স্বপ্ন পূরণ ও সমাজ সেবা—-জান্নাতুল ফেরদৌসী (নিলু)

মানুষের মন যা- কল্পনা করে এবং বিশ্বাস করে মানুষ তা অর্জন করতেও পারে । এক তরুণ একজন উচ্চ শিক্ষিত মানুষকে প্রশ্ন করে ছিল, স্যার আমার একটা স্বপ্ন আছে, ঐ স্বপ্নটা আমি কি ভাবে পূরণ করব। ঐ শিক্ষিত ব্যক্তি তাকে বলে ছিল স্বপ্নটা কি ?তুমি কি করতে , চাও? ঐ তরুণ ছেলেটি বলেছিল স্যার আমি সবচেয়ে বেশি সুখী মানুষ হতে চাই। শিক্ষিত ব্যক্তিটি বলেছিল তাহলে তোমাকে কিছু উপদেশ মেনে চলতে হবে। সর্ব প্রথম তুমি একজন ভালো ও সৎ মানুষ হহে হবে, দ্বিতীয় ’ত তুমি একজন উচ্চ শিক্ষিত মানুষ হতে হবে, তৃতীয় ’ত তুমি প্রতিষ্ঠিত হতে হবে, ৪র্থ তুমি মানুষকে সম্মান করতে শিখবে, পঞ্চম ’ তুমি অন্যায়কে পশ্রয় দিবে না। এই সামান্যতম কিছু উপদেশ মেনে নিতে পারলে, তুমি হবে একজন সবচেয়ে সুখী মানুষ । তোমার স্বপ্ন পূরণ করতে গেলে আরো। কিছু বিষয় খেয়াল রাখতে হবে, তা হলো তোমার জীবনের লক্ষ ও কর্তব্য তোমাকে নির্ধারন করতে হবে এবং তোমাকে সেই ভাবে কাজ করে যেতে হবে। তরুণ ছেরেটি ঐ শিক্ষিত ব্যক্তির উপদেশ মেনে নিয়ে তার জীবনের লক্ষ্যে পৌছার জন্য যা- করার প্রয়োজন ঠিক তাই করেছিল। কোন কাজ সু- সম্পর্ণ করতে হলে শুরু করেতে হয় একটি জলন্ত আকাঙ্খা দিয়ে। অল্প আগুন যেমন অনেক উত্তাপ দিতে পারে না, তেমনি দুর্বল ইচ্ছা শক্তি কোন মহৎ সিদ্ধি লাভ করতে পারেনা। কোন কাজ নিষ্পত্তি করার দৃঢ় অঙ্গীকার নির্মাণ করতে হয় দুটি স্তম্ভের উপর। সে দুটি হলো সততা, এবং বিজ্ঞতা, সেই থেকে তরুণ ছেিেচ তার চলার পথে যে কোন ভুল, মিথ্যা বাজে বা মন্দ কাজ থেকে নিজেকে দুরে রেখেছিল। উচ্চ শিক্ষার জন্য ছেলেটি যা যা করার প্রয়োজন ছিল সকল বাঁধা ডিঙিয়ে অনেক কষ্ট কের প্ররিশ্রম করে পড়া লেকা করতে হয়েছে তার সবটুকু ছেলেটি মেনে নিয়েছে। হঠাৎ একদিন পথের মাঝে তরুণ ছেলেটির সাথে ঐ শিক্ষিত ব্যক্তির দেখা হয়ে গেল। ছেলেটি বলল স্যার আমি আপনার সব উপদেশ পালন করেছি, আমি একজন উচ্চ শিক্ষিত মানুষ হতে পেরেছি এবং সর্বশেষে আমি সবহকারী চাকুরীও পেয়েছি। ছেলেটি আরো বলল, স্যার আমার জীবন থেকে অন্যায় কে বিদায় দিয়ে ন্যায় কে আগলে ধরে রেখেছি। ঐ শিক্ষিত ব্যক্তির উপদেশে শুনে ছেলেটি মানুষকে সম্মান দেখাতে শুরু করল। ছেলেটি ঐ ব্যক্তিকে কাছে পেয়ে বলল স্যার সত্যি কথাকি মানুষ পারে না এমন কোন কিছু নেই। হয়তো একটু শ্রমের প্রয়োজন । কিংবা ধর্য্যের প্রয়োজন আর যে গুন গুলো থাকার প্রয়োজন ঐ কিছু বিষয় মানুষের মাঝে থাকলে সেই লোক হতে পারে একজন সুখী মানুষ। এবং সমাজের একজন সচেতন মানুষ । ছেলেটি বলল এখন বর্তমানে সে খুব ভাল আছে ,সুখে আছে। ছেলেটি আরো বলল তার সব স্বাপ্ন পূরণ হয়েছে। ছেলেটি বলল যে কোন মানুষ চাইলে নিজেকে বদলাতে পারেন, এবং আপনার স্বপ্ন আপনি পূরণ করতে পারেন।

এবার আসা যাক সমাজ সেবা নিয়ে কিছু বিষয় আলোচনা করা যাকঃ

সমাজ সেবা করতে হলে প্রথমে নিজে দূর্ণীতি মুক্ত থকেতে হবে। দূর্ণীনিতবাজ মানুষ থাকলে সোনার বাংলা গড়ে তোলা সম্ভব নয় । আর আমরা সমাজ সেবা বলতে যে টুকু বুঝতে পারি তা হলো সমাজ সেবা মানুষের জীবনে একটি মহৎ গুণ। বৃহত্তর জন গোষ্ঠীর উপকার করার নাম জনসেব পরস্পরের সহমর্মিতা থেকে সমাজ সেবার প্রবৃত্তি উন্নেষ ঘটেছে। মানুষ একা বাস করতে পারে না, তার সুখ টুকু সবটাই নিজের প্রচেষ্টার ফল নয়, বহু মানুষের সহযোগিতা মূলক কর্ম কান্ডের ফল শ্র“তিতে সমাজ সেবা করা সম্ভব। সমাজে অধশ, অসমর্থ মানুষের অভাব নেই। এবং দুঃখী দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বেশি। দুঃখের যন্ত্রনা বহুমখী হেয় মানুষকে প্রতিনিয়ত পীড়ন কর। সমাজ সেবা করতে হলে আমরা সমাজের প্রতিটি মানুষ সচেতন হতে হবে, একে অপরকে সুখে দুঃখে তার পাশে গিয়ে দাঁড়াতে হবে। গরীব দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে হবে, সমাজের যে কোন লোকের সুবিধা, অসুবিধা দিকগুলোর চিন্তা করে দেশর কাজ করতে হবে। এই সমাজের কেউ যদি কোন ভালো কাজ করতে চায় তাকে সহযোগিতা বা সাহায্য করা সুযোগ দেওয়া আপনার আমার কর্তব্য। আমাতেদর দেশের মানুষ কোথায় কেমন আছে, কিভাবে আছে তাদের প্রতি খোঁজ খবর নেওয়া, তাদের ভাল-মন্দ দেখাশুনা করা আমাদের প্রতিটা মানুষের কর্তব্য। আমরা অনেকে ভবি এই দেশটা এই সমাজটা শুধু রাজনীতিবীদের জণ্য প্রধান মন্ত্রীর জন্য এইটা আমাদের ভুল ধারনা, এই ধারনা থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে।এই দেশটা আমাদের সকলের এই সমাজটা আমাদের সকলের তাই আমরা প্রতিটা মানুষ সচেতন হতে হবে। এবং আমরা একে অপরকে সব সময় প্রতিটা কাজে সহযোগীতা করা, ভাল ও মন্দ দিক গুলোকে বিবেচনা করা, আমাদের মন্দ চিন্তা থাকলে আমরা এই সমাজের জন্য অনেক কিছু করতে পারি। আমাদের ইচ্ছা ও আগ্রহ থাকতে হবে। সমাজে অনেক লোক রয়েছে যারা একে অপরের জন্য অযথা, কারনে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে এই দিকে খেয়াল রাখতে হবে। কোন মানুষ যেন তার অধিকার থেকে বঞ্চিত না হয়, কিংবা সে যেন তার নিজের স্বাধীনমতে চলাফেরা করতে পারে। অন্যের কারণে যেন কোনভাবে মানুষিক চাপের মুখে পড়তে না হয়। আমরা প্রতিটা মানুষ যদি সচেতন হই, একে অপরকে সকল কাজে সাহায্য করতে পারি। দেশের ভঅল কাজ গুলো তুলে ধরতে পারি, তাহলে সমাজ সেবার পাশাপশি দেশের সেবা হবে। নতুবা একা এম,পি, মন্ত্রি, প্রধান মন্ত্রির পক্ষ্যে সমাজ সেবা করা বা- দেশ সেবা করা কোন ভাবে সম্ভব হবে না। এই সমাজ এই দেশ আমাদের সকলের, আমাদের সকলের দায়িত্ব এই সমাজ কে এই দেশকে এই জাতিকে বাচিঁয়ে রাখা। আমরা যদি প্রতিটা মানুষ মহৎ উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করি তাহলে এই সমাজকে এই দেশকে খুব সুন্দর একটি সমৃদ্ধ বাংলদেশ হিসেবে গড়ে তোলা খুব একটা কঠিন কাজ হবে বলে আমি মনে করিনা। সকলের সহযোগীতায় সম্ভব এই সমাজের সেবা কর। আমরা প্রতিটি মানুষ অঙ্গিকারবদ্ধ থাকবো দুরর্নীতি কারবনা কাউকে দূরর্নীতি করতে দেব না, আমরা বাঙালী, আমরা অন্যায়ের কাছে মাথা নত করবো না, অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবো। সমাজকে ভালবাসবো, নিয়ের দেশকে ভালোবাসবো। দেশের সেবায় নিজকে নিয়োজিত রাখবো। তাহলে হবে সমাজ সেবা এবং দেশ সেবার মূল চাবি।

জান্নাতুল ফেরদৌসী (নিলু)
উপজেলাঃ বুড়িচং, কুমিল্লা
মোবাইল নং- ০১৭৬১৫০৪৯৪৯.

Check Also

মাদকসন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সরকারকেই জোরালো ভূমিকা নিতে হবে

—-মো. আলীআশরাফ খান লেখার শিরোনাম দেখে হয়তো অনেকেই ভাবতে পারেন, কেনো লেখাটির এমন শিরোনাম দেয়া ...

Leave a Reply