বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব আজ

কুমিল্লা:–
‘এসো, এসো, এসো হে বৈশাখ……মুছে যাক গ্লানি, মুছে যাক জরা, অগ্নিস্নানে শুচি হোক ধরা।’ সেই সূচি-শুদ্ধ ধরায় এলো আরো একটি নতুন বছর। নতুন সূর্য্যের আলোয় শুরু হলো বছরের প্রথম দিন, পহেলা বৈশাখ। বাংলা নতুন বছর-১৪২০’ বঙ্গাব্দ। শুভ বাংলা নববর্ষ। আজ পহেলা বৈশাখ। অসাম্প্রদায়িক ও সার্বজনীন বাংলা নববর্ষ বাঙালির প্রাণের উৎসব। মঙ্গল শোভাযাত্রাসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বিশ্বের সব বাঙালি নতুন বছরকে বরণের উৎসবে মেতে উঠবে।

স্থান, কাল, পাত্রভেদে এই উৎসবের ধরণ ভিন্ন ভিন্ন হয়। একেক অঞ্চলে একেক রকম আয়োজনে উদযাপিত হয় বৈশাখী মেলা, হালখাতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নৃত্যানুষ্ঠান ও বর্ষবরণ অনুষ্ঠান।

সবার হৃদয়ে আজ রবীন্দ্র-নজরুলের সুর জেগে উঠবে- ‘এসো হে বৈশাখ, এসো এসো’ কিংবা ‘ঐ নতুনের কেতন ওড়ে কালবোশেখী ঝড়, তোরা সব জয়ধ্বনি কর।’

নতুন এ দিনটি পুরনো সব ব্যর্থতা গ্লানি বঞ্চনা দুঃখকষ্ট ও আবর্জনার জঞ্জাল সরিয়ে নতুন আশা, কর্মোদ্দীপনা, স্বপ্ন, প্রত্যয় ও প্রাণশক্তিতে উজ্জীবিত হওয়ার ডাক দিচ্ছে। নতুনের কেতন ওড়ানো বৈশাখ এসেছে নতুন সম্ভাবনা, প্রত্যাশা ও সমৃদ্ধি অর্জনের লড়াইয়ের প্রতিশ্রুতি এবং প্রেরণা নিয়ে। বর্তমান পরিস্থিতিতে নতুন বছরের কাছে মানুষের প্রত্যাশা-শোনা ও নতুন গান। ১৪২০ হোক শান্তির বছর, দুর্নীতির বিরুদ্ধে মানুষের জেগে ওঠা ও দুর্নীতিকে প্রতিরোধের বছর, মানবাধিকার, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা রক্ষা ও যুদ্ধাপরাধীদেও বিচারের বছর।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply