বরুড়ায় সন্তানের পিতৃ পরিচয়ের দাবিতে আদালতে মামল

কামরুজ্জামান জনি,কুমিল্লা প্রতিনিধি:–
কুমিল্লার বরুড়ায় নার্গিস নামের এক হতভাগ্য মা তার সন্তানের পিতৃ পরিচয় পিরিয়ে দিতে কুমিল্লা নারী ও শিশু আদালতে মামলা করেছেন। আদালাত গতকাল মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নিতে বরুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন।
মামলার বিবরনে জানা গেছে, বরুড়া উপজেলার পৌর এলাকার হুরুয়া গ্রামের জামাল হোসেনের মেয়ে নার্গিস আক্তার দারিদ্রতার কারনে পার্শবর্তী দলিল লেখক আব্দুল মান্নানের বড়ীতে গৃহ পরিচালিকার কাজ করতেন। এর সুবাদে মান্নানের পুত্র আবু ছুফিয়ান প্রায়ই তাকে উত্তেক্ত করতেন। একদিন ছুফিয়ান বাড়ীতে নার্গিছকে একা পেয়ে জোর করে ধর্ষন করে। বিষয়টি সবাইকে জানিয়ে দিতে চাইলে ছুফিয়ান তাকে বিয়ে করবে বলে আশ্বাস দেয়। এর পর থেকে প্রায় ছুফিয়ান তার সাথে অবৈধ সারীরিক সম্পর্ক কওে তুলেন। কিছুদিন পর নার্গিছ তার সরীরের পরিবর্তন লক্ষ করে ছুফিয়ানকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে সে নার্গিছের গর্ভেও বাচ্চাটি নষ্ট করার জন্য চাপ সৃষ্টি করে। বিষয়টি এলাকা জানা জানি হলে ছুফিয়ান ও তার বাপ-ভাইয়েরা মিলে নার্গিসকে মারধর করে বাড়ী থেকে বের করে দেয়। এর পর ছুফিয়ান পালিয়ে বিদেশ চলে যায়। গত ৩ ডিসেম্বর নার্গিস কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সন্তান প্রসব কররে। বিষয়টি নিয়ে গত ২৫ ডিসেম্বর এলাকায় সলিস বসলে নার্গিছকে সামাজিক মর্জাদা দিয়ে ছুফিয়ানের ঘওে তুলে নিতে বলা হয়। এ সময় ছুফিয়ানের বাবা মান্নান এ প্রস্তাব না মেনে নার্গিছকে ৫০হাজার টাকা ক্ষতিপূরন দিয়ে দেয়ার কথা বলেন। এ নিয়ে উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে মান্নানের পুত্র জসিম, গিয়াস ও জহির মিলে লাঠি সোঠা দিয়ে পিটিয়ে জামালকে আহত করেন। এ ঘটনায় নার্গিছ বৃহস্পতিবার কুমিল্লা নারী ও শিশু আদালতে ৪ জনকে আসমী করে মামলা দায়ের করেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply