ব্রাহ্মণবাড়িয়া -১(নাসিরনগর ) আসনে নৌকা ও লাঙ্গলের চলছে নিবার্চনী প্রচারনা

আকতার হোসেন ভুইয়া,নাসিরনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) :–
আগামী দশম জাতীয় সংসদ নিবার্চনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই জমে উঠছে এক সময়ের জাতীয় পার্টির দূর্গ হিসেবে পরিচিত বর্তমানে আওয়ামীলীগের ঘাটি ২৪৩ ব্রাহ্মণবাড়িয়া -১(নাসিরনগর )সংসদীয় আসনে নির্বাচনী প্রচারণা। প্রার্থীরা স্ব-স্ব অবস্থানে থেকে গণসংযোগ,শুভেচ্ছা বিনিময় ও মাইকিং করে নিবার্চনী  প্রচারে নেমেছেন। সবর্ত্র লিটলেট বিলি ও পোষ্টার ঝুলানো হচ্ছে। এ আসনে আওয়ামীলীগের  বর্তমান সংসদ সদস্য এডভোকেট মোহাম্মদ ছায়েদুল হক ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী রেজোয়ান আহমেদ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিনজন প্রার্থীর মধ্যে ইসলামী ফ্রন্টের প্রার্থী মোঃ ইসলাম উদ্দিন দুলাল মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেয়ায় ফলে আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পাটির মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হচ্ছে। প্রধান বিরোধীদল ছাড়া নির্বাচনী হাওয়া তেমন একটা জমে না উঠলেও প্রার্থীরা ব্যাপক প্রচারনা ও গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন। সকাল থেকে রাত অবধি প্রার্থী ও তাদের সর্মথকদের গণসংযোগ ও উটান বৈঠকের মাধ্যমে নিবার্চনী মাঠ এখন সরগরম হয়ে উঠেছে। দেশের চলমান রাজনৈতিক সহিংসতার কারণে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে উদ্বেগ-উৎকন্ঠাও বিরাজ করছে। মহাজোাট সরকারের সময়ে নাসিরনগরের উন্নয়নের কথা বিবেচনা করে এলাকার সকল সম্প্রদায়ের ভোটাররা আবারো নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আওয়ামীলীগ প্রার্থীকে বিজয়ী করবে বলে আশা প্রকাশ করেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এডভোকেট মোহাম্মদ ছায়েদুল হক এমপি। এদিকে জাতীয় পার্টি নিবার্চনে অংশ নেয়া না নেয়ার বিষয়টি নিয়ে ভোটারদের মধ্যে রয়েছে নানান মতভেদ।এ আসনে জাতীয় পাটির দলীয় প্রার্থী ও কেন্দ্রীয় নেতা রেজোয়ান আহমেদ লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী মাঠে ভোটারদের সাথে গণসংযোগ ও  শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন।এক কথায় উৎসব মূখর পরিবেশেই নির্বাচনী প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন প্রার্থী ও কর্মী-সমর্থকরা। এক সময়ের জাতীয় পার্টির(এরশাদ) দূর্গ হিসেবে পরিচিত এ আসনে আওয়ামীলীগের ভিত্তিও মজবুত। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর আওয়ামীলীগ প্রার্থীই সবচেয়ে বেশী বার নিবার্চিত হয়েছেন। সৎ মানুষ হিসেবে পরিচিত এডভোকেট মোহাম্মদ ছায়েদুল হক ১৯৭৩,১৯৯৬,২০০১ ও ২০০৮ সালের নিবার্চনে সংসদ সদস্য নিবার্চিত হন। তিনি এবারও আওয়ামীলীগের প্রার্থী। এছাড়া আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী তিনবার নিবার্চিত হন। ২০০১ সালে জাতীয় পার্টির নেতা আহসানুল হক মাস্টার সদলবলে জাতীয় পার্টির ত্যাগ করে জাতীয় পার্টিতে(না-ফি) যোগদান করার পর সংগঠনের হাল ধরে রেখেছেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী রেজোওয়ান আহমেদ ।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply