১৮ দলীয় জোটের কর্মসূচি পরিবর্তন হয়নি : ড. খন্দকার মোশাররফ

ঢাকা :–

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে ১৮ দলীয় জোটের পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচির এখন পর্যন্ত কোনো পরিবর্তন হয়নি।’

সোমবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের অঙ্গ, সহযোগী সংগঠন ও জেলা নেতাদের সঙ্গে যৌথসভা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

ড. মোশাররফ বলেন, ‘৪ মে’র সমাবেশসহ ১৮ দলীয় জোটর ঘোষিত কর্মসূচি সফল করার জন্য আমরা দলের অঙ্গ, সহযোগী ও জেলা নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছি। সমাবেশ করার জন্য আমরা শাপলা চত্বরের অনুমতি চেয়েছি। যেহেতু ইতোপূর্বে শাপলা চত্বরে কয়েকটি সংগঠনকে সমাবেশ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে সেহেতু বিএনপি দেশের একটি বড় দল হিসেবে এই অনুমতি চেয়েছে। আশা করি কর্তৃপক্ষ এই সমাবেশে সহযোগিতা করবে।’

তিনি বলেন, ‘যদি সরকার শাপলা চত্বরে অনুমতি না দেয় তাহলে নাইটিংগেল মোড়ে এই সমাবেশ করা হবে। আমরা সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণভাবে সমাবেশ করতে চাই।’

১৮ দলীয় জোট নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ওই সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেবেন উল্লেখ করে মোশাররফ বলেন, ‘সাভারে বড় ধরনের দুর্ঘটনার পর সারাদেশের মানুষ জানতে চায় বিরোধীদলীয় নেতা এ বিষয়ে কি বক্তব্য রাখেন। তাই আমরা চাচ্ছি সরকার জনগণকে তার বক্তব্য শোনার সুযোগ করে দেবে।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ড. মোশাররফ বলেন, ‘হরতালসহ ১৮ দলের ঘোষিত কোনো কর্মসূচি এখনও পর্যন্ত পরিবর্তন করা হয়নি। সব কর্মসূচিই বহাল আছে। বিভিন্ন মহল থেকে কর্মসূচি পরিবর্তনের দাবি আসছে। বিষয়টি আমরা বিবেচনা করছি। যেহেতু কর্মসূচি ১৮ দলের তাই আজকে আমরা যে বৈঠক করেছি এই বৈঠকে ওই কর্মসূচি পরিবর্তনের বিষয়ে আলোচনা হয়নি। এ বিষয়ে যেকোনো সিদ্ধান্ত নিতে হলে ১৮ দলের নিতে হবে।’

বিএনপির অন্যতম দাবি সাভারের ধসে পড়া রানা প্লাজার মালিক সোহেল রানা গ্রেফতারের বিষয়টি কিভাবে দেখছেন এমন প্রশ্নের জবাবে খন্দকার মোশাররফ বলেন, ‘আমাদের দাবি রানাকে গ্রেফতারের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল না। আমরা দাবি করেছি যাদের কারণে এই ভয়াবহ দুর্ঘটনা ও হত্যাকাণ্ড হয়েছে তাদের সবাইকে আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে।’

রানাকে দেশের বাইরে পালিয়ে যেতে সরকার সহযোগিতা করেছে বিএনপি নেতাদের এই অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘যেহেতু সোহেল রানা সরকারি দলের লোক, এছাড়া বিভিন্ন পত্রিকায়ও এ ধরণের খবর বেরিয়েছিল। তাই আমরা মনে করেছি সে পালিয়ে যেতে পারে। তবে আমরা শুধু লোক দেখানো গ্রেফতার দেখতে চাই না। সবাইকে গ্রেফতার করে আইনের মাধ্যমে শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। স্থানীয় এমপিও এই ঘটনার দায় থেকে বাদ যান না।’

এ সময় দলের ভাইস চেয়ারম্যান ও মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক সাদেক হোসেন খোকা, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, আবদুল মান্নান, যুগ্ম-মহাসচিব বরকত উল্লাহ বুলু, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, গোলাম আকবর খন্দকার, মহিলা দলের সভাপতি নূরী আরা সাফা, সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা, স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি হাবিবউন নবী খান সোহেল, সাধারণ সম্পাদক মীর সরফত আলী সপু, মৎস্যজীবী দলের সভাপতি রফিকুল ইসলাম মাহতাব, তাঁতী দলের সভাপতি হুমায়ুন ইসলাম খান, ছাত্রদলের সভাপতি আবদুল কাদের ভূইয়া জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রশীদ হাবিব প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply