ভূমিদস্যু ছানু মিয়াকে গ্রেপ্তারের জের : মুরাদনগরে মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ৪ দিন ধরে অবরুদ্ধ

মো. হাবিবুর রহমান, মুরাদনগর (কুমিল্লা):–
কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার দারোরা গ্রামে বসতবাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রভাবশালী ভুমিদস্যু ও তার বাহিনীর হুমকির মূখে এক অসহায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ৪ দিন ধরে অবরুদ্ধ হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। ভূমিদস্যু প্রভাবশালীরা ওই মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বসতবাড়ির আঙ্গিনা দখল করে চারিপাশে বাঁশ পুঁতে কাটাতারের বেড়া দিয়ে প্রাচীর নির্মান করায় তারাসহ ওই বাড়ির শিশু সন্তানরা পর্যন্ত বাড়ি থেকে বেড় হতে পারছে না। খবর পেয়ে শুক্রবার সকালে সরেজমিন পরিদর্শনে গেলে ভূক্তভোগী ওই মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের নারী ও পুরুষ সদস্যসহ স্কুল পড়–য়া শিশু সন্তানরা সাংবাদিকদের কাছে এ তথ্য জানায়।
জানা যায়, উপজেলার কাজিয়াতল গ্রাম থেকে ছেড়ে আসা বর্তমানে দারোরা গ্রামে স্থায়ীভাবে বসবাসরত মৃত গফুর মিয়ার ছেলে মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রশিদের পরিবারের সাথে ভুমিদস্যু গনেশ ছানু মিয়া, তার ভাই নান্নু মিয়াসহ অন্যান্য ভাই ও ভাতিজারা বসতবাড়ির সীমানা সংক্রান্তে দীর্ঘদিন যাবত এ অসহায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবারটির উপর অত্যাচার নির্যাতন করে আসছে। ছানু মিয়া ও নান্নু মিয়া গত সপ্তাহে এই সীমানা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রশিদ, তার স্ত্রী মরিয়ম বেগম, ছেলে জাকির হোসেন, ছেলের বউ শিউলি আক্তার ও বেড়াতে আসা নাতি আল আমীনসহ তার পরিবারের লোকজনদেরকে ব্যাপক মারধর করে। তখন তরা তাদের বসতবাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। বিষয়টি চেষ্টা করেও স্থানীয়ভাবে মিমাংসা না হওয়ায় মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রশিদের ছেলে জাকির হোসেন বাদী হয়ে ভূমিদস্যু গনেশ ছানু মিয়া, তার ভাই নান্নু মিয়াসহ ৪ জনের নাম উল্লেখপূর্বক অজ্ঞাত আরো ৭-৮ জনকে আসামি করে গত ৮ জুন মুরাদনগর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন (যার নং ১১/২২৮)। পুলিশী তদন্তে ওই মামলার সত্যতা পেয়ে অবশেষে গত মঙ্গলবার ভূমিদস্যু গনেশ ছানু মিয়াকে গ্রেপ্তারপূর্বক ওইদিনই কুমিল্লার কোর্ট হাজতে সোপর্দ করলে বিজ্ঞ বিচারক তাকে জেল-হাজতে প্রেরণ করেন। উক্ত ভুমিদস্যু গনেশ ছানু মিয়াকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যাওয়ার পর পরই তার অন্য সঙ্গীরা আরেক দফা ওই মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বাড়িতে হামলা চালিয়ে তার বাড়ির চারিপাশে কাটা তারের বেড়া দিয়ে তাদেরকে অবরুদ্ধ করে রাখে। বাড়ির চারিপাশে এ বেড়া নির্মান করায় ওই পরিবারের সদস্যরা বাড়ি থেকে বের হতে পারছে না। বাড়ি থেকে বের হবার চেষ্টা করলেই তাদেরকে মারধর করা হচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে ভূক্তভোগী ওই পরিবারের পুরুষ সদস্যরা জীবনের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। তারা রাতের বেলায় নিকটাত্মীয়ের বাড়িতে আশ্রয় নিয়ে থাকায় তাদের বাড়িতে থাকা মহিলারা চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন।
সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গেলে দেখা যায়, ওই পরিবারের মহিলা ও শিশুরা অবরুদ্ধ অবস্থায় রয়েছেন। এ সময় অবরুদ্ধ শিউলি আক্তার, মরিয়ম বেগম ও ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে পড়–য়া স্কুল ছাত্রী জাকিয়া সুলতানা ক্রান্দনরত অবস্থায় জানান, তাদের পরিবারের সদস্যরা প্রভাবশালী ভূমিদস্যু গনেশ ছানু মিয়া ও নান্নু মিয়ার বাহিনীদের ভয়ে বাড়িতে আসতে পাচ্ছে না। তারা গত ৪ দিন ধরে আতংক ও উৎকন্ঠার মধ্য দিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। বাড়িতে নাওয়া খাওয়ার জন্য বাজার খরচ দিতে এলেও পুরুষ সদস্যদের দৌড়িয়ে মারধর করা হচ্ছে। সাংবাদিকদের কাছে কথা বলার চেষ্টা করলে স্কুলছাত্রী জাকিয়া সুলতানাকে শাসিয়ে টানা হেচড়া করে ওই ভূমিদস্যুর লোকজন।
বিষয়টির ব্যাপারে দারোরা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের মোক্তার জানান, বিষয়টি মিমাংসা করার জন্য অনেক চেষ্টা করা হয়েছে। ভূমিদস্যু গনেশ সানু মিয়া এ ব্যাপারে বসতে রাজি না হওয়ায় সমাধান করা সম্ভব হয়নি। সে বর্তমানে যে পরিবারটিকে অবরুদ্ধ করে রাখছে এটি একটি অমানবিক কাজ। শত্র“রাও এ কাজ করতে পারে না। তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া প্রয়োজন।
দারোরা দ্বীনেশ চন্দ্র উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সঞ্জিত কুমার দাস গুপ্ত জানান, গনেশ সানু মিয়া একজন ভূমিদস্যু হিসেবে পরিচিত। সরকারি জায়গার পাশাপাশি সে অনেক মালিকানা জায়গাও গ্রাস করে রেখেছে। প্রতিবাদ করলেই নেমে আসে হামলা, ভাংচুর লুটপাট। তার অন্যায়, অত্যাচার ও জবরদখলে অতিষ্ঠ হয়ে অনেক পরিবার গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছে।
এ সব বিষয়ে মুরাদনগর থানার অফিসার ইনচার্জ আমিরুল আলম বলেন, ইতোমধ্যে ছানু মিয়াকে গ্রেপ্তার করে জেল-হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত অন্যদেরকেও গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।
এ ঘটনায় অভিযুক্ত ভূমিদস্যু গনেশ ছানু মিয়ার ভাই নান্নু মিয়া জানান, তারা ষড়যন্ত্রের শিকার। আমরা আমাদের নিজস্ব জায়গায় বেড়া দিয়েছি। কেউ বাড়ি থেকে বের হতে না পারলে আমাদের কি দোষ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply