মুরাদনগরে ইটভাটায় অবাদে পুড়ছে কাঠ: অবাদে মাটি কাটায় হুমকির মুখে গোমতী বেরিবাধ

মোঃ মোশাররফ হোসেন মনির, মুরাদনগর প্রতিনিধি:–

মুরাদনগরে ইটভাটাগুলোয় আইনের কোন প্রকার তোয়াক্কা না করে অবাদে পোড়ানো হচ্ছে কাঠ। চলছে গাছ কাটা ও গোমতী নদীর শহর রক্ষাবাধ সংলগ্ন জমি থেকে মাটি কাটার মহাউৎসব। এর ফলে বিপর্যয় ঘটছে প্রাকৃতিক ও পারির্পাশ্বিক পরিবেশের। মারাক্তক ভাবে পরিবর্তন ঘটছে জলবায়ুর।
গোমতী নদীর রক্ষাবাধ সংলগ্ন জমি থেকে মাটি কাটার কারনে মারাত্তক হুমকির মুখে প্রতিরক্ষার জন্য নির্মিত গুরুত্বপুর্ন এই বেরীবাধটি। যার ফলে হুমকির মুখে পুরো উপজেলার সাধারন জনগণ। ইটভাটার মালিকরা সরকারি নিয়ম নীতির কোন প্রকার তোয়াক্কা করছে না। আইনে কয়লা দিয়ে ইট পোড়ানোর কথা থাকলেও তা মানা হচ্ছে না। অবাদে পোড়ানো হচ্ছে কাঠ ও গাড়ীর পুরনো টায়ার। যার প্রভাবে দিন দিন ভারসাম্য হারাচ্ছে পরিবেশ। মুরাদনগর উপজেলায় ইটভাটার সংখ্যা প্রায় ৬২টি। পরিবেশ আইনে জনবসতিপূর্ন এলাকায় ইটভাটা স্থাপনের নিয়ম না থাকলেও যার অধিকাংশই স্থাপন করা হয়েছে লোকালয়ের পাশে এবং ফসলি জমিতে। লোকালয়ের অভ্যন্তরে ইটভাটা স্থাপন করায় পরিবেশ মারাক্তক দূষিত হচ্ছে। যার প্রভাব পড়ছে মানুষের মাঝে, ছড়িয়ে পড়ছে নানা ধরনের রোগ ব্যাধি। আর ক্ষেত, খামারের উপর পড়েছে বিরুপ প্রভাব।
স্থানীয়রা জানান, মুরাদনগর উপজেলার শিবানীপুর, কোম্পানীগঞ্জ, নগরপাড়, বাখরনগর, গকুলনগর, টনকী,বাঙ্গরা, দিলালপুর, ধনিরামপুর, ছালিয়াকান্দি সহ অন্যন্যা এলাকায় সড়কের দু’পাশে যেভাবে ইটভাটা স্থাপন করা হচ্ছে এলাকা গুলো যেন ইটভাটার শহরে পরিনত হয়েছে। এসব ইটভাটায় রাতের আধারে কাঠ দিয়ে ইট পোড়ানোর মহাউৎসব চলে। আবার প্রভাবশালীদের কিছু ইটভাটায় দিনে বেলাতেও পোড়ানো হচ্ছে কাঠ আর গাড়ীর পুরনো টায়ার। এই ইটভাটা গুলোর কলো ধোয়ার প্রভাবে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়ক,নবীনগর-মুরাদনগর-কুমিল্লা সড়ক, মুরাদনগর-ঢাকা সড়ক, মুরাদনগর-হোমনা সড়ক, কোম্পানীগঞ্জ-মুরাদনগর সড়কে প্রায় কয়েক হাজার সরকারী গাছ মারা গেছে বলে জানান। যার মূল্য কয়েক হাজার কোটি টাকা।
কয়েকটি ইটভাটার মালিকদের সাথে কথা বলে দেখা যায়, যে ইটভাটা পরিচালনা করার জন্য তাদের রয়েছে পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র বা অনুমোদন।
জানা যায়, পরিবেশ অধিদপ্তরের কিছু অসাধু কর্মকর্তার যোগসাজসে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে কোন প্রকার যাচাই বাছাই ও পরিদর্শন ছাড়াই দিয়ে দিচ্ছেন ছাড়পত্র। পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র নিয়ে পরিবেশ বিরোধী কর্মকান্ড পরিচালনা করায় উপজেলার সাধারন মানুষের মাঝে পরিবেশ অধিদপ্তরের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply