সৌদিতে ২৫ দেশের আন্তর্জাতিক মেলায় বাংলাদেশের প্রথম স্থান লাভ

সৌদি আরব প্রতিনিধি :—

সৌদি আরবের সর্ববৃহৎ এবং প্রাচীনতম বিদ্যাপীঠ কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কলারশীপ বিভাগের উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার সাথে সংশ্লিষ্ট ৭২টি দেশের মধ্যে থেকে মনোনীত ২৫টি দেশের অংশগ্রহনে অনুষ্ঠিত মেলায় ২০১৩সালে বাংলাদেশের ষ্টলটি প্রথম স্থান অধিকার করে।মেলায় দ্বিতীয় ইন্দোনেশিয়া,তৃতীয় ইয়ামেন,চতুর্থ ফিলিপাইন,পঞ্চম চাইনা এবং থাইল্যান্ড ষষ্ট স্থান লাভ করে।
২০১২সালের মেলায় অংশ নিয়ে বাংলাদেশ ৫ম স্থান অধিকার করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের খেলার মাঠে চলতি বছরের ৬এপ্রিল থেকে শুরু হয়ে সপ্তাহব্যাপি চলা মেলায় ২৫দেশের শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ দেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, পোশাক, পর্যটন এবং খাবার বিশ্বের বুকে তুলে ধরতে স্টল বসায়।
গত ২৭মে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কলারশীপ বিভাগের হলরুমে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিজয়ী বাংলাদেশি ছাত্রদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন স্কলারশীপ বিভাগের চেয়ারম্যান আব্দুর রহমান আল আমরী। অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগে শিক্ষাদানরত বাংলাদেশি অধ্যাপক,সহকারী অধ্যাপক,বিভিন্ন পর্যায়ে কর্মরত কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে মেলায় প্রথম স্থান অধিকার করার ক্ষেত্রে যারা বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেছেন তাদের নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শারিরিক শিক্ষাকেন্দ্রের হলরুমে এক সম্বর্ধনা অনুষ্ঠান বৃহস্প্রতিবার দুপুরে অনুষ্ঠিত হয়। উচ্চতর শিক্ষানিতে কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয়ে আসা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক রফিকুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন, দীর্ঘ ২৮বছর কিং সৌদে কর্মরত নাসির উদ্দিন কাজেম আলী, ফার্মেসী বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. কাজী মুহসিন,মক্কা সুইটসের সত্বধীকারী মাকসুদ আলী, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. কামরুজ্জামান,আল ইমাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মোহাম্মদ সোহাইল উল্লাহ, বাংলানিউজের সৌদি আরব করেসপন্ডেন্ট মোহাম্মদ আল-আমীন,বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র লোকমান প্রমুখ।
3
অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয় এমন একটি বিদ্যাপিঠ যেখানে বিশ্বের ৭২দেশের ছাত্র-ছাত্রীরা পড়াশুনা করছেন। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলাদেশের প্রায় ২৫জন শিক্ষক বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা শিক্ষার্থীদের শিক্ষা দিয়ে আসছেন এটি বাংলাদেশের জন্য এক বিরাট পাওয়া।
বক্তারা আরো বলেন, “মেলায় প্রথম স্থান” কথাটি ছোট মনে হলেও এই স্থানটি বাংলাদেশের লাল-সবুজের পতাকাকে বিশ্বের দরবারে আরেক ধাপ উপরে উঠিয়ে দিয়েছে। বাংলাদেশের এই প্রথম স্থান অর্জনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর থেকে শুরু করে বিভিন্ন পর্যায়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।
বাংলাদেশ দুতাবাসের পত্যক্ষ সহযোগিতা পেলে আগামীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের যেকোনো কর্মকান্ডে বাংলাদেশকে আরো সুন্দর এবং সফলভাবে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরা সম্ভব বলেও বক্তারা আশা প্রকাশ করেন মেলায় অংশ নেয়া বাংলাদেশিরা।অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক,ডক্টর সাইফুল ইসলাম, ড. ইউসুফ আলী, ড. মোহাম্মদ গোলাম মর্তুজা,সৌদি আরবস্থ একটি ইউরোপিয়ান দুতাবাস কর্মকর্তা সৌদি গেজেটের সাংবাদিক আব্দুল আজিজ মীর,আল ইমাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উসামা খন্দকার,হাবিবুল্লাহ্‌ নুরুল আলম মুন্সি,নুরুল ইসলাম, বিশ্ববিদ্যালয়ের আইটি বিভাগে কর্মরত ফেরদৌস মিয়া,মোহাম্মদ মিলন খান।
মেলায় বাংলাদেশ ষ্টলের আয়োজক কমিটির পক্ষ থেকে মেলা পরিচালনায় বিভিন্নভাবে ভুমিকা রাখার জন্য নাসির উদ্দিন কাজেম আলী(স্পেশাল বিড়িয়ানী),সামাজিক সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শাহজাহান চঞ্চল(বাংলাদেশে ঐতিহ্যবাহী বিভিন্ন জিনিস),মাকসুদ আলী(খাবার), মোহাম্মদ ফেরদৌস মিয়া(আইটি),জাহিদ(সার্বিক),লোকমান(সার্বিক),শাহ আলম(সার্বিক),উসামা খন্দকার(সার্বিক) ডক্ট্রর কাজী মোহসিন(সহকারী অধ্যাপক ফার্মেসী বিভাগ কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয়), ডক্টর মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, ডক্টর মতিউর রহমান, ডক্ট্র মোহাম্মদ গোলাম মর্তুজা(জিওলজি বিভাগ),মোহাম্মদ মিলন খান(ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ), আব্দুল আজিজ মীর(সৌদি গেজেট), মোহাম্মদ আল-আমীন(বাংলানিউজ )মামুনুর রশীদ( নতুন বার্তা),ওহিদুল ইসলাম(একুশে টিভি), সিরাজুল হক মানিক(নয়াদিগন্ত)কে সম্মাননা এবং কৃতজ্ঞতা জানানো হয়।
উল্লেখঃ কিং সৌদ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কলারশীপ বিভাগের উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত শিক্ষক-কর্মচারীদের নিজ নিজ দেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য,শিক্ষা-সংস্কৃতি,খেলা-ধুলা এবং সুস্বাধু খাবার উপস্থাপনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ প্রতিবছর সপ্তাহব্যপি মেলার আয়োজন করে থাকে।এবারের মেলায় আরব,বাংলাদেশ,ভারত,ইন্দোনেশিয়া,ফিলিপাইন,ইয়ামেন,চাইনা,থাইল্যান্ড,গানা,আল্বেনিয়া,তুর্কি,পাকিস্তান,আফগানিস্তান,সোমালিয়াসহ ২৫টি দেশ অংশ নিয়েছিলো।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply