চান্দিনার বৈশাখী মেলাগুলো জুয়ার আখড়া: ২৪ জুয়াড়ি আটক; আটকদের তথ্য দিতে পুলিশের টালবাহানা

মাসুমুর রহমান মাসুদ, চান্দিনা:–
চান্দিনার বৈশাখী মেলাগুলো জুয়ার আখড়ায় পরিণত হয়েছে। ১ বৈশাখ থেকে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অনুষ্ঠিত বৈশাখী মেলাগুলোতে জুয়ার রমরমা আসর বসেছে। চান্দিনা থানা পুলিশ ২ বৈশাখ দুপুর পর্যন্ত উপজেলার পিহর, মাধাইয়াসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে ২৪ জন জুয়াড়িকে আটক করেছে। তবে, আটকদের তথ্য দিতে টালবাহানা করছে পুলিশ। এ ব্যাপারে একাধিকবার চান্দিনা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. গোলাম মোর্শেদ ও এ.এস.আই রহিম এর সাথে যোগাযোগ করলেও নানা অজুহাতে আটককৃতদের তথ্য দিচ্ছেননা তারা। ১ বৈশাখ রাতে চান্দিনা থানার ডিউটি অফিসার এ.এস.আই শামীমার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, থানা হাজতে ১৩ জন আটক রয়েছে। তবে তাদের নাম ঠিকানা আমার কাছে নেই।
২ বৈশাখ দুপুরে চান্দিনা থানার ডিউটি অফিসার এস.আই সুলতান এর সাথে যোগাযোগ করলে ওইদিন আটকৃত ৮ জনের পরিচয় জানিয়েছে তিনি। আটককৃতরা হলেন-চান্দিনা উপজেলার নাওতলা গ্রামের কুদ্দুস মিয়ার ছেলে আলমগীর, একই গ্রামের আবদুল খালেক এর ছেলে বিল্লাল ও জহির, আবদুর রশিদ এর ছেলে মান্নান, দেবিদ্বার উপজেলার রাধানগর গ্রামের সুয়া মিয়ার ছেলে গিয়াস, চট্টগ্রামের পাহাড়তলীর আবদুল খালেকের ছেলে রানা, বুড়িচং এর ছিকুটিয়া গ্রামের ইমাম হোসেন এর ছেলে ইকবাল, চান্দিনা উপজেলার গল্লাই গ্রামের খলিলুর রহমান এর ছেলে আলাউদ্দিন। ১ বৈশাখ পিহর থেকে বরুড়া উপজেলার কেমতলী গ্রামের শফিকুল ইসলাম এর ছেলে মনিরুল ইসলামসহ ১৬ জনকে আটক করে পুলিশ।
এদিকে আটককৃত আলাউদ্দিন সম্পর্কে তার শ্বশুর আবুল বাশার জানান, আলাউদ্দিন একটি ঔষধ কোম্পানীর এস.আর পদে চাকরি করে। কোম্পানীর কাজে মাধাইয়ায় পৌঁছলে পুলিশ তাকে আটক করে। সে কোম্পানীর কাগজপত্র দেখালেও কোন লাভ হয় নি।
অপরদিকে আটককৃত মনিরুল ইসলাম এর বাবা শফিকুল ইসলাম জানান, তার ছেলে মনিরুল ইসলাম একজন সি.এন.জি চালক। মেলায় ঘুরতে আসলে পুলিশ বিনাকারণে তাকে আটক করে।
এ ব্যাপারে চান্দিনা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. গোলাম মোর্শেদ জানান, এ বিষয়ে এ.এস.আই রহিম এর সাথে যোগাযোগ করুন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply