সাহেবাবাদ ডিগ্রি কলেজে ছাত্রছাত্রীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠান

সৈয়দ আহাম্মদ লাভলুঃ–

বৃহত্তর কুমিল্লা জেলার সর্ব প্রাচীন বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঐতিহ্যবাহী সাহেবাবাদ ডিগ্রি কলেজে ৬ জুলাই দিনব্যাপী কলেজ মিলনায়তনে কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ হুমায়ুন কবিরের সভাপতিত্বে এবং প্রভাষক মোঃ নাছির উদ্দিন ও সারোয়ার আলম এর পরিচালনায় এইচএসসি ও ডিগ্রী প্রথম বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম পর্বে আলোচনা সভা, নবীন বরণ, কৃতি ছাত্রছাত্রীদের সংবর্ধণা, বৃত্তি প্রদান, ২য় পর্বে চড়–ইভাতি ও ৩য় পর্বে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, র‌্যাফেল ড্র ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়। নবীন বরণ অনুষ্ঠানে ছাত্রছাত্রীদের রজণীগন্ধার স্টিক দিয়ে বরণ করে নেন ২য় বর্ষের শিক্ষার্থীরা। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী জাহাঙ্গীর খাঁন চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আজিজুর রহমান। আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ মোঃ হুমায়ন কবির, বক্তব্য রাখেন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আবদুস সাত্তার, কলেজের বিদ্যুৎসাহী সদস্য প্রধান শিক্ষক মোস্তফা সারোয়ার খাঁন ও জসিম উদ্দিন নান্নু চেয়ারম্যান, অধ্যক্ষ জয়নাল আবেদিন, উপাধ্যক্ষ মোঃ হুমায়ন কবির ভূইয়া, প্রভাষক জহিরুল ইসলাম, প্রধান শিক্ষক আবদুল ওহাব, প্রভাষক মশিউর রহমান। সভায় বক্তারা বলেন, এ কলেজে ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষ থেকে সমাজকর্ম ও হিসাব বিজ্ঞান বিষয়ে অনার্স কোর্স চালু করার সমস্ত প্রক্রিয়া ইতিমধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে। অনার্স কোর্স চালু হলে অত্র এলাকার মেধাবী ও আর্থিক অস্বচ্ছল ছাত্রছাত্রীরা স্বল্প খরচে উচ্চ শিক্ষার সুযোগ পাবে। কলেজে এইচএসসি ও ডিগ্রী প্রথম বর্ষে প্রায় ৪০০ জন ছাত্রছাত্রী ইতিমধ্যে এ কলেজে ভর্তি হয়েছে। শিক্ষার্থীরা এ কলেজ থেকে ডিগ্রি পাশের পর বাংলাদেশের প্রথম শ্রেনীর নাগরিকের সন্মান অর্জন করে। তাই কলেজে নিয়মিত ক্লাস করে ভাল ফলাফল অর্জন করার জন্য শিক্ষার্থী ও শিক্ষকের মাঝে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে হবে। এ প্রাচীন কলেজে অনেক প্রবীন উচ্চ শিক্ষিত শিক্ষক আছেন,যাদের অভিজ্ঞতা নবীনদের চেয়ে অনেক বেশী। বর্তমানে নবীন ও প্রবীনদের সমন্বয়ে এ কলেজের ফলাফল পুর্বের চেয়ে অনেক ভাল হবে বলে আশাবাদ ব্যাক্ত করেন প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ। এসময় উপস্থিত ছিলেন কলেজের শিক্ষক, কর্মচারী, অভিবাবক ও কলেজের শিক্ষার্থীবৃন্দ। সভা শুরু হবার পূর্বে প্রধান অতিথিকে গার্ড অব অনার দেন কলেজ বিএনসিসি সদস্যবৃন্দ। অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক ২০১২ প্রভাষক এএসএম মশিউর রহমান, বর্ষ সেরা ছাত্র ২০১২ শারমিন আক্তার ২য় বর্ষ ও সেরা কৃতি ছাত্র ইনজামুল হক পলাশ ১ম বর্ষকে সংবর্ধনা প্রধান করা হয়। বর্তমানে এ কলেজের ছাত্রছাত্রী সংখ্যা ১৫৩২ জন । শিক্ষক ও কর্মচারী সংখ্যা ৫০ জন। সর্বশেষ পাবলিক পরীক্ষার গড় পাশের হার- উচ্চ মাধ্যমিক ৮৫% এবং ডিগ্রী ৮৬% বলে জানান কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ হুমায়ন কবির। তিনি গভনিং বডির সদস্য, অভিবাবক, প্রশাসন, শিক্ষক-ছাত্রছাত্রীসহ এলাকার সর্বস্তরের জনগনের সার্বিক সহযোগীতা কামনা করেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply