জামায়াত-শিবিরের নামে যুবদল ও খেলাফত মজলিস নেতাদের গ্রেফতারের অভিযোগ

মাসুমুর রহমান মাসুদ, চান্দিনা:–
প্রকৃত জামায়াত-শিবির নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার না করে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদল ও খেলাফত মজলিস নেতা-কর্মীদের গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন চান্দিনা থানা পুলিশ। জামায়াত-শিবিরের সাথে আতাঁত করে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে ওই কাজ করেন চান্দিনা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. গোলাম মোর্সেদ। পরিচয় সঠিকভাবে জেনেও যুবদল ও খেলাফত মজলিসের নেতা-কর্মীদের শিবির কর্মী হিসেবে ভূয়া পরিচয় লিপিবদ্ধ করে মামলায় জর্জরিত করেন তিনি। সাংবাদিকদের কাছে এমন অভিযোগ করেছেন যুবদল ও খেলাফত মজলিসের নেতৃবৃন্দ।
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদল এর মাইজখার ইউনিয়ন শাখার সভাপতি মো. আলী আশরাফ অভিযোগ করে বলেন, গত ২ এপ্রিল (মঙ্গলবার) রাতে মাইজখার ইউনিয়ন যুবদল এর সহ-যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক মো. শাহীন আলম এবং যুবদল এর মাইজখার ইউনিয়ন শাখার সদস্য মো. ইব্রাহীম কে গ্রেফতার করে পুলিশ। চান্দিনা পৌর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক ও চান্দিনা পৌর মেয়র শাহ্ মো. আলমগীর খান চান্দিনা থানার ওসি মো. গোলাম মোর্সেদকে তাদের সঠিক পরিচয় সম্পর্কে অবহিত করলেও কোন লাভ হয়নি। ওসি ষড়যন্ত্রমূলকভাবে তাদের শিবির কর্মী হিসেবে জেল হাজতে পাঠিয়ে দেন।
ঢাকা মহানগর খেলাফত মজলিস এর আহবায়ক মাওলানা নোমান মাযহারী অভিযোগ করেন, গত ১ এপ্রিল (সোমবার) রাতে চান্দিনা পৌর খেলাফত মজলিস এর সভাপতি মো. মোস্তফা কামাল কে আটক করে থানা পুলিশ। সে উপজেলার বাড়েরা গ্রামের মাওলানা আবদুর রহিম ফারুকীর বড় ছেলে। তার পরিচয় সঠিকভাবে জানার পরও পুলিশ তাকে শিবির কর্মী হিসেবে একটি মামলায় ষড়যন্ত্রমূলকভাবে জড়িয়ে জেলে পাঠিয়ে দেয়।
এ ব্যাপারে চান্দিনা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. গোলাম মোর্সেদ জানান, তারা জামায়াত-শিবিরের কর্মী। জামায়াত-শিবিরের তালিকায় তাদের নাম রয়েছে।
এ বিষয়ে একাধিক বিএনপি নেতার সাথে যোগাযোগ করলে তারা অভিযোগ করেন, ওসি যুবদল নেতাদের শিবির কর্মী হিসেবে জেলহাজতে পাঠিয়েছেন। যা সম্পূর্ণ নীতিবিরোধী এবং ক্ষমতার অপব্যবহারের পর্যায়ে পরে।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply