কুমিল্লার তিন উপজেলায় বজ্রপাতে ৩ জনের মৃত্যু

মাসুমুর রহমান মাসুদ / জেহাদ হোসেন খোকন / শামিমা সুলতানা :–

কুমিল্লার চান্দিনায় বজ্রপাতে রুহুল মিয়া (৩৮) নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল সামবার (২০ মে) বিকাল ৩টার দিকে চান্দিনা উপজেলার বরকইট ইউনিয়নের পিহর গ্রামে ওই ঘটনা ঘটে। নিহত রুহুল মিয়া ওই গ্রামের সফিক মিয়ার ছেলে। তিনি ৩ সন্তানের জনক ছিলেন। স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, সোমবার দুপুর থেকে বৃষ্টিপাত শুরু হয়। এসময় সময় রুহুল মিয়া তার নিজের জমিতে কাজ করতে গেলে বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজন নিহতের লাশ তার বাড়িতে নিয়ে আসে।

আমাদের বুড়িচং প্রতিনিধি জানান, সোমবার দুপুরে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার সদর ইউনিয়নের পূর্নমতি গ্রামে বজ্রপাতে আনোয়ার হোসেন(২০) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।
স্থানীয়রা জানায়, ২০ মে সোমবার দুপুর ১.৩০ ঘটিকায় কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলা সদর ইউনিয়নের পূর্নমতি (বাগান বাড়ী) গ্রামের মোহাম্মদ হোসেনের পুত্র মোঃ আনোয়ার হোসেন (২০) বাড়ী অদূরে জমিতে ধান কাটতে যায়। ধান কাটা শেষে ধানের আটি কাধেঁ করে বাড়ী নিয়ে আসায় সময় হঠাং করে বিকট শব্দে একটি বজ্রপাত তার উপর পরে। পরে প্রত্যক্ষদর্শীরা তাকে উদ্ধার করে বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষনা করে।

অপরদিকে আমাদের দাউদকান্দি প্রতিনিধি জানান, আজ সোমবার দুপুরে কুমিল্লা তিতাস উপজেলার জগৎপুর গ্রামে বজ্রপাতে আবুল হাশেম (৪৮) নামে এক কৃষক নিহত হয়েছে।
এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরো তিনজন। তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নবির হোসেন জানান, ‘সোমবার দুপুরে উপজেলার ভিটিকান্দি ইউনিয়নের জগৎপুর গ্রামের মৃত মো: সোনা মিয়ার পুত্র আবুল হাশেম (৪৮) ধান কাটার শ্রমিক নিয়ে জমিতে যান। এ সময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই আবুল হাশেমের মৃত্যু হয়। এ ছাড়াও মারাত্মকভাবে আহত হন তিন শ্রমিক। তাদেরকে তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করা হয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply