উত্তপ্ত কুমিল্লা পলিটেকনিক : পুলিশ কনষ্টেবল গুলিবিদ্ধ, পুলিশ ও উপজেলা ইউএনও’র গাড়ি ভাংচুর : পুলিশ ও শিক্ষার্থীসহ ৪২ আহত

কামরুজ্জামান জনি, কুমিল্লা :–

কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার কোটবাড়ি সড়কে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফাতেমা জাহানের গাড়ি ও একটি মোটর সাইকেল অগ্নিসংযোগ ও পুলিশের অস্থায়ী ক্যাম্পসহ ব্যাপক যানবাহন ভাংচুর করেছে বিক্ষুব্ধ পলিটেকনিক্যাল ইন্সটিটিউটের শিক্ষার্থীরা। এ সময় শিক্ষার্থীদের গুলিতে এক পুলিশ কনস্টেবলসহ ৭ জন আহত হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ২ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ ও শিক্ষার্থীসহ কমপক্ষে ৪২ জন আহত হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে। রোববার দুপুর সোয়া ১২টা থেকে পুলিশের সঙ্গে পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের কয়েক দফা সংঘর্ষ চলাকালে এ ঘটনা ঘটে। জানা যায়, ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের পদবি অবলমন করে সুপারভাইজার করার প্রতিবাদে ও প্রথম অথবা দ্বিতীয় শ্রেণীর পদ মর্যাদার ডিপ্লোমা সার্টিফিকেট প্রদান ও চাকরির পদ মর্যাদা বাড়ানোসহ ২ দফা দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে বিক্ষোভ করার এক পর্যায়ে তারা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে। এর আগে সকালে পরীক্ষা বর্জন করে শিক্ষার্থীরা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার কোটবাড়ী মোড়ে বিক্ষোভ করে। শিক্ষার্থীরা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধের চেষ্টা করলে পুলিশের বাঁধার মুখে পিছুহটে। এক পর্যায়ে দুপুর দেড়টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাতেমা জাহান ওই এলাকায় গেলে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা তার গাড়িতে হামলা চালায়। এক পর্যায়ে তারা নির্বাহী কর্মকর্তার গাড়িতে আগুণ ধরিয়ে দেয়। এ সময় একটি মোটর সাইকেলেও অগ্নিসংযোগ করে। এছাড়া পলিটেকনিক এলাকায় পুলিশের অস্থায়ী ক্যাম্পসহ ব্যাপক যানবাহন ভাংচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ এ সময় প্রায় ১০০ রাউন্ড রাবার বুলেট ছোড়ে। এ সময় শিক্ষার্থীদের হামলায় গুলিবিদ্ধ হন কনস্টেবল রায়হান। এছাড়া এ ঘটনায় আরও পুলিশের ৭ সদস্য আহত হন। এ সংঘর্ষে ৩৫ শিক্ষার্থীও আহত হয়েছেন। তাদের স্থানীয় বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। এ সময় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। ঘটনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কুমিল্লা পলিটেকনিক এলাকায় ২ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করার পর পরিস্থিতি শাস্ত রয়েছে বলে পুলিশ জানায়। গুলিবিদ্ধ রায়হানকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকি আহতদের বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালীণ সময়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। তবে বিকাল ৪ টার পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। সদর দক্ষিণ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল হান্নান জানান, সংঘর্ষ এড়াতে রাবাট বুলেট ও টিয়ার সেল নিক্ষেপ করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে এবং ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ ও বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। ১০ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) অধিনায়ক মাহমুদ আল মামুন জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে ২ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া পুলিশ ও র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সদস্যরা ঘটনাস্থলে অবস্থান করছে।

Check Also

কুমিল্লায় ডিবির অভিযানে ১৭ হাজার পিস ইয়াবাসহ ডাক্তার গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টারঃ- রাজধানীতে ইয়াবা পাচারকালে ১৭ হাজার ইয়াবাসহ গ্রেফতার হয়েছেন মো. রেজাউল হক (৪৫) নামের ...

Leave a Reply