কুমিল্লার দেবিদ্বারের রাজামেহার মাদ্রাসায় সন্ত্রাসী হামলা ভাংচুর : প্রতিবাদে বিক্ষোভ

মো. হাবিবুর রহমান, দেবিদ্বার থেকে :–
কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার রাজামেহার ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসায় একদল চি‎হ্নিত সন্ত্রাসী পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উক্ত হামলা ও ভাংচুরের প্রতিবাদে এবং সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে রোববার দুপুরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে। মিছিল ও প্রতিবাদ সভায় মাদ্রাসায় হামলাকারী সন্ত্রাসীদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জন্যে প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানানো হয়।
জানা যায়, মাদ্রাসার নামে ক্রয়কৃত ৯ শতক ভূমি ওই এলাকার মৃত আব্দুর রব মুন্সী ও আলী আজ্জম মুন্সীর ওয়ারিশরা দীর্ঘ ২২ বছর যাবত জবরদখল করে রেখেছিল। মাদ্রাসার গভর্নিং বডিসহ এলাকাবাসীর চেষ্টায় ১ লাখ টাকা ব্যয় দিয়ে ভূমিটি মাদ্রাসার দখলে আনা হয়। উদ্ধারকৃত ওই জায়গায় মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা আব্দুর রাওফ আমজাদ হোসাইন ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে ৪ তলা ফাউন্ডেশান বিশিষ্ট একটি বিল্ডিং নির্মাণ কাজে হাত দিয়ে ইতিমধ্যে ১ম তলার কাজ শেষ করেন। বিল্ডিং করার পূর্বে কয়েক দফা বৈঠক করে পূর্বের জবরদখল কারীরা বাড়ি থেকে বের হওয়ার জন্য নতুন বিল্ডিংয়ের উত্তর পাশ দিয়ে ৭ ফুট পাশে ৫৫ ফুট লম্বা একটি রাস্তা করে দেন। বর্তমানে তারা নতুন বিল্ডিংয়ের দক্ষিণ পাশ দিয়ে আবারো একটি রাস্তা দাবি করেন। মাদ্রাসার মূল ভবন ও ছাত্রাবাসের ভিতর দিয়ে তাদেরকে রাস্তা দেয়ার দাবিটি অযৌক্তিক বলে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষসহ এলাকার সর্বস্তরের লোকজন এতে রাজি হয়নি। এতে বাঁধ সাদে জবরদখল কারীরা। তারা ভিন্ন গ্রাম থেকে সন্ত্রাসী বাহিনী ভাড়া এনে শনিবার বিকাল অনুমান ৪টায় মাদ্রাসা ভবনে পরিকল্পিত ভাবে অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে আক্রমন চালায়। এ সময় তারা মাদ্রাসা ভবনের সাথে করা একটি টাইলস বসানো টয়লেট সম্পূর্ণ ভেঙ্গে ফেলে। এতে প্রায় দেড় লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে। বিষয়টি মাদ্রাসার গভর্ণিং বডির সভাপতি মুন্সী ফরিদ উদ্দিন আখতার ও অধ্যক্ষ মুসলিম খানসহ অন্যান্য শিক্ষকমন্ডলী এবং গভর্ণিং বডির অপর সদস্যরা নিশ্চিত করেন। এ ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে গভর্ণিং বডির সদস্য আব্দুল আউয়াল বাদী হয়ে কাউছার মিয়াসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে দেবিদ্বার থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উক্ত বিষয়ে মামলা হয়নি বলে জানা গেছে। তবে এ ঘটনার পিছনে একটি প্রভাবশালী স্বার্থান্বেষী মহল জড়িত রয়েছে বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী জানিয়েছেন।
এ ঘটনার প্রতিবাদে ও সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে রোববার দুপুরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে। মিছিল ও প্রতিবাদ সভায় মাদ্রাসায় হামলাকারী সন্ত্রাসীদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জন্যে প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানানো হয়। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন গভর্ণিং বডির সদস্য মাহবুবুর রহমান, আব্দুল বাতেন, প্রভাষক মাওলানা জসিম উদ্দিন, সহকারী শিক্ষক আবুল কাসেম ও মাহবুবুর রহমান প্রমুখ। এ দিকে মাদ্রাসায় হামলা ও ভাংচুরের খবর পেয়ে এলাকার সকল শ্রেণী-পেশার লোকজন বিক্ষোভে ফেটে ওঠে। তারা উক্ত ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে কথা বলার জন্য অভিযুক্ত কাউছার মিয়ার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি। তবে কাউছার মিয়ার মা ও মৃত আব্দুর রব মুন্সীর স্ত্রী লুৎফুন নাহার ঘটনার সত্যতা শিকার করে জানান, বাড়ি থেকে বের হওয়ার জন্য আমাদেরকে রাস্তা দেয়ার কথা ছিল। রাস্তা না রাখায় পোলাপাইনরা ক্ষিপ্ত হয়ে মাদ্রাসার পায়খানাটি ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply