নাসিরনগরে কাল বৈশাখীর ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ৩ শতাধিক ঘর বিধ্বস্ত ॥ তিন সহস্রাধিক একর জমির ফসল নষ্ট

আকতার হোসেন ভুইয়া,নাসিরনগর(ব্রাহ্মণবাড়িয়া) :—
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরে গত বৃহস্পতিবার রাতের কাল বৈশাখীর ঘর ও ব্যাপক শিলা বৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে। কাল বৈশাখীর ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে নাসিনগরের বেশ কয়েকটি এলাকা। ভেঙ্গে গেছে ৫ শতাধিক গাছের ডালপালা। কাল বৈশাখীর ঝড় ও শিলা বৃষ্টিতে উপজেলায় তিন শতাধিক কাচা ঘর সম্পূর্ন বিধ্বস্ত হয়েছে। তিন সহস্রাধিক একর জমির ধান নষ্ট হয়েছে। নাসিরনগর উপজেলার জনপ্রতিনিধি ও ক্ষতিগ্রস্তরা জানান, উপজেলায় বৃহস্পতিবার রাত ১২ টা থেকে প্রায় ঘন্টাব্যাপী ঝড় ও শিলা বৃষ্টি হয়। প্রায় ঘন্টাব্যাপী স্থায়ী ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে নাসিরনগর উপজেলা সদর সহ পূর্বভাগ, কুন্ডা, হরিপুর, বুড়িশ্বর, গোয়ালনগরসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে প্রায় ৩ শতাধিক কাচা ঘর সম্পূর্ন বিধ্বস্ত হয়। উপড়ে যায় বিদ্যুতের ২৫টি খুটি, ভেঙ্গে যায় প্রায় পাঁচ শতাধিক গাছের ডালপালা। রাতের বেলা মানুষের আর্তচিৎকারে পরিবেশ ভারি হয়ে যায়। উপজেলা কৃষি বিভাগ সূত্র জানায় কাল বৈশাখীর ঝড় ও শিলা বৃষ্টিতে এই উপজেলার তিন হাজার ৫৯৩ হেক্টর জমির ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।বৈদ্যুতিক খুঁটি পড়ে যাওয়ায় পুরো উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।
উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাজী মো. জামাল মিয়া জানান, তার ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে প্রায় দেড়শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে।
কাল বৈশাখীর তান্ডবে দিশেহারা এখন ক্ষতিগ্রস্তরা। শিলের আঘাতে প্রায় তিন সহস্রাধিক একর জমির পাকা ধান গাছ থেকে পড়ে গেছে। আর ৪/৫ দিন পর কৃষকরা ধান কেটে বাড়িতে আনার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। স্থানীয় কৃষকরা এখন দিশেহারা।
এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ হোসেন ঝড় ও শিলার তান্ডবের কথা স্বীকার করে বলেন, ঝড়ে ৩শতাধিক ঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। এ ব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা  মাসুদ হোসেন বলেন, শিলা বৃষ্টিতে ৩ হাজার ৫৯৩ হেক্টর  জমির ধান নষ্ট হয়েছে।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply