কুমিল্লার তিতাসে শশুর বাড়ীতে জামাইর রহস্যজনক মৃত্যু দুই থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের

নাজমুল করিম ফারুক,তিতাস (কুমিল্লা) :–

কুমিল্লার তিতাসে শশুর বাড়ীতে জামাই সাদ্দাম হোসেন (২৪) এর রহস্যজনক মৃত্যু ঘিরে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে দাউদকান্দি পুলিশ ফাঁড়ি ও তিতাস থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বুধবার দিবাগত রাতে উপজেলার আসমানিয়া দড়িকান্দিতে উক্ত ঘটনা ঘটে। আজ ০২ মে বৃহস্পতিবার পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দাউদকান্দি উপজেলার জিংলাতুলী গ্রামের অসুস্থ মুক্তিযোদ্ধা ছিদ্দিকুর রহমানের পুত্র সাদ্দাম হোসেন (২৪) তিতাস উপজেলার আসমানিয়া দড়িকান্দি গ্রামের আবুল কাসেমের কন্যা রাবেয়া আক্তার (১৯) সাথে গত ৩০ নভেম্বর বিয়ে হয়। বর্তমানে রাবেয়া আক্তার ৪ মাসের অন্তসত্ত্বা। বুধবার দিবাগত রাতে শশুর বাড়ীতে সাদ্দাম অসুস্থ হলে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভর্তির পর কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
নিহতের মা খাদিজা বেগম জানান, শশুর বাড়িতে যাওয়ার পর বউ রাবেয়া আমার বুকের ধন সাদ্দামকে শরবত খাওনোর কিছুক্ষণ পর আমাকে ফোন করে বলেছে ‘মা আমাকে রাবেয় শরবতের সাথে বিষ খাওয়াছে’ আমার বুক আগুনের মত জ্বলছে। একথা বলেই মোবাইল ফোন বন্ধ করে দেয়। মেয়ের বাবা আবুল কাসেম আমার ছেলেকে হাসপাতালে নিজে না এনে কিছু বখাটে ছেলে দিয়ে হাসপাতালে পাঠায়। আমার ছেলের মৃত্যুর খবর শুনে তারা পালিয়ে যায়। তিনি আরও বলেন, বিয়ের পরপরই আমার ছেলে আমাকে বলেছে, মা এ মেয়ের সাথে আমার সংসার করা সম্ভব হবে না। রাবেয়া অন্য ছেলের সাথে পরকীয়া সম্পর্ক আছে।
নিহতের স্ত্রী রাবেয়া আক্তার উক্ত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার স্বামীর পিতা-মাতা, ভাই-বোনদের অত্যাচারের সে বাহির থেকে বিষ পান করে আমার বাড়ীতে এসে অসুস্থ হয়ে পরে। এসময় সে একটি চিঠি লিখে যায়, তার মৃত্যুর জন্য তার পিতা-মাতা ও ভাই-বোন দায়ী। এ ব্যাপারে নিহতের মা খাদিজা বেগম বাদী হয়ে দাউকান্দির গৌরীপুর পুলিশ ফাঁড়ি ও নিহতের স্ত্রী রাবেয়া আক্তার বাদী হয়ে তিতাস থানায় অভিযোগ দায়ের করে। আজ ২ মে বৃহস্পতিবার সকালে দাউদকান্দির গৌরীপুর তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক মোঃ আসাদ নিহত সাদ্দাম হোসেনের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মর্গে প্রেরণ করেন।
দাউদকান্দি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল ফয়সল জানান, নিহত সাদ্দামের পরিবারে থেকে বিষ প্রয়োগে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। অপমৃত্যু মামলা হলেও ময়না তদন্তের রিপোর্টের পর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নবীর হোসেন জানান, মৃত্যুর পূর্বে সাদ্দাম হোসেন একটি চিঠি লিখে গেছে। যাতে এই মৃত্যুর জন্য তার পরিবারকে দায়ী করা হয়েছে। তবে ময়না তদন্ত রিপোর্ট ও তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply