দাউদকান্দিতে ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করায় শিক্ষক অপসারণের দাবি

শামীমা সুলতানা :–

দাউদকান্দি উপজেলার বারপাড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর এক মেধাবী ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করার অভিযোগে শিক্ষকের অপসারণের দাবিতে অভিভাবকদের হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় রোববার ও সোমবার স্কুলে পাঠদান বন্ধ রয়েছে বলে জানা গেছে।
অভিভাবক ও স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায়, ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে অধ্যয়ণরত এক মেধাবী ছাত্রীকে মুঠোফোন থেকে অশ্লীল ছবি দেখিয়ে প্রায় সময় কু-প্রস্তুাব দিত বিদ্যালয়ের ইংরেজি শিক্ষক আবুল হাশেম। এ বিষয়টি স্কুলের প্রধান শিক্ষক ইসমাইল হোসেনের নিকট জানিয়ে বিচারপ্রার্থী হন অভিভাবকরা। কিন্তু প্রধান শিক্ষক এর বিচারের নামে তালবাহানা করায় এই দুই শিক্ষকের অপসারণ দাবি করেন শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও স্থানীয় সচেতনমহল।
ইংরেজি শিক্ষকের উপর হামলার ঘটনায় প্রধান শিক্ষক থানায় গত ২১ সেপ্টেম্বর একটি সাধারণ ডাইরি করেছেন। অভিযুক্ত ইংরেজি শিক্ষক আবুল হাশেম তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করেন।
এ ব্যাপারে অভিভাবক রতনপুর গ্রামের ডাঃ তফাজ্জল হোসেন বলেন, শিক্ষক আবুল হাসেম বিদ্যালয়ে প্রাইভেট পড়ানো নিষিদ্ধ হলেও মেয়েদের প্রাইভেট পড়ানোর নামে প্রায়ই উত্ত্যক্ত করে আসছেন।
দাউদকান্দি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খন্দকার জাকির হোসেন বলেন, ‘বিষয়টি তদন্ত করতে দাউদকান্দি থানার উপ-পরিদর্শক রঞ্জন কুমার সরকারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। দোষী প্রমাণিত হলে ঐ শিক্ষকের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে’। দাউদকান্দি থানার উপ-পরিদর্শক রঞ্জন কুমার সরকার বলেন, ‘শিক্ষক আবুল হাশেমের উপর হামলার ঘটনায় জিডি পেয়ে তদন্ত করতে যাই। সেখানে গিয়ে জানতে পারি, শিক্ষকের বিরুদ্ধে উত্ত্যক্তের অভিযোগ রয়েছে’।
স্কুলের প্রধান শিক্ষক ইসমাইল হোসেন বলেন, ‘স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি তার পছন্দের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দিতে না পেরে আমাদের হয়রানির চেষ্টা করছে। তার বাহিনী দিয়ে শিক্ষক আবুল হাসেমকে মারধর করা হয়েছে। তারা আমাকেও মারধর করার চেষ্টা করেছিলো। আমরা এ বিষয়ে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি’। ছাত্রী উত্ত্যক্তের বিষয়টি সভাপতির ষড়যন্ত্রের অংশ বলে তিনি দাবি করেন। এদিকে পরিস্থিতি অনুকূলে না থাকায় শিক্ষা অফিসারের অনুমতি নিয়ে ক্লাস বন্ধ রেখেছেন বলে তিনি জানান।
এবিষয়ে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি এ আর মাহবুবুল হক বলেন, ‘আমাদের নিকট স্কুলের শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা শিক্ষক আবুল হাসেমের বিরুদ্ধে ছাত্রী উত্ত্যক্তের অভিযোগ করেন। এছাড়া স্কুলের এক মহিলা কর্মী প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে কু-প্রস্তাবের অভিযোগ করেছেন। তার বিরুদ্ধে প্রধান শিক্ষকের করা অভিযোগ সঠিক নয় বলে তিনি জানান। এ প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার পরিবেশ নিশ্চিত করার জন্য তিনি প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ করেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply