনপি ও জামায়তের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে ২০টির অধিক মামলায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এ সহিংস ঘটনায় আহত হয়েছেন প্রায় পাচঁ শতাধিক বিএনপি নেতাকর্মী। এসব সহিংস ঘটনায় আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়েছে সাধারণ জনগণসহ ব্যবসায়ীরা ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার কর্মজীবিরা। এ দিকে মামলার আসামি হয়ে গ্রেপ্তার আতঙ্কে বিএনপি ও জামায়তের নেতৃস্থানীয় নেতা-কর্মীরা ঘর ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। অজানা আতঙ্কে সন্ধ্যা ঘনাতেই ঘরমুখী হয়ে পড়েন বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ।
তার পরই শুরু হয় দেবিদ্বার থানা পুলিশের গ্রেফতারী অভিযান। এদিকে রোববার সকাল কুমিল্লা কোর্ট প্রাঙ্গণ হতে জানা যায়, গত ২০১৪ সালের ৬ এপিলে দেবিদ্বারের জাফরগঞ্জ বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য ও সাবেক সাংসদ আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল আহসান মুন্সীসহ সকল নেতাকর্মীদের মুক্তি দাবিতে মানব বন্ধন করার সময় পুশিল বাধা দিলে স্থানীয় জনতা ফুশে উঠে।এ বিষয়ে থানা পুলিশ বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করে।উক্ত মামলায় থানা পুলিশ ভৌতিকভাবে মামলায় ঘটনা তারিখ উল্লেখ্য করেন বিগত ২০১৩ সালের ৬ এপিল।
এছাড়া ও দেবিদ্বার থানা পুলিশ বিএনপি নেতাকর্মীরা জেল হাজতে আছেন খবর পেয়ে পর পর ৪টি মামলায় জেল হাজতে থাকা আসামীর বিরুদ্ধে পুনরায় গ্রেফতারের প্রার্থনা করেন।কিন্তু পুনরায় গ্রেফতার এর আবেদন গুলেতে দেখা যায় যে, যে সকল আসামীগন জেল হাজতে নেই তাদেরকেও পুন: গ্রেফতারের আবেদন করেন। এর মধ্যে উল্লেখ্য জি,আর ৫২/১৪ইং জি,আর ৫৪/১৪ইং  ৫৩/১৪ইং জি আর ৩৫৩/১৩ইং মামলাগুলি অন্যতম।উক্ত মামলাগুলিতে আসামী সুলতান কবির ,রিমন, মাহাবুব, তাজুল ইসলাম(দুয়ারিয়া) সোহাগ ইত্যদি নামিয় আসামীগণ দ্রুত জি আর ৫/১৪ ইং মামলায় জেলহাজতে আছে জানিয়ে উল্লেখি মামলাগুলিতে পুন: গ্রেফতার আবেদন করা হয়। প্রকৃতপক্ষে উল্লেখি আসামীগণ জেল হাজতে নাই।পুলিশের এরুপ কান্ড জ্ঞনহিন কর্মে পুলিশের ভাব মূর্তি প্রশ্ন বিদ্ব। এ বিষয়ে আসামী পক্ষের আইনজিবী এড.খন্দকার মিজানুর রহমান ও এড. আতিকুর রহমার জুয়েল জানায়, আসামীগনের বিরুদ্ধে শ্যোন এরেষ্টর আবেদন ও জি আর ১০৯/১৪ইং মামলার তারিখ ইত্যদি বিষয় গুলি প্রমান করে যে, উল্লেখিত আসামীগনের বিরুদ্ধে মোকাদ্দমায় গুলিতে যাচায়-বাছাই ছাড়া মামলাগুলো দায়ের করা হয়।সাক্ষ্য প্রমানে আমাদের আসামীগণ নির্দোষ প্রমানিত হয়ে ন্যায় বিচার প্রতিষ্টিত হবে।
এ বিষয়ে উপজেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদক মো: গিয়াস উদ্দিন বলেন, আমাদের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে একের পর এক ষড়যন্ত্র করে মিথ্যা মামলা দায়ের করে নেতাকর্মীদের হয়রানি করা হচ্ছে।গত ২৫ মার্চ  বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য ও চার চারবারের সাবেক সাংসদ আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল আহসান মুন্সীসহ ২৬ জন নেতাকর্মীর বিজ্ঞ দ্রুত বিচার আদালতে স্বেচ্ছায় হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করিলে বিজ্ঞ আদালত সকল আসামী জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরন করেন।তার পরই শুরু হয় দেবিদ্বার থানা পুলিশের ভৌতিক শ্যোন এরেষ্ট দরখাস্ত । তাদের খোজ-খবর নেওয়ার জন্য উপজেলার জুড়ে নেতাকর্মীর ও সাধারন জনগন এর প্রতিবাদ জানায়, এ ষড়যন্ত্র করে তাদের কে মিথ্যা মামলায় সম্পৃক্ত করলেও সাম্প্রতিক কালে ষড়যন্ত্রের ভেড়াজালে চলছে বিএনপি নেতাকর্মীদের জীবন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply