বিএনপি নেতা মিজানুর রহমান চেয়ারম্যানের ছেলের জানাযা সম্পন্ন

মোঃ জহিরুল হক বাবু, বুড়িচং :–
বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টায় কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও ভারেল্লা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হাজী মোঃ মিজানুর রহমানের ছোট ছেলে ইবাদুর রহমান আলিফ(১০) এর নামাজে জানাযা উপজেলার সোন্দ্রম গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হয়।
জানাযায় অংশগ্রহণ করেন সাবেক এমপি অধ্যাপক মো. ইউনুছ, বুড়িচং উপজেলা চেয়ারম্যান সাজ্জাদ হোসেন স্বপন, ব্যারিষ্টার সোহরাব খান চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী জসিম উদ্দিন জসিম, জেলা বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট শাহ আলম সরকার, বুড়িচং উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কবির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক কামাল হোসেন, সাবেক চেয়ারম্যান আবু তাহের, সাবেক চেয়ারম্যান আক্তার আলী, মোকাম ইউপি চেয়ারম্যান হাজী জয়নাল আবেদীন, সিরাজুল ইসলাম চেয়ারম্যান, জেলা জামায়াত নেতা আব্দুল কাইয়ুম মজুমদার, অ্যাডভোটেক সাইফুল ইসলাম, আল আমিন, উপজেলা যুবদলের সভাপতি হুমায়ুন কবির বাবুল, সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন, সহ সভাপতি অধ্যাপক আক্তারুজ্জামান শিপন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি মনিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম ভূইয়াসহ আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, জামায়াত-শিবির, বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, সাংবাদিক, পেশাজীবী, সুশীল সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও বিপুল সংখ্যক নেতৃবৃন্দ। জানাযা শেষে মরহুমের লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ ও সমবেদনা জ্ঞাপন করেন সাবেক আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন খসরু এমপি, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা শওকত মাহমুদ, বিশিষ্ট শিল্পপতি ও দক্ষিন জেলা বিএনপির সহ সভাপতি এস এম আলাউদ্দিন ভূইয়া।
উল্লেখ্য মিজানুর রহমানের ছোট ছেলে ফৌসদারি এথ্যনিকা ইংলিশ মিডিয়ামের ২ শ্রেণির ছাত্র ইবাদুর রহমার আলিফ(১০) গত ৬আগষ্ট বিকাল সাড়ে ৩ টায় নিজ বাসা কুমিল্লা রেইসকোর্স এলাকার ৬ষ্ঠ তলার ছাদ উঠে। এ সময় ছাদে নির্মাণ শ্রমিকরা কর্মরত ছিল। সে নির্মাণ শ্রমিকের কাজ দেখা অবস্থায় পা পিছলে ৬ষ্ঠ তলা থেকে নিচে পাকা রাস্তায় পরে যায়। এ সময় প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মুন হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করে। খবর পেয়ে মিজানুর রহমান চেয়ারম্যান দ্রুত হাসপাতালে আসে। এ সময় আত্মীয় স্বজনদের কান্নায় হাসপাতালে পরিবেশ ভারী হয়ে যায়। তাৎক্ষনিক ভাবে সাবেক এমপি অধ্যক্ষ মোঃ ইউনুস, বুড়িচং উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ সাজ্জাদ হোসেন স্বপনসহ বুড়িচং-বি-পাড়া উপজেলার বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ হাসপাতালে আসে। পরবর্তীতে তার লাশ মিজানুর রহমান চেয়ারম্যানের নিজ বাড়ী বুড়িচং উপজেলার ভারেল্লা ইউনিয়নের সোন্দ্রম গ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply