মুরাদনগর উপজেলার নিভৃত পল্লীতে হায়দরাবাদ সামসুল হক শিক্ষা কমপ্লেক্স শিক্ষার মশাল জ্বালিয়েছে

মো: মোশাররফ হোসেন মনির, মুরাদনগর(কুমিল্লা)প্রতিনিধি:–

মুরাদনগর উপজেলার উত্তর পূর্বাঞ্চলের বুড়ি নদী বিধৌত নিন্মাঞ্চলের মানুষের শিক্ষায় অনগ্রসর নিন্ম আয়ের সাধারন মানুষের উচ্চ শিক্ষা লাভের জন্য ৬ষ্ঠ হতে স্নাতক শ্রেনি পর্যন্ত এবং ধর্মীয় শিক্ষা লাভে ও ১ম শ্রেনি হতে দাখিল পর্যন্ত একই শিক্ষা কমপে¬ক্সে প্রায় ১৩ একর ভূমির উপর ব্যাক্তিগত ভাবে একক অর্থায়নে অনগ্রসর এ অঞ্চলে শিক্ষার আলো বিস্তারে উদ্যোগী হয়ে নির্মান করেছেন হায়দরাবাদ মাসুম বিল্লাহ দাখিল মাদ্রাসা, বেগম জাহানারা হক বালিকা বিদ্যালয়, সামছূল হক কলেজ, বেগম জাহানারা হক ডিগ্রি কলেজ।
মুরাদনগর উপজেলার আন্দিকুট ইউনিয়নের হায়দরাবাদ গ্রামের মৃত মো: আবদু মিয়ার গর্বিত ছেলে নিজের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ব্যবসার মাধ্যমে ঢাকায় প্রতিষ্ঠা লাভ করেন মো: সামছূল হক। কিন্তু তিনি ভুলে যাননি নিজ জন্ম ভূমি হায়দরাবাদের কথা। তিনি ছেলে বেলায় দেখেছেন এলাকার সন্তুানরা অনেক কষ্ট করে দূরদুরন্তেু পড়ালেখা করার জন্য যেতে হয়েছে। এ বিষয়টি মনে রেখে তিনি ১৯৯১ সালে ৩.১৪ একর ভূমির উপর নিজ নামে নির্মান করেন হায়দরাবাদ সামছুল হক কলেজ। তিন তলা ভবনের এ কলেজটিতে বিজ্ঞান, বানিজ্য, মানবিক বিভাগে রয়েছে ৩৮০জন ছাত্র-ছাত্রী। শিক্ষক ২৪জন ও কর্মচারি ১০জন। গত ২০১২ সালে এইচ এস সি পরিক্ষায় সাফল্যে হার শতকরা ৮৪ভাগ।
নারী শিক্ষার প্রসারে ১৯৯২ সালে ৩.১০ একর ভূমির উপর স্ত্রীর নামে হায়দরাবাদ বেগম জাহানারা হক বালিকা বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমানে এ বিদ্যালয়ে ৪৫২ জন ছাত্রী রয়েছে। গত ২০১২ সালের এসএসসি ও-জেএসসি পরিক্ষায় একজন করে এ+ সহ উভয় পরিক্ষায়ই শতভাগ সাফল্য লাভ করেছে।
এলাকার ছেলে-মেয়েদের উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করার লক্ষে ১৯৯৪ সালে ৩.১১ একর ভূমির উপর স্ত্রীর নামে প্রতিষ্ঠা করেন হায়দরাবাদ বেগম জাহানারা হক ডিগ্রি কলেজ। অবকাঠামো গত ভাবে এ কলেজের একটি দ্বি-তল ভবন, একটি টিনসেড বিল্ডিং ও ছাত্রাবাস হিসাবে একটি টিনসেড ঘর রয়েছে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিনে বিএ, বিএসএস, বিবিএস ও বিএসসি কোর্স সমূহে বর্তমানে এ কলেজে মোট ৩১০ জন শিক্ষার্থি রয়েছে। গত স্নাতক পরিক্ষায় এ কলেজ হতে ৭০ জন পরিক্ষার্থির মধ্যে ৪ জন প্রথম বিভাগ সহ ৬৮ জন পাশ করেছে। এ কলেজে কারিগরি বোর্ডের অধীনে এইচ এস সি (বিএম) ও বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের এইচ এস সি শাখা রয়েছে। কলেজ কতৃপক্ষ এ কলেজে অচিরেই অনার্স কোর্স চালুর বিষয়ে বিশেষ ভাবে চিন্তুা-ভাবনা করছে।
ধর্মীয় শিক্ষার ব্যাপারে ও রয়েছে গভীর আগ্রহ । এ কারনে একমাত্র ছেলের অকাল মৃত্যুতে এ ছেলের নামে প্রায় ৩ একর ভূমির উপর হায়দরাবাদ মাসুম বিল¬াহ নামে একটি দাখিল মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করেন। ১ম হতে দাখিল পর্যন্তু এ মাদ্রাসায় বর্তমানে ৫৪০জন শিক্ষার্থি রয়েছে। গত ২০১২ সালের দাখিল ও জেডিসি উভয় পরিক্ষায় শিক্ষার্থিরা শতভাগ সাফল্য লাভ করেছে। এ ছাড়াও এ মাদ্রাসায় কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধিনে এস এস সি শাখা রয়েছে।
সামছুল হক প্রতিষ্ঠিত শিক্ষা ক্যাম্পাস গুলো এক সাথে হওয়ায় এখানে সব সময় শিক্ষার সুন্দর পরিবেশ বিরাজ করছে। প্রতিষ্ঠান গুলোতে রয়েছে প্রতিষ্ঠান প্রধান সহ অভিঞ্জ শিক্ষক মন্ডলী। এ বছর ২০ ফেব্রুয়ারী প্রতিষ্ঠাতা সহ এলাকার কয়েকজন কৃতি সন্তানের উদ্যোগে প্রায় ৫ লক্ষ টাকা ব্যায়ে এক শহীদ মিনার নির্মান করা হয়েছে।
বেগম জাহানারা হক ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ লে: মো: আসাদুজ্জামান হায়দরাবাদ সামছুল হক শিক্ষা কমপ্লেক্সের সম্পর্কে বলেন, এ প্রতিষ্ঠান গুলো প্রতিষ্ঠার পর হতে প্রতি বছরই শিক্ষার্থিদের আশানুরোপ ভাল ফলাফল প্রাপ্তির মাধ্যমে এলাকার ঘরে ঘরে শিক্ষার মশাল জ্বলে উঠছে।
এ বিষয়ে হায়দরাবাদের পার্শ্ববর্তি জাড্ডা গ্রামের কৃতি সন্তুান ঢাকা হাইকোর্টের আইনজিবি এডভোকেট তৌহিদুর রহমান জানান, এ শিক্ষা কমপ্লেক্সের ফলে এলাকায় শিক্ষার ব্যাপক প্রসার লাভ করেছে।
এ বিষয়ে হায়দরাবাদ গ্রামের কৃতি সন্তান সামছুল হক শিক্ষা কমপ্লেক্সের প্রতিষ্ঠাতা ও বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী মো: সামছুল হক জানান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করার মাধ্যমে নিভৃত পল্লীতে জ্ঞানের আলো জ্বালানোর চেষ্টা করেছি। এ প্রতিষ্ঠান গুলোকে আরো সুন্দর ও সমৃদ্ধ করতে এলাকাবাসীর সার্বিক সহযোগিতা প্রয়োজন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply