ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে ৪১ দিন পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :–

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে মৃত্যুর ৪১ দিন পর কবর থেকে মো. আসাদুল্লাহ (১৮) নামের এক যুবকের লাশ উত্তোলন করা হয়েছে। মঙ্গলবার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাজমুল ইসলামের উপস্থিতিতে কড়া পুলিশ প্রহরায় উপজেলার চুন্টা ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের কবরস্থান থেকে ওই গ্রামের মৃত আবদুল কাদিরের ছেলের লাশ উত্তোলন করা হয়।
রসুলপুর গ্রামের ইউপি সদস্য মো. ইরা মিয়া জানান, গত ৩ এপ্রিল রাতে ওই যুবক বাড়ির অদূরে খালের পাড়ে একটি গাছের ডালে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। পরে পরিবারের লোকেরা স্থানীয় কয়েকজন সমাজপতির পরামর্শে পুলিশকে না জানিয়ে লাশ দাফন করে ফেলে। নিহত যুবকের মা জানু বেগম ও পরিবারের লোকেরা জানান, গ্রামের ওমান প্রবাসী হোসেন আলীর স্ত্রী ছয় সন্তানের জননী রাশেদা বেগমের সাথে আসাদুল্লাহ’র পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। ঘটনার দিন তারা দু’জন মোবাইল ফোনে তর্কবিতর্কের এক পর্যায়ে আসাদুল্লাহ আত্মহত্যার কথা বলে। সন্ধ্যারাতে রাশেদার সুর চিৎকার ও তার দেওয়া তথ্যমতে লোকজন এসে দেখতে পায় গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় গাছের ডালে আসাদুল্লাহ ছটফট করছে। মূমুর্ষ অবস্থায় লোকজন তাকে নীচে নামিয়ে আনার কিছুক্ষণ পরই মৃত্যু হয়। এসময় তার কাছে একটি মোবাইল ফোন পাওয়া যায়। এতে রাশেদার সাথে তার শেষ কথাগুলো রেকর্ড করা ছিল। পরে গ্রাম্য মাতব্বর রেহেন আলী, ইমান আলী ও মন্নাফ মিয়ার নির্দেশে নিহত যুবকের লাশ গোপনে দাফন করা হয়।নিহতের বোন মনোয়ারা বেগম জানান, ‘লাশ দাফনের দুইদিন পর গ্রাম্য মাতব্বররা এই নিয়ে সালিশে বসে। খবর পেয়ে পুলিশ এসে রাশেদা-আসাদুল্লাহ’র কথোপকথনের রেকর্ড উদ্ধার করে। পরে থানায় একটি মামলা দায়ের হয়।’ তিনি দাবি করেন, আসাদুল্লাহ’র মুত্যুর জন্য রাশেদা বেগমই দায়ী। এদিকে রাশেদা বেগমের বাড়িতে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি। ঘরে তালা ঝুলছে। প্রতিবেশীরা জানিয়েছে ঘটনার পর থেকে রাশেদা গা ঢাকা দিয়েছে।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সরাইল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শওকত হোসেন জানান, ‘এই ঘটনায় নিহতের মা বাদী হয়ে রাশেদা বেগমসহ পাঁচজনের নামোল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো ১০/১২ জনকে আসামি করে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। গত ১১ এপ্রিল বাদীর অভিযোগ আমলে নিয়ে পুলিশ তা এজাহারভূক্ত করে। আদালতের নির্দেশে নিহতের লাশ উত্তোলনের পর ময়না তদন্ত সম্পন্ন করা হয়েছে। মামলার তদন্ত চলছে। আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ তৎপর রয়েছে।’

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply