কুমিল্লার খোলাবাজারে নিম্নবৃত্তের কেনাকাটা

নাজমুল করিম ফারুক :–

কুমিল্লার তিতাস ও আশে-পাশের উপজেলার খোলাবাজারের গার্মেন্টস দোকানগুলোতে নিম্নবৃত্তদের কেনাকাটা জমে উঠেছে। বড় বড় শপিংমল বা মার্কেটের দোকানগুলোতে যাদের কেনাকাটা করার সাধ্য নেই তারাই পরিবার পরিজনদের চাহিদামত কেনাকাটা করছেন খোলা আকাশের নীচে সামিয়ানা টাঙ্গিয়ে বসা এসব দোকান থেকে।
তিতাসের বাতাকান্দি বাজার জামে মসজিদের সামনের ২০টি দোকান ঘুরে দেখা যায়, এলাকার নিম্নশ্রেণীর মানুষ এসব দোকানগুলোতে ভিড় জমিয়েছে। পুরুষের পাশাপাশি মহিলাদের ভিড়ও লক্ষ্য করা যায়। কেশবপুর গ্রামের আছিয়া খাতুন জানান, স্বামী দিন মজুর, বড় বড় দোকানে কাপড় চোপর কেনার সাধ্য নেই তাই দুই ছেলের জন্য ঈদের প্যান্ট ও গেঞ্জি কেনার জন্য এখানে এসেছি। রিক্সাচালক মন্টু মিয়া জানান, আমাদের আয় কম, চাহিদা থাকলেও পুরুন হয় না, তাই এসব বাজারই আমাদের ভরসা। খোলাবাজারের গামেন্টর্স ব্যবসায়ী হযরত আলী জানান, এখানের দোকানগুলোতে ছোট বাচ্চা থেকে ১৫-১৬ বছরের ছেলে-মেয়েদের রেডিমেড ছেলোয়ার-কার্মিজ, ওলনা, বিভিন্ন ডিজাইনের জামা, ছেলেদের জিন্সের ফুল প্যান্ট, হাফ প্যান্ট, বিভিন্ন ধরনের টি-শার্ট, গেঞ্জি, ক্যাপ, টুপি ও শার্ট পাওয়া যায়। আরেক ব্যবসায়ী ইমাম হোসেন জানান, যে টি-শার্ট মার্কেট থেকে ১৫০ টাকায় কেনা যায় এখানে তা বিক্রি হয় ৬০/৭০ টাকা। স্থায়ী মার্কেটের তুলনায় এখানে দাম কম হওয়ায় সমাজের নিম্ন আয়ের মানুষ ভিড় বেশি। তিনি আরো জানান, কুমিল্লার দ্বেবিদার, মুরাদনগর, চান্দিনা, দাউদকান্দি, গৌরীপুর, হোমনা ও তিতাসের বড় বাজারগুলোর সাপ্তাহিক বাজারে এসব দোকানের মালামাল বেশি বিক্রি হয়।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply