অবরোধের মধ্যে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট কুমিল্লার আটকা পড়া যানবাহন চলছে পুলিশি পাহাড়ায়

আলমগীর হোসেন,দাউদকান্দি :–
আজ শনিবার বিএনপিসহ ১৮ দলীয় জোটের ডাকা অবরোধের মধ্যেও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কুমিল্লার অংশে হাজারো পণ্যবাহী যানবাহন যানজটে আটকা পড়ে। দাউদকান্দি থেকে কুমিল্লা পদুয়া বাজার পর্যন্ত প্রায় ৫০ কিলোমিটার সড়কজুরে হাজার হাজার যানবাহন ঘন্টার পর ঘন্টা দীর্ঘ লাইনে আটকা পড়ে থাকতে দেখা যায়। অবরোধকারী ও পিকেটারের হাত থেকে রক্ষার্থে পুলিশ বিশেষ পাহাড়ায় যানবাহনগুলোকে চলতে সহযোগিতা করে। গত সপ্তাহব্যাপী অবরোধের পর শুক্রবার মহাসড়কে মাত্রাতিরিক্ত যানবাহনের চাপ থাকায় কুমিল্লা অংশে সৃষ্টি হয় প্রায় ৭০ কিলোমিটার ভয়াবহ যানজট। শুক্রবার সকাল থেকে শুরু হত্তয়া এ যানজট সারা রাত অব্যাহত থাকে। এর ফলে আজ শনিবার মহাসড়কে হাজারো যানবাহন আটকা পড়ে সৃষ্টি হয় যানজট।

ট্রাক চালক ইদ্রিস মিয়া, আবু মূছা, কামাল মুন্সী জানান, শুক্রবার বিকালে চট্টগ্রাম থেকে রত্তনা হয়েও যানজটের কারনে দাউদকান্দি আটকা পড়ি। ১০/১২ ঘন্টায়ও ঢাকায় পৌছতে পারেনি। বাস চালকরা জানান, ভেবেছিলাম চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় ৪/৫ ঘন্টার মধ্যে পৌছে যাব, কিন্তু অবরোধের দিন যানজটের কবলে পড়ে এখন চিন্তায় আছি, কি না হয়। বাসযাত্রী দিদার হোসেন, শামীম রায়হান ও ট্্রাক হেলপাড় নবীর হোসেন, রহিম মিয়া জানান, সারা রাত ঘুমাইনি অবরোধের চিন্তায়। কখননা গাড়িতে ভাংচুর ও আগুন লাগানো হয়।

দাউদকান্দি মডেল থানা পুলিশ, হাইওয়ে পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা সকাল থেকে যানবাহনে নাশকতা ঠেকানোর জন্য ব্যাপক প্রস্তুতি নেন। মহাসড়কে গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে টহল জোরদার করা হয়। দাউদকান্দি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (সার্বিক) মোঃ আবুল ফয়সাল জানান, গতকালের যানজটের কারনে আজ মহাসড়কে অতিরিক্ত পণ্যবাহী যানবাহন আটকা পড়ে। পুলিশ ব্যাপক নিরাপওা দিয়ে যানবাহগুলোকে চলাচল করতে সহযোগিতা করছে। প্রতিটি বাসষ্ট্যান্ডে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। তবে আজ দাউদকান্দি অংশে অবরোধ সমর্থনকারীরা কোন প্রকার যানবাহনে পিকেটিং, বিশৃঙ্খলা ও সড়ক অবরোধ করেনি।

দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ওসি মোঃ মিজানুর রহমান জানান, শুক্রবার সকাল থেকে মহাসড়কে বিপুল পরিমান যানবাহনের চাপ থাকায় আজ সড়কজুরে বহু যানবাহন আটকা পড়ে। তবে যান চলাচলে কোথাও কোন প্রকার সমস্যা হয়নি এবং অবরোধকারীদের রাস্তায় দেখা যায়নি।

দাউদকান্দি উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক ভিপি মোঃ জাহাঙ্গীর আলম জানান, রাত থেকে মহাসড়কে অংসখ্য যানবাহন আটকা পড়ায় পুলিশ প্রশাসন থেকে আমাদের কাছে সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। যাত্রীদের দূর্ভোগ ও হাজার হাজার পণ্যবাহী যানবাহনের কথা চিন্তা করে আমরা কোন প্রকার বিশৃঙ্খলা ও পিকেটিং না করে মহাসড়কের গৌরীপুর স্বল্প সময়ের জন্য অবস্থান নিয়ে চলে আসি। এদিকে তাদের উদ্যোকে স্বাগত জানিয়েছে চালক ও যাত্রীরা। অতিরিক্ত যানবাহনের চাপে দাউদকান্দির মেঘনা-গোমতী সেতুর টোলপ্লাজা ছিল প্রতিদিনের মতই ব্যস্ত। মহাসড়কের দাউদকান্দি টোলপ্লাজা, বিশ্বরোড, শহীদনগর, গৌরীপুর ও ইলিয়টগঞ্জে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সর্তক অবস্থায় থাকার পাশাপাশি টহল জোরদার করা হয়।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply