বুড়িচংয়ে পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার সাক্ষাতের অনুমতি পেতে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা ॥ ভোগান্তি চরমে

জেহাদ হোসেন খোকন :–
বুড়িচং উপজেলা নির্বাহী অফিসার বা অন্যান্য কর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষাত করতে অনুমতির জন্য অপেক্ষা করতে না হলেও উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা রোকসানা খানম মুন্নীর সাথে সাক্ষাতের অনুমতি পেতে ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করতে হয়। ফলে বিভাগীয় কর্মকর্তা, কর্মচারিসহ সেবা পেতে আসা সাধারন মানুষের ভোগান্তি চরমে।
অভিযোগে জানা যায়, গত ফেব্রুয়ারি মাসে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হিসেবে রোকসানা খানম মুন্নী যোগদান করেন। যোগদানের কিছু দিন পর তার অফিস কক্ষের দরজার উপরের অংশে নাম পদবীসহ “বিনা অনুমতিতে প্রবেশ নিষেধ” সাইনবোর্ড লাগিয়ে অফিসের কার্যক্রম চালাচ্ছেন। ফলে বিভাগীয় কর্মকর্তা, কর্মচারিসহ পরিবার পরিকল্পনার সেবা পেতে আসা সাধারন মানুষ ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করতে হয়। ওই অফিসের পিয়নের সবুজ সংকেত না পাওয়া পর্যন্ত পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা রোকসানা খানম মুন্নীর সাথে কেউ সাক্ষাৎ করার সুযোগ পায়না। তাছাড়া তিনি যোগদানের পর থেকেই মাঠ পর্যায়ে কর্মরত কর্মকর্তা বা কর্মচারিদের রেজিষ্ট্রার খাতা মাঠ পর্যায়ে তদারকি না করে তাদেরকে অফিসে ডেকে এনে সারা দিন বসিয়ে রেখে বিকাল ৫ টায় চলে যেতে বলে। তাদেরকে সারাদিন অফিসে বসিয়ে রাখার কারণে মাঠ পর্যায়ে পরিবার পরিকল্পনা কার্যক্রমে মারাত্মক ভাবে ব্যাহত হচ্ছে। মানুষের কাছে পরিবার পরিকল্পনা কার্যক্রম নিশ্চিত করতে হলে ওই কর্মকর্তা মাঠ পর্যায়ে গিয়ে বিভাগীয় কর্মীদেরকে তদারকি করা এবং অফিসে আসা সাক্ষাৎ প্রার্থীদের সময় নষ্ট না করে স্বল্প সময়ে তাদের সমস্যা সমাধান করে দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট সচেতন এলাকাবাসী জোর দাবী জানান। গতকাল ২৩ জুন উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা রোকসানা খানম মুন্নী প্রশিক্ষনে থাকায় মোবাইল ফোনে বক্তব্য নেয়ার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply