মনোহরগঞ্জে বিদ্যুতের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ

কুমিল্লা প্রতিনিধি:–

মঙ্গলবার কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার সরষপুর ইউনিয়নের রুদ্রপুর গ্রামে বিদ্যুতের দাবীতে বিশাল মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেন এলাকাবাসী। ওই গ্রামব্যাপী বিদ্যুায়নের জন্য স্থানীয় লোকজনের আবেদনের প্রেক্ষিতে সার্ভে হয় এবং পরবর্তীতে তা স্থানীয় সাংসদ মো. তাজুল ইসলামের সুপারিশক্রমে মাষ্টার প্লানে দুই ব্লকে সাড়ে ৮ কি.মি অনুমোদন পায়। জানা যায় রুদ্রপুর গ্রামে বিদ্যুায়নের জন্য অফিস খরচ দেখিয়ে পার্শ্ববর্তী সাটোরা গ্রামের মৃত লোকমান হোসেনের ছেলে ইলেক্ট্রিশিয়ান ইসমাইল হোসেন গ্রামবাসী থেকে দুই লক্ষ পঁচাশি হাজার টাকা নেয়। পরে ইসমাইল হোসেনের যোগ-সাজসে একটি কু-চক্রিমহল সঙ্গগোপনে উক্ত প্রকল্পটি নিয়ে ষড়যন্ত্র শুরু করে। কু-চক্রী কতিপয় ব্যক্তিগণ স্বার্থের মোহান্ধ হয়ে অধিক টাকার লোভে পুনরায় মিটার প্রতি পঞ্চাশ হাজার টাকা করে বাড়তি ধার্য্য করে। বাড়তি টাকা না দিলে বিদ্যুৎ দেওয়া হবে না বলে জানায়। অধিকাংশ গ্রামবাসী দরিদ্র হওয়ায় অতিরিক্ত টাকা দিয়ে বিদ্যুৎ নেওয়া তাদের পক্ষে সম্ভব ছিল না। এই সুযোগে ইসমাইল হোসেন ওই গ্রামের কিছু প্রভাবশালীকে হাত করে অন্য সবাইকে বৃদ্ধাঙ্গালী দেখিয়ে অনানুমোদিত এরিয়ায় বিদ্যুায়নের কার্যক্রম শুরু করে। সার্ভে এরিয়ায় যেখানে তিনটি বিদ্যুৎ খুঁটি স্থাপন করলে ছাপ্পান্নটি মিটার ব্যবহার করা যেত সেখানে তা না-করে বড় অংকের টাকার বিনিময়ে আটটি খুঁটি স্থাপন করে দুইটি মিটারে ব্যবহারের জন্য অন্যত্র বিদ্যুৎ লাইনের সংযোগ দেওয়ার চেষ্টা করে। যার ফলে ২/৪জনের বিদ্যুৎ ব্যবহারের স্বার্থে একশ’জন গ্রামবাসী বিদ্যুৎ ব্যবহারে বঞ্চিত হচ্ছে। এতে গ্রামবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। গ্রামবাসী নারী-পুরুষ সম্মিলিতভাবে এর প্রতিবাদ করতে শুরু করে। বিদ্যুৎ পাওয়ার অধিকার বঞ্চিত গ্রামবাসী জানায় আমরা বিদ্যুৎ ব্যবহার করতে না পারলে অন্যদের ব্যবহার করতে দিব না। ইসমাইল ও তাদের সহযোগীদের অন্যায় কাজে গ্রামবাসী বাধ সাধায় তারা গ্রামবাসীকে বিভিন্নভাবে হুমকি-দমকি দিচ্ছে। এদিকে ইসমাইল ও তাদের সহযোগীদের হুমকি-দমকিতে ভীত-সন্তস্ত্র হয়ে নুর মোহাম্মদ নামের একজন বুধবার মনোহরগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানার এএসআই ইকরামুজ্জামান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এঘটনায় গ্রামের দুইপক্ষ সাংঘর্ষিক অবস্থানে থাকায় যেকোন মুহুর্তে একটি অনাকাঙ্খিত বড় ধরণে দূর্ঘটনার আশঙ্কা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে কুমিল্লা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর ডিজিএম মো. মকবুল হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান বিষয়টি আমরা অবগত হয়েছি। তদন্ত চলছে এবং প্রয়োজনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply