নাঙ্গলকোটে এসএসসি’র ফরম পূরণে ৪ গুন অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ

এ.এইচ, এম, আবুল খায়ের, নাঙ্গলকোট (কুমিল্লা) :–
কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শিক্ষাবোর্ড থেকে সব মিলিয়ে ১১৮০/- টাকা নির্ধারণ করা হলেও নানা অজুহাত দেখিয়ে স্কুল গুলো শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ৪ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকা ফি আদায় করছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানরা তাদের ইচ্ছা মত নানা অজুহাতে অতিরিক্ত ফি আদায় করলেও প্রশাসন নীরব ভূমিকা পালন করছে। অতিরিক্ত টাকা নেয়ার ফলে গরিব, মেধাবী শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড সূত্রে জানা গেছে, এসএসসি ফরম পূরণের জন্য পরীক্ষার ফি, কেন্দ্র ফি, সনদ পত্র, স্কাউট ও জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ সহ সব মিলিয়ে ১১৮০/- টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু নাঙ্গলকোট উপজেলার প্রায় সব স্কুলে ৪ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত ফি আদায় করা হচ্ছে। প্রতিষ্ঠানের প্রধানরা তাদের ইচ্ছামত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে জোর করে ওই অতিরিক্ত ফি আদায় করছে। নাঙ্গলকোট এ আর মডেল উচ্চবিদ্যালয়ে এসএসসি ফরম পূরণে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে প্রায় প্রত্যেক বছরই ৪ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকা আদায় করছে। টেষ্ট পরীক্ষায় ৫ বিষয়ের বেশী ফেল যাওয়া ছাত্র-ছত্রীদের থেকে ৮ থেকে ১০ হাজার টাকা করে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তবে ওই স্কুলের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েক শিক্ষার্থী বলেন, স্যারদের নির্ধারিত ওই অর্থ না দিলে ফরম পূরণ হয় না। ময়ুরা উচ্চবিদ্যালয়,বাইয়ারা জয়নাল উচ্চ বিদ্যালয়, সাকতলী উচ্চবিদ্যালয়, দায়েমছাতি উচ্চবিদ্যালয়,ভোলাইন বাজার স্কুল  এন্ড কলেজ, বাদশা মিয়া স্কুল এন্ড কলেজ, কাকৈরতলা উচ্চবিদ্যালয়,  মন্তলী উচ্চবিদ্যালয়, মাহিনী উচ্চবিদ্যালয় সহ একই চিত্র পাওয়া গেছে উপজেলার সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। নাঙ্গলকোট উপজেলার সব মাদ্রাসায় দাখিল পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকেও আদায় করা হচ্ছে প্রায় একই ভাবে। এখানে ৩ হাজার থেকে ৪ হাজার টাকা আদায় করা হচ্ছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্কুল ও মাদ্রাসার কয়েক জন শিক্ষক বলেন, যত পরীক্ষা হয় তত বেশী লাভ হয় প্রতিষ্ঠানের প্রধানের। তারা আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে নেয়া অতিরিক্ত অর্থ সম্পুর্ণ প্রধান শিক্ষকের পকেটে যায়। অতিরিক্ত অর্থ আদায় প্রসঙ্গে জানতে চাইলে নাঙ্গলকোট উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এ.বি.এম আব্দুল হান্নান বলেন, ফরম পূরণে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পাওয়া গেলে প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে মন্তব্য করেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply