ডিজিটাল যুগে ডিজিটাল প্রতারনা : লটারী পাওয়ার নামে প্রতারিত হচ্ছে ব্রা‏হ্মণপাড়ার জনসাধারণ

মিজানুর রহমান সরকার, ব্রা‏হ্মণপাড়া :–

ডিজিটাল ছোয়ায় জনজীবনে আমূল পরিবর্তন হলেও কম্পিউটার লটারি বিজয়ের নামে ডিজিটাল প্রতারনার শিকার হচ্ছে কুমিল্লার ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলার জনসাধারণ। মোবাইল নাম্বারে কম্পিউটারের মাধ্যমে লটারি বিজয়ের নামে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারনার শিকার হওয়ার অভিযোগ করেছে উপজেলার অনেকেই। তারা জানায়, উপজেলার ধান্যদৌল গ্রামের ইমাদুলের ভাই আজিজ খান চৌধুরী কুমিল্লা ইপিজেডে চাকুরী করে। গত ২৫ এপ্রিল বৃহস্পতিবার অচেনা একটি গ্রামীন মোবাইল নাম্বার থেকে গ্রামীনফোন অফিসের লোক পরিচয়ে তাকে জানায়, তার মোবাইল নাম্বারে কম্পিউটারের মাধ্যমে লটারিতে ২১ লক্ষ টাকা মূল্যের গাড়ী জয়ী হয়েছে। এই টাকা পেতে হলে ২ লক্ষ টাকা অগ্রীম ট্যাক্স, ভ্যাট হিসেবে জমা দিতে হবে। গাড়ী পাওয়ার পূর্ব পর্যন্ত বিষয়টি অন্য কারো সাথে আলাপ না করার পরামর্শ দিয়ে দ্রুত ২ লক্ষ টাকা মোবাইলের মাধ্যমে পাঠানোর জন্যে বলে। আজিজ সরল বিশ্বাসে সেই নাম্বারে ১ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা ওই দিনেই পাঠিয়ে দেয়। টাকা পাঠানোর পরদিন গ্রামীণ অফিসের লোকজন গাড়ী নিয়ে আজিজের বাড়ী ধান্যদৌল আসার কথা থাকলেও তাদের কোন খোজ খবর না পেয়ে টাকা পাঠানো ২-৩দিন পর সে বিষয়টি তার ভাইদের নিকট খুলে বলে। তখন তার প্রতারনার শিকারের বিষয়টি সকলের নিকট উন্মুচিত হয়। অপর দিকে গোপালনগর গ্রামের মাহমুদুল হাসান জানায় তার পার্শ্ববর্তী বাড়ীর রাকিব হোসেন একই প্রলোভনে ২ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে পাঠিয়েছে। ইমাদুল আরও জানায় তার পাশের বাড়ীর চাচাতো বোন শারমিন একই ভাবে ৫শ টাকা ফ্ল্যাক্সির মাধ্যমে পাঠিয়েছে। ডগ্রাপাড়া গ্রামের শফিকুল ইসলাম একই ভাবে প্রতারনার শিকার হয়ে পাঠিয়েছে ৪ লক্ষ টাকা, চান্দলা পূর্বপাড়া মীর বাড়ীর প্রবাসীর স্ত্রী রুজি আক্তার বিকাশের মাধ্যমে পাঠিয়েছে ৮০ হাজার টাকা । এই নিয়ে সে আদালতে মামলাও করেছে। এভাবে প্রতিনিয়তই চলছে লটারি বিজয়ের নামে ডিজিটাল প্রতারনা। এ ব্যাপারে ব্রা‏হ্মণপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ উত্তম কুমার বড়–য়া বিষয়ের সত্যতা স্বীকার করে এ’প্রতিনিধিকে বলেন, এ বিষয়ে অনেকে অভিযোগ নিয়ে থানায় আসলেও দেখা যায়, প্রতারকগণ প্রতারনার সফলতার পর ওই সিমটি ফেলে দেয়। পরবর্তীতে তাদেরকে আর পাওয়া যায়না। এ বিষয়ে জনগনের সচেতনতা প্রয়োজন, অতিরিক্ত লোভী মানুষগণ প্রতারকদের টার্গেট। মনে রাখতে হবে, গোপনে কখনো এত বড় টাকার লটারী হয়না। সরকারী ভাবে অনুমোদিত লটারির বিজ্ঞাপন রেডিও টিভি কিংবা পত্রিকায় দেখতে পাই। এছাড়া গোপনীয় লটারির নামে প্রতারনার শিকার হলে ওই ব্যক্তি নিজেই দায়ী থাকবেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply