নাসিরনগরে বোরোর বাম্পার ফলন

আকতার হোসেন ভুইয়া , নাসিরনগর:–

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলায় এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। ফসল ভাল হওয়ায় কৃষকরা বেজায় খুশি। ইতিমধ্যে উপজেলার বাক-লঙ্গণ হাওরসহ বিভিন্ন হাওরে স্বল্প মেয়াদী ব্রি-২৮ এর সাথে স্থানীয় আগাম জাতের ধান কাটা শুরু হয়েছে। তবে পুরোদমে এখনো শুরু হয়নি। ধান কাটা নিয়ে কৃষাণ-কৃষাণিরা এখন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। কিন্তু ধান কাটার শ্রমিক স্বল্পতায় ও মজুরি বৃদ্ধির কারণে কৃষকরা দূভোর্গে পড়েছে। জানা যায়, গত বছর আগাম বন্যায় বোরো ধানের ব্যাপক ক্ষতি পুষিয়ে নিতে চলতি মৌসুমের শুরুর দিকে কৃষকরা চাষাবাদে ব্যস্ত হয়ে ওঠে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায়, সময়মত বৃষ্টি হওয়ায় কৃষকরা আশানূরূপ ফসল ঘরে তুলতে পারছে। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে উপজেলায় ১৮ হাজার ৭০ হেক্টর জমিতে বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হলেও প্রায় ১৬ হাজার ৭শ হেক্টর জমিতে চাষাবাদ করা হয়েছে। কৃষি অফিসের হিসাব মতে , উন্নত জাতের হাইব্রিড ধান ২৫০ হেক্টর জমিতে, উফশী ১৬ হাজার ৩শ ৫০ হেক্টর জমিতে ও স্থানীয় জাতের ধান ১শ হেক্টর জমিতে আবাদ করা হয়।্ এই জমি থেকে প্রতি বিঘায় ব্রি-২৮ ধান ১৭-১৮ মণ যা শুকনা ওজনে প্রায় ১৫ মণ ধান পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।
ধনকুড়া গ্রামের ইসমাইল হোসেন জানায় তার জমির ধান কেটে বিঘা প্রতি ১৬ মণ করে ধানের ফলন হয়েছে। তবে ধান কাটার শ্রমিক স্বল্পতায় ও মজুরি বৃদ্ধির কারণে তাকে দূভোর্গে পড়তে হয়েছে। এদিকে অভিযোগ রয়েছে সুদখোর-মহাজনরা কৃষকের বাড়ি বাড়ি গিয়ে আগাম তাগাদা দিচ্ছে। ফলে সাধারণ কৃষকরা বিপাকে পড়েছে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ডঃ মোঃ আবদুল মাজেদ জানান,কৃষক কৃষি বিভাগের আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি গ্রহন করার পাশাপাশি অনুকুল আবহাওয়া, স্বাভাবিক সেচ ব্যবস্থা, সারের পর্যাপ্ত সরবরাহ ও সুষম ব্যবহারের কারনে এবার বোরো ধানের আশাতীত ফলন হয়েছে।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply