কুমিল্লার বুড়িচংয়ে স্ত্রীর দায়েরকৃত মামলায় স্বামী জেল হাজতে

জেহাদ হোসেন খোকন :–
কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার মহিষমারা গ্রামে স্ত্রীর উপর নির্যাতন ও যৌতুক দাবী করায় স্ত্রীর দায়েরকৃত মামলায় স্বামী মোঃ ইউনুছ মিয়াকে আটক করে রোববার জেল হাজতে প্রেরন করেছে বুড়িচং থানা পুলিশ।
মামলার এজহার সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার ষোলনল ইউনিয়নের মহিষমারা গ্রামের মৃত হাজী সুরুজ মিয়ার পুত্র মোঃ ইউনুছ মিয়া(৩৫) এর সাথে একই উপজেলার সদর ইউনিয়নের জরুইন গ্রামের মোঃ ছাদেক হোসেনের কন্যা মোসাঃ হৃদয় আক্তার (২৭) এর বিবাহ ৮ বছর পূর্বে সম্পন্ন হয়। বিয়ের সময় ইউনুছ মিয়াকে যৌতুক হিসেবে নগদ টাকা, স্বর্ণালংকার ও আসবাপ পত্র প্রদান করে হৃদয় আক্তার এর বাবা। বিয়ের পর থেকেই আরো যৌতুকের দাবীতে ইউনুছ মিয়া তার স্ত্রীর উপর বিভিন্ন সময়ে নির্যাতন চালিয়ে আসছিল বলে হৃদয় আক্তার জানায়। এর মধ্যেই তাদের সংসারে দুটি কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। ইতি মধ্যে ইউনুছ মিয়া আরো বেপোরোয়া হয়ে উঠে। বিদেশে যাওয়ার টাকার জন্য হৃদয় আক্তারের নিকট যৌতুক হিসেবে ৩ লাখ টাকার জন্য বিভিন্ন ভাবে চাপ সৃষ্টি করতে থাকে। বিষটি হৃদয় আক্তার তার বাবাকে জানালে তার বাবা মেয়ের ভবিষ্যত কথা চিন্তা করে মেয়ে জামাইকে নগদ ২ লাখ টাকা দেয়। টাকা পেয়ে ইউনুছ মিয়া বিদেশে চলে যায়। বিদেশে যাওয়ার পর থেকে ইউনুছ মিয়া তার স্ত্রী সন্তাদের কোন খোঁজ খবর না নিয়ে বাবার বাড়ী চলে যাওয়ার জন্য বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধমকি দিতে থাকে। পরবর্তীতে গত ৪ জুন ইউনুছ মিয়া ২ বছর পরে বিদেশ থেকে বাড়ী আসে। বাড়ী আসার পর থেকেই ইউনুস মিয়া তার স্ত্রীকে বিভিন্ন অযুহাতে মারধর করতে থাকে। গত ২০ জুন বিকেলে ইউনুছ মিয়া হৃদয় আক্তারকে বলে তার বাবার বাড়ী থেকে আরো ৩ লাখ টাকা এনে দিতে সে অন্য কোন দেশে যাবে। এতে হৃদয় আক্তার রাজী না হওয়ায় ইউনুস মিয়া, তার বড় ভাই মোঃ আবদুর রশিদ ও জ্যা মোসাঃ হাজেরা আক্তার লাভলী সকলে মিলে হৃদয় আক্তারকে ব্যাপক ভাবে মারধর করে। পরে হৃদয় আক্তার ও তার ২ মেয়েকে সঙ্গে দিয়া ইউনুছ মিয়া তাকে এক কাপড়ে বাড়ি হইতে বাবার বাড়িতে পাঠাইয়া দেয়। পড়ে হৃদয় আক্তার আহত অবস্থায় বুড়িচং হাসপাতালে ভর্তি হয়। এ ঘটনায় আহত হৃদয় আক্তার বাদী হয়ে গত ২৯ জুন বুড়িচং থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে স্বামী, বাসুর ও জ্যায়ের বিরুদ্ধে বুড়িচং থানায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলার প্রেক্ষিতে বুড়িচং থানার এস আই কাজী নাজমুল হক গত ২৯ জুন রাতে অভিযান চালিয়ে হৃদয় আক্তারের স্বামী অভিযুক্ত মোঃ ইউনুছ মিয়াকে গ্রেফতার করে। ৩০ জুন আটককৃত ইউনুছ মিয়াকে জেল হাজতে প্রেরন করেছে বুড়িচং থানা পুলিশ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply