ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে কথিত পীর লালশাহ’র বিরদ্ধে সংবাদ সম্মেলন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:–
ব্রাহ্মণবাড়িার সরাইলের বারিউড়া গ্রামের কথিত পীর লালশাহ’র বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছে গ্রামের ভন্ডপীর প্রতিরোধ কমিটি নামের একটি সংগঠন। শনিবার সকালে স্থানীয় প্রেসক্লাবে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের সভাপতি আব্দুল হক। সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয় কথিত পীর লালশাহ’র (৫০) নানামুখী অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ ও দিশেহারা। সরাইল থানার ওসির সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে তিনি সাধারণ মানুষকে হয়রানি করেই চলেছেন।
সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করা হয়, নানাভাবে বিপদগ্রস্থ লোকদের মুক্তির নামে কথিত পীর লালশাহ’ লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। অর্ধকোটি টাকা ব্যয়ে মৃত্যুর আগেই তৈরি করেছেন দরবার শরীফ নামের নিজের অগ্রিম মাজার। সুরম্য দরবার শরীফের ফলকে লেখা রয়েছে ‘পীরে মোকাম্মেল, কুতুবে বরহক গাউছুল আজম, দেওয়ানে মাহবুব, আলহাজ্ব হযরত মাওলানা, খান মো. লালশাহ ওরফে মোহাম্মদ লালখা বাবার বাগান বাড়ী।’ সপ্তাহে তিনদিন ওয়াজ মাহফিলে বিকট শব্দে গান বাজনা চালিয়ে শব্দ দূষণ ও নানা অনৈসলামিক কর্মকান্ড চালিয়ে আসছেন ওই লাল শাহ। এসব অপকর্মের প্রতিকার চেয়ে কথা বললেই তার ভাই আব্দুল হামিদকে বাদী করে মামলা দিয়ে গ্রামের লোকজনকে হয়রানি করছে। সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়েছে লাল শাহর আস্তানায় গিয়ে প্রতারিত হওয়া লোকজন মামলা নিয়ে সরাইল থানায় গেলে ওসি উত্তম কুমার চক্রবর্তী মামলা নিচ্ছেন না। অথচ লাল শাহ ওসিকে মোটা অঙ্কের টাকা দিয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রামের নিরীহ নিরপরাধ লোকদেরকে হয়রানি করছেন।
সরাইল থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) উত্তম কুমার চক্রবর্তী জানান, ‘ওই পীরের কাছ থেকে অর্থ গ্রহণের বিষয়টি সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমার কাছে কেউ তার বিরুদ্ধে মামলা নিয়ে আসেনি। আদালতে যে ক’টি মামলা হয়েছে সবক’টির তদন্ত চলছে। তদন্তের পর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply