ব্রাহ্মণপাড়ায় চার সন্তানের জননীকে গণধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা

সৈয়দ আহাম্মদ লাভলুঃ–
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার সাহেবাবাদ এলাকায় এক দিনমজুরের স্ত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষনের অভিযোগে ঐ ধর্ষিতা বাদী হয়ে দুই জনকে আসামী করে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেছে। বর্তমানে সে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।
মামলার অভিযোগে জানা যায়, বুড়িচং উপজেলার পূর্ণমতি গ্রামের রিক্সা চালকের স্ত্রী চার সন্তানের জননী বাবুর্চীদের সাথে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে মসলা বাটার কাজ করত। গত বুধবার সন্ধ্যা ৬ টায় ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার সাহেবাবাদ গ্রামের মৃত রেনু মিয়ার ছেলে মোঃ কালা মিয়া(৩০) ও একই গ্রামের মজি সর্দারের ছেলে মোঃ হাসান(২৮)ঐ মহিলার স্বামীর বাড়ী পূর্ণমতি গ্রামে যেয়ে ব্রাহ্মণপাড়ার নাইঘড় গ্রামে এক বিয়ের অনুষ্ঠানে মসলা বাটার কাজ আছে বলে তাকে নিয়ে আসে। পথিমধ্যে তাকে নাইঘড় না নিয়ে সন্ধ্যা ৭ টায় সাহেবাবাদ ডিগ্রি কলেজের পাশে ভুমি অফিস সংলগ্ল নির্জন স্থানে অস্রের মুখে তাকে জিম্মি করে কালা মিয়া, হাসানসহ আরও অজ্ঞাত ৩/৪ জন পালাক্রমে রাতভর গণধর্ষণ করে। এক পর্য্যায়ে সে অজ্ঞান হয়ে পড়লে ভোর ৪ টায় জ্ঞান ফিরে এলে পথচারিরা তাকে উদ্ধার করে সাহেবাবাদ ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে আসে। ইউপি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন নান্নু বিষয়টি অবগত হয়ে মহিলাটিকে আইনি সহায়তার জন্য থানায় পাঠান। গত বৃহস্পতিবার বিকালে ঐ মহিলা প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে থানায় এসে নিজে বাদী হয়ে কালা মিয়া ও মোঃ হাসানকে আসামী করে ব্রাহ্মণপাড়া থানায় শিশু ও নারী নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নাম্বার ২২। তারিখ ১৯/৯/১৩।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(তদন্ত) মফজল আহমেদ কুমিল্লাওয়েব ডটকমকে জানান, প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। ধর্ষিতা মহিলাটিকে শুক্রবার ২০ সেপ্টেম্বর শারিরিক পরীক্ষার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে সে সেখানে চিকিৎসাধীন আছে এবং আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা আব্যাহত রয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply