চাঁদপুরে শিশু ধর্ষণ মামলায় মাদ্রাসাশিক্ষকের যাবজ্জীবন

চাঁদপুর প্রতিনিধি :–

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে শিশু ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় আবদুল জলিল (৫৫) নামের এক মাদ্রাসাশিক্ষককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা করেছেন আদালত। একইসঙ্গে ওই ছাত্রীর গর্ভে জন্ম নেয়া শিশু মরিয়মের ভরণ-পোষণের দায়িত্ব নিতে ওই শিক্ষককে নির্দেশ দেয়া হয়।

মামলা দায়েরের আড়াই বছর পর সোমবার দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালত-১-এর বিচারক জেলা ও দায়রা জজ মো. শফিকুল করিম সাক্ষ্য-প্রমাণ শেষে এই রায় প্রদান করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১০ সালের ৩ আগস্ট হাজীগঞ্জ উপজেলার কাপাইকাপ ইসলামিয়া সিনিয়র মাদ্রাসার আরবি প্রভাষক আবদুল জলিল জায়গির বাড়িতে ষষ্ঠ শ্রেণীতে পড়ুয়া ১২ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ করে। এতে শিশুটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে।

ঘটনাটি ধাপাচাপা দেয়ার জন্যে মাদ্রাসার তৎকালীন অধ্যক্ষ আবদুল হাই ও পরিচালনা পর্ষদের সদস্য আবদুর রব বয়োবৃদ্ধ জলিলের সঙ্গে শিশুটির বিয়ে পড়িয়ে দেন।

শিশুটির পিতা এ বিয়ে না মেনে ২০১১ সালের ১৯ জানুয়ারি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ আদালত-১-এ জলিলকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। জলিল বর্তমানে চাঁদপুর জেলা কারাগারে রয়েছেন।

২০১১ সালের জুন মাসে ঢাকা মেডিকেল কলেজের ওসিসিতে (ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার) শিশুটি একটি কন্যা সন্তান জন্ম দেয়। বর্তমানে ওই শিশু ও তার কন্যা সন্তান মহিলা আইনজীবী সমিতির সেলফ্ হোম আগারগাঁও কার্যালয়ে আছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply