মালয়েশিয়া আওমীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সংগঠক এডঃ গোলাম আহাদের মূত্যতে আওয়ামী যুবলীগের উদ্যোগে শোক সভা অনুষ্ঠিত

এম.আমজাদ চৌধুরী রুনু মালয়েশিয়া থেকেঃ–

গত কাল ২৫ই মে শনিবার মালয়েশিয়া আওয়ামী যুবলীগের উদ্যোগে কুয়ালালামপুরস্থ সাঈদ বিষ্টু রেষ্টুরেন্টের হল রুমে আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সংঘটক ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের সংগ্রামী সভাপতি এডভোকেট গোলাম আহাদ জামালের রুহের মাগফেরাত কামনায় মালয়েশিয়া আওয়ামী যুবলীগের উদ্যোগে মিলাদ মাহফিল ও শোক সভা অনুষ্ঠিত হয় ।
মালয়েশিয়া আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ন-আহবায়ক মনসুর আল বাসার সোহেলের সভাপতিত্বে শেখ মোঃ কাইয়ুম ও শাহাদাৎ হোসেন সাব্বিরের যৌথ সঞ্চালনায় মাওলানা মোঃ সিরাজুল ইসলামের পবিএ কোরান তেলায়াতের শুরুতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মকবুল হোসেন মুকুল. বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা শওকত হোসেন পান্না. বীর মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান. মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক রাসেদ বাদল. যুগ্ন-সম্পাদক মাহতাব খন্দকার. মালয়েশিয়া শ্রমীক লীগের সভাপতি লিটন আজিজ দেওয়ান ।
মরহুম গোলাম আহাদের বিভিন্ন স্মৃতিচারন নিয়ে আলোচনা করেন গৌতম রায় প্রবাসী কন্ঠ সম্পাদক. মোঃ আবুল হোসেন সাংগঠনিক সম্পাদক মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগ. শাখাওয়াত হোসেন জোসেফ প্রচার সম্পাদক মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগ. এস.এম আবুল হোসেন দপ্তর সম্পাদক মালযেশিয়া আওয়ামীলীগ. এম.আমজাদ চৌধুরী রুনু সাধারণ সম্পাদক মালয়েশিয়া বাংলাদেশ প্রেসক্লাব. মোঃ আনসার আলী. সাইফুল ইসলাম সিরাজ. মোঃ জাকির হোসেন ছাএনেতা. লিটন সরকার বাবু . শেক শহিদুল ইসলাম. রফিকুল ইসলাম প্রমূহ।
বক্ততারা তাদের আলোচনায় মরহুম গোলাম আহাদ জামালের জীবনের স্মৃতিচারন তোলে ধরে বলেন শোষিত শ্রমিকদের পক্ষে আন্দোলনে এই প্রবাসী নেতা ছিলেন এক প্রতিবাদী কন্ঠ , শ্রমিকদের পক্ষে ও কুয়ালালামর হাইকমিশনের দুর্নিতিপরায়ন আফিসারদের বিরুদ্দে প্রতিবাদ করতে গিয়ে কারাবরণ করেন পর্যায়ক্রমে ১৯৯৩ ও ১৯৯৬ সালে। সকল অত্যাচার সহ্য করে শ্রমিকদের বিপদে ও কল্যাণে সবসময় নিয়োজিত ছিলেন। ছুটে বেড়াতেন মালয়েশিয়ার একপ্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্তে,মাথানত করেনি কোন অপশক্তির কাছে শ্রমীকদের বিপদে সবসময় তিনি আন্তরীক থাকিতেন এবং সাহায্যর হাত প্রসারীত করিতেন যাহা কিনা মালয়েশিয়া প্রবাসীরা আজীবন মরহুম আহাদ কে স্মরণ করিবেন ।
তার মৃত্যুতে আমরা প্রবাসীরা হারালাম একজন নিবেদিত অভিভাবককে । মরেও চির অম্লান হয়ে থাকবেন সকল প্রবাসীদের অন্তরে . যারা মরহুম আহাদের একান্ত সান্ধিধে ছিলেন রাসেদ বাদল ও গৌতম রায় তাদের বক্তবে অঝড়ে কেদেঁ ফেলেন । পরিশেষে অসুস্থতার জন্য বাংলাদেশ থেকে শোক সভায় উপস্থিত হতে না পেরে দূঃখ প্রকাশ করে টেলিকনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন মালযেশিয়া আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক এ.কামাল হোসেন চৌধুরী প্রমূহ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply