গ্রীষ্মকালীন ফুটবল খেলায় সংঘর্ষের জের, তিতাসে শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ সিএনজি ভাংচুর ॥ পুলিশের হামলায় আহত ৫

নাজমুল করিম ফারুক :–

তিতাসের গাজীপুর খাঁন হাইস্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা গ্রীষ্মকালীন ফুটবল খেলার সেমিফাইনালে গোল বির্তককে কেন্দ্র ঘরে সংঘর্ষের জের হিসেবে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে প্রায় দু’ঘন্টা ঢাকা-হোমনা-কুমিল্লা সড়ক অবরোধ করে রাখে। এতে পুলিশের হামলায় ৫ জন শিক্ষার্থী আহত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বুধবার উপজেলা পর্যায়ের গ্রীষ্মকালীন খেলাধুলা ফুটবলের সেমিফাইনাল খেলার গোলকে কেন্দ্র করে মজিদপুর উচ্চ বিদ্যালয় ও গাজীপুর খাঁন হাইস্কুল এন্ড কলেজের খেলোয়াড়দের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এসময় উত্তেজিত গাজীপুর খাঁন হাইস্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা কড়িকান্দি বাজারের মজিদপুর স্টেশনের সিএনজি ভাংচুর চালায়। এসময় একলারামপুর গ্রামের আমির হোসেন ও মজিদপুর গ্রামের জসিম উদ্দিনের সিএনজি ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এদিকে উক্ত ঘটনার জের ধরে শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশ হামলার প্রতিবাদে গাজীপুর খাঁন হাইস্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় গাজীপুর বাস ষ্টেশন নামক স্থানে ঢাকা-হোমনা-কুমিল্লা সড়ক দু’ঘন্টা অবরোধ করে রাখে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করলে শিক্ষার্থীদের মাঝে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এসময় পুলিশ দশম শ্রেণীর ছাত্র শাকিল শিকদারকে পিটিয়ে মারাত্মকভাবে আহত করে। একাধিক শিক্ষার্থী জানায়, বুধবার বিকালে পুলিশ মজিদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পক্ষ নিয়ে তাদের উপর হামলায় চালায়। এতে গাজীপুর খাঁন হাইস্কুল ও কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র মোঃ ইয়াছিন, দশম শ্রেণীর ছাত্র তুহিন আহম্মেদ, ইমরান হোসেন ও সাগর হোসেন আহত হয়।
মজিদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ রেজাউল হক জানান, গাজীপুর খাঁন হাইস্কুল এন্ড কলেজের খেলোয়াড়রা ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে মজিদপুর গ্রামের বাড়ী-ঘর ভাংচুর করে।
গাজীপুর খাঁন হাইস্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল বাতেন জানান, বুধবারের ঘটনায় কড়িকান্দি বাজার ও গাজীপুর বাস ষ্টেশনে পুলিশ মোতায়নের সিদ্ধান্ত হয়। কলেজের ও স্কুলের শিক্ষার্থীর উত্তেজিত হয়ে রাস্তা অবরোধ করতে গেলে পূর্বের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২ জন পুলিশ গাজীপুর বাস ষ্টেশনের পাঠানোর জন্য ওসিকে অনুরোধ করি। ওসি ও অন্যান্য পুলিশ ক্যাম্পাসে প্রবেশ করলে শিক্ষার্থীদের মাঝে আরো উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে এবং আমার বিরুদ্ধে বৃত্তিহীন অভিযোগ উত্থাপন করে।
উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলাউদ্দিন ভূঁঞা বলেন, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সড়ক অবরোধের মত ঘটনা সত্যিই দুঃখজনক ও অনাকাঙ্খিত। অধ্যক্ষ ও শিক্ষকদের আন্তরিকতার থাকলে এধরনের ঘটনা ঘটতে পারে না।
তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নবীর হোসেন জানান, পুলিশের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ তুলেছে তা বৃত্তিহীন। বুধবার উভয়দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে গাজীপুর খাঁন হাইস্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীরা মজিদপুর কান্দাপাড়ার বিভিন্ন ঘর-বাড়ী ভাংচুরে অগ্রসর হলে পুলিশ তাদের তাড়িয়ে দেয় এবং বৃহস্পতিবার সড়ক অবরোধ করলে অধ্যক্ষের অনুরোধে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।
এদিকে শিক্ষার্থীদের রাস্তা অবরোধ, পুলিশের হামলায় একাধিক ছাত্র আহত হওয়ার বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শ্যামলী নবী বলেন, গ্রীষ্মকালীন খেলাধূলা আপাতত স্থগিত করা হয়েছে। আগামী রবিবার উভয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও সংশ্লিষ্ট সকলকে নিয়ে বৈঠকের মাধ্যমে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply