চান্দিনায় ডাকাতি ঠেকাতে ব্যর্থ পুলিশ; আতঙ্কে এলাকাবাসী

মাসুমুর রহমান মাসুদ, চান্দিনা :–

চান্দিনায় ডাকাতি ঠেকাতে ব্যর্থ থানা পুলিশ। প্রতিরাতেই উপজেলার কোন না কোন এলাকায় ডাকাতি সংঘটিত হচ্ছে। আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি ও ডাকাত আতঙ্কে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে এলাকাবাসী।

গত মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) গভীর রাতে বাড়েরা ইউনিয়নের বাড়েরা পূর্বপাড়া গাজী বাড়ীতে একই রাতে ৩ ভাই এর ঘরে হানা দেয় ১৫-২০ সদস্যের ডাকাতদল। এসময় ডাকাতদল অস্ত্রের মুখে পরিবারের সদস্য দের জিম্মি করে লুটপাট করে।

ডাকাতদল মৃত রৌশন আলীর ছেলে আমির হোসেন এর ঘর থেকে নগদ ২০ হাজার টাকা, ১ ভরি স্বর্ণলঙ্কার, ১টি মোবাইল, তার ভাই মো. বিল্লাল হোসেনের ঘর থেকে ১টি মোবাইল, নগদ ২০ হাজার টাকা, ১ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, অপর ভাই মোবারক হোসেন এর ঘর থেকে নগদ ৫ হাজার টাকা, ১টি মোবাইলসহ মালামাল লুটে নেয়।

গত সোমবার (৪ নভেম্বর) গভীর রাতে মাইজখার ইউনিয়নের এওয়াজবন্দ গ্রামে আলী হোসেন মাষ্টার এর বাড়িতে ৫টি ঘরে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। এছাড়া ওই গ্রামের রিনপ চন্দ্র মজুমদার এর ঘরেও ডাকাতি হয়।

ডাকাতদল- মো. মোতালেব হোসেনের টিনশেড বিল্ডিং এর দরজা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে। ডাকাতদল এসময় ৪ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, ২টি মোবাইল, অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ মো. আবদুর রাজ্জাক এর ঘর থেকে নগদ ৪২ হাজার টাকা, ৬ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, আলী হোসেন মাষ্টার এর ঘর থেকে ১ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, মো. বাবুল মাষ্টার এর ঘর থেকে ২টি মোবাইল, ৩ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, রিপন চন্দ্র মজুমদার এর ঘর থেকে নগদ ২৭ হাজার টাকা, ২ ভরি স্বর্ণালঙ্কার লুটে নেয়।

এসময় বাঁধা দিতে গিয়ে, অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ মো. আবদুর রাজ্জাক, মোসাম্মৎ ফজিলত বেগম, মো. মামুন, রিপন মজুমদার আহত হয়।

এ বিষয়ে চান্দিনা থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মো. হুমায়ুন কবির জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। আইনানুগ পদক্ষেপ নেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, ডাকাতি বন্ধ করতে হলে স্থানীয় লোকজনও পুলিশকে সহায়তা করতে হবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply