বুড়িচংয়ে চোরদের বেপরোয়া দৌরাত্ম্য

বুড়িচং প্রতিনিধি :–

কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কের বুড়িচং উপজেলার অংশে আশস্কাজনক হারে বেড়েছে চোরদের দৌরাত্ম্য। বিশেষ করে বুড়িচং উপজেলার ময়নামতি ইউনিয়নের দেবপুর এলাকাকে নিরাপদ জোন হিসাবে ব্যবহার করছে চোররা। দোকানদার সোহেল মিয়া, আমির হোসেন ও ওয়ার্কসপ সোহেল ছত্রছায়ায় এলাকায় একটি প্রভাবশালী গ্রুপ নেত্বত্বে বেশ কয়েকটি চুরি ঘটনা ঘটে।এ প্রভাবশালী চোর গ্রুপের সদস্যরা প্রকাশ্য দিবালোকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ছিনতাই, ডাকাতি, চুরিসহ বিভিন্ন অপরাধ মূলক ঘটনায় ঘটলেও চোরদের বিরুদ্ধে কোন প্রকার অভিযোগ করতে চাই না। কারণ কুমিল্লা স্পিনিং মিলস্ সংলগ্ন এলাকায় বেশিভাগ শ্রীমকদের বসবাস। তার দূর-দূরান্ত থেকে এখানে কোন জামেলা জড়াতে চায়না।চোরদের কারণে অনেক শ্রমিক আতংকিত অবস্থায় মানবেতর জীবন যাপন করছে। চোর গ্রুপের সদস্যরা এলাকায় প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ায় ও চোরদের ভয়ে এখানকার শ্রমিক ও দোকানদার এ সমস্ত অপরাদ মূলকর্মকান্ডের প্রতিবাদ করতে সাহস পাচ্ছে না। গত ১০ দিনে এ এলাকায় একাধিক চুরি ঘটনায় অভিযোগ উঠেছে। এধরনের একটি চুরি ঘটনায় লিখিত অভিযোগ বুড়িচং থানা সূত্রমতে জানা যায়, দেবপুরের আল রাফিদ কসমেটিক এন্ড কনফেশনারী পরিচালক জানান, ২৫ মার্চ রাত্রে পার্শবর্তী ওয়ার্কসপ দোকানদার সোহেল নিকট আমার দোকানের চাবি বুঝাইয়া দিয়ে যাই।পরে সোহেল নিকট হতে আমার দোকানের চাবি নিয়ে দোকানের সামনে যাইয়া দেখিতে পাই দোকানে লাগানো তালাটি নাই, সার্টার বন্দ অবস্থায় দেখিয়া তাৎক্ষনিক ওয়ার্কশপ সোহেলকে জিজ্ঞাসা করি সে উল্ট কি হয়েছে সে কিছু বলতে পারেনা।এর পরে আমি ওয়ার্কসপ সোহেলসহ পার্শবর্তী দোকানদারকে নিয়ে দোকানে ঢুকিয়া দেখিতে পাই, দোকানে রক্ষিত একটি ল্যাপটপ, ২টি মোবাইল সেট, দোকানের বিভিন্ন রকমের মালামালসহ নগত তিন হাজার টাকাসহ প্রায় এক লক্ষ দশ হাজার টাকার মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়। উক্ত চুরি ঘটনায় দোকানদার সোহেল মিয়া, আমির হোসেন ও ওয়ার্কসপ সোহেলকে সন্দেহ করে একটি বুড়িচং থানা লিখিত অভিযোগ দায়ের করি।এ তিন জনকে আটক করে বুড়িচং থানা পুলিশ জিজ্ঞাস করিলে মূল চোর চক্রের সদস্যদের নাম বেড় হয়ে আসবে বলে এলাকাবাসী ও দোকানদার জানায়।
এ বিষয়ে কুমিল্লা স্পিনিং মিলস্ শ্রমিক সংগঠনের সভাপতি মো: জাকির হোসেন জানান, দীর্ঘদিন যাবত এ এলাকায় একটি  প্রভাবশালী গ্রুপের ছত্রছায়ায় ছিনতাই,ডাকাতি,চুরিসহ অপরাধ মূলক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। এদের বিরুদ্ধে ভয় অনেকরা অভিযোগ করেন। কারন এ এলাকায় বেশি ভাগ লোকজন শ্রমিক ও অস্থায়ী হওয়া তাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে সাহস পাচ্ছে না। গত কয়েক দিনে বেশ কয়েকটি চুরি অভিযোগ রয়েছে। স্থানীয় প্রসাশন এ সকল বিষয়ে জানার পর প্রভাবশালী চোরদের বিরুদ্ধে কোন প্রকার আইনগত ব্যবস্থা নিচ্ছে না।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply