মহাসেনে উপকূলে ১৪ জনের প্রাণহানি

ঢাকা :–

ঘূর্ণিঝড় মহাসেন বাংলাদেশ উপকূলের উপর দিয়ে বৃহস্পতিবার বিকেলে ভারতের ত্রিপুরায় চলে গেছে। তার আগে ঝড়ের তোড়ে গাছপালা ভেঙে ও ঘরচাপা পড়ে উপকূলীয় অঞ্চলে এ পর্যন্ত ১৪ জনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে বরগুনায় মারা গেছে ৭ জন, ভোলায় ৩ জন ও পটুয়াখালীতে ৪ জন মারা গেছে।

বরগুনা :- বরগুনার বেতাগী উপজেলার রানীপুরের সৈয়দ আলী, একই উপজেলার বকুলতলি গ্রামের আবির, বামনা উপজেলার জয়নগর এলাকার আনোয়ার হোসেন, লক্ষ্মীপুরা গ্রামের সন্তানসম্ভবা ঝুমুর আক্তার নাদিরা, একই এলাকার মোশাররফ হোসেন ও আমতলি উপজেলার ছোট আম ভোলা গ্রামের চাঁন মিয়া । এছাড়া পাথরঘাটার ঘুটাবাছা গ্রামের হনুফা বেগম (২৫) গাছের নিচে চাপা পড়ে মারা গেছেন।

বামনা থানার ওসি মনিরুল ইসলাম জানান, জয়নগর এলাকার আনোয়ার হোসেন (৪২) ঘরচাপা পড়ে, লক্ষ্মীপুরা গ্রামের সন্তানসম্ভবা ঝুমুর আক্তার নাদিরা (২৫) আশ্রয় কেন্দ্রে যাওয়ার পথে আছড়ে পড়ে এবং একই এলাকার মোশাররফ হোসেন (৫৫) ঘরচাপা পড়ে মারা যান।

বেতাগী থানার ওসি বাবুল আখতার জানান, পূর্ব আলীপুর গ্রামের সৈয়দ আলী খান (৭৫) নামে এক ব্যক্তি গাছচাপা পড়ে মারা গেছেন।

এছাড়া আমখোলা গ্রামে গাছচাপা পড়ে চাঁন মিয়া (৬০) নমে আরেকজনের মৃত্যু হয় বলে তালতলী থানার ওসি মিজানুর রহমান জানান।

বেতাগীর কাজিরাবাদ ইউনিয়নের বকুলতলীতে মারা গেছে আবির হোসেন নামে ৬ বছর বয়সী এক শিশু।

বেতাগী থানার ওসি বাবুল আখতার জানান, ঘরের ভেতরে থাকলেও বজ্রপাতে ‘আতঙ্কিত হয়ে’ শিশুটির মৃত্যু হয় বলে পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন।

বরগুনা ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচি কমিটির উপ-পরিচালক মো. হাফিজুদ্দিন আহমেদ ঝড়ে এসব মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ভোলা :–জেলার লালমোহন উপজেলায় গাছচাপা পড়ে মারা যান আবুল কাশেম, চরফ্যাশনে ঘরচাপায় মারা গেছেন রফিকুল ইসলাম ও শিশু পারভেজ । জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. ওয়াহেদ জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে লালমোহনের ধলিগৌরনগর এলাকায় মারা যান মো. আবুল কাসেম। রেড ক্রিসেন্টের সাইক্লোন প্রিপেয়ার্ডনেস প্রোগ্রামের (সিপিপি) উপ-পরিচালক মো. শাহাবুদ্দিন জানান, চর ফ্যাশনের চর মাদ্রাজে ঘর চাপায় নিহত হয় পারভেজ। সে স্থানীয় মো. আলমগীরের ছেলে।

ভোলা জেলা প্রশাসক খোন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, চর ফ্যাশনের ঢালচরে ঘরচাপা পড়ে মারা যান রফিকুল ইসলাম।

পটুয়াখালী :– মহাসেনের কবলে পড়ে বৃহস্পতিবার সকালে সাড়ে ১০টার দিকে পটুয়াখালীতে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। জানা যায়, সদর উপজেলার আওলিয়াপুর ইউনিয়নের বলাইকাঠি গ্রামের মো. সিরাজ আকন্দ (৬০) মারা গেছেন। সাইক্লোন শেল্টার সেন্টারে যাওয়ার পথে ঝড়ের তাণ্ডবে তার মৃত্যু হয়। গলাচিপা পৌর এলাকায় ঝড়ে উপড়ে পড়া একটি গাছের চাপা পড়ে মারা যান রিজিয়া পারভীন (৪৫) নামে এক নারী। কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর এলাকার এছাহাক মাস্টার (৬৫), পৌর শহরের নবাবপাড়া এলাকার শানু হাওলাদার (৫০)।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply