৪২ বছর পর গাড়ি নিয়ে আসলেন এমপি

আরিফুল ইসলাম সুমন:–

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলের অবহেলিত একটি জনপদ পানিশ্বর। মেঘনা নদী তীরবর্তী কৃষি প্রধান এই এলাকাটিতে নানা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠলেও এখানকার মানুষের নানা দুর্ভোগ-দুর্দশার শেষ নেই। দীর্ঘ বছর যাবত এই এলাকার কয়েক হাজার মানুষ নিজ উপজেলা সদরে যাতায়াত করছে পায়ে হেটে ও বর্ষকালে নৌকাযোগে। জরুরি বিশেষ প্রয়োজন কাজ সারতে এখানকার মানুষ নৌপথে যেতে হচ্ছে জেলার আশুগঞ্জ ও কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরবে। সড়ক পথে যোগাযোগ ব্যবস্থা না থাকায় রোগীদের দূর্ভোগ চরমে। শিক্ষার দিক দিয়েও এলাকাটি পেছনে পড়ে আছে। স্বাধীনতার পর থেকে অনেক সরকার ক্ষমতায় এসেছে আবার বিদায় নিয়েছে, কিন্তু কেউই এই অবহেলিত এলাকাটির উন্নয়নের কথা ভাবেনি। নির্বাচনের আগে প্রার্থীরা এখানকার মানুষের দূর্ভোগ লাঘবে নানা প্রতিশ্রুতি দিলেও ক্ষমতা গ্রহণের পর তারা এসব বেমালুম ভুলে যান।
গত ২৬ এপ্রিল পানিশ্বর এলাকায় নাগরিক কমিটির ব্যানারে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা। সমাবেশে যোগ দিতে তিনি ব্যক্তিগত পাজারো গাড়ি নিয়ে পানিশ্বর এলাকায় আসেন। এসময় এলাকার হাজারো মানুষের মাঝে এক আনন্দঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়।
সমাবেশস্থলে উপস্থিত পানিশ্বর এলাকার বাসিন্দা মো. আবদুল হামিদ (৭৫), মো. তোতা মিয়া (৭০) সাংবাদিকদের কাছে অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন-‘মৃত্যুর আগে গ্রামে গাড়ি আসার দৃশ্য দেখলাম। এই দৃশ্য দেখে যেতে পারব তা কখনও ভাবিনি। দেশ স্বাধীন হওয়ার ৪২ বছর পর এমপি জিয়াউল হক মৃধা পানিশ্বরে গাড়ি নিয়ে এলেন।’
জানা গেছে, সরাইল-পানিশ্বর সড়ক নির্মাণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুুতি। মন্ত্রী পরিষদ বৈঠকে তা অনুমোদন হয়েছে দীর্ঘদিন আগে। স্থানীয় সংসদ সদস্য এই অধিক জনগুরুত্বপূর্ণ সড়কটি দ্রুত নির্মাণে যথাযথ কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ-আলোচনা অব্যাহত রেখেছেন। আগামী ২/১ মাসের মধ্যে এ সড়ক নির্মাণ কাজের টেন্ডার হওয়ার কথা রয়েছে।
এদিকে সরাইলের পানিশ্বরসহ এর আশপাশ ও আশুগঞ্জ উপজেলার কয়েকটি এলাকার মানুষের দূর্ভোগ লাঘবে গতবছর এক কোটি ৬৭ লাখ টাকা ব্যয়ে ‘খড়িয়ালা-পানিশ্বর’ সড়ক নির্মাণ হয়। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, এই সড়ক নির্মাণে স্থানীয় সংসদ সদস্যের বিশেষ ভূমিকা রয়েছে। এছাড়া সমাজসেবক ও শিল্পপতি আব্দুল হান্নান রতনের অক্লান্ত পরিশ্রম ও যথাযথ কর্তৃপক্ষের সদিচ্ছার কারণে এই সড়ক নির্মাণ হয়েছে বলে এলাকার জনগণ জানিয়েছেন।
পানিশ্বর এলাকার এনজিও কর্মী মো. বাচ্চু মিয়া জানান, এ সড়ক নির্মাণ হওয়ায় পানিশ্বর দক্ষিণ বাজার এলাকা পর্যন্ত বিভিন্ন ধরণের হালকা যান চলাচল করতে পারছে। এতে এলাকার কয়েকহাজার মানুষের দুঃখ কিছুটা দূর হয়েছে। সরাইল-পানিশ্বর (মাত্র তিন কিলোমিটার) সড়ক নির্মাণ হলে এখানকার জীবনযাত্রার মান আরো উন্নত হবে।
পানিশ্বর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. নুরু মিয়া জানান, ইউনিয়ন পরিষদের সাধারণ বরাদ্দ ও স্থানীয় সংসদ সদস্যের বিশেষ বরাদ্দে এখানে একটি কাঁচা রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। পানিশ্বর এলাকার লোকজন এই রাস্তা দিয়ে সিএনজিঅটোরিকশা যোগে উপজেলা সদরে যাতায়াত করছে। তবে বর্ষাকালে এ রাস্তাটি পানিতে ডুবে থাকে। ইউপি চেয়ারম্যান আরো জানান, সরাইল-পানিশ্বর সড়ক নির্মাণ হলে মেঘনা নদীর তীরবর্তী এই এলাকায় একটি নৌবন্দর গড়ে উঠতে পারে। এলাকাটি উপজেলা সদরের অতিনিকটে।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির কেন্দ্রিয় ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা জানান, নির্বাচনে পানিশ্বর এলাকার লোকদের সহযোগিতা পেয়েছেন। তিনি এই এলাকার লোকদের কাছে ঋণী। সরাইল-পানিশ্বর সড়ক নির্মাণ তার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি। আগামী ২/১ মাসের মধ্যে এ সড়কের টেন্ডার হবে। তিনি আরো জানান, এখানকার লোকদের কথা দিয়েছিলাম গাড়ি নিয়েই পানিশ্বর আসব। খড়িয়ালা-পানিশ্বর সড়ক নির্মাণের পর এখন গাড়ি নিয়ে এসেছি।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply