ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে বাঁশবাগানে পাঠদান : শিক্ষার্থীদের দূর্ভোগ

আরিফুল ইসলাম সুমন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:–
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে করাতকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পাঠদান চলছে বাঁশবাগানে বসে। এতে লেখাপড়ায় ব্যাঘাতসহ শিক্ষার্থীদের দূর্ভোগ এখন চরমে।
বৃহস্পতিবার সরেজমিন গেলে, প্রধান শিক্ষক মো. মনসুর আলী বলেন, এ বিদ্যালয়ের ঝুঁকিপূর্ণ ভবন মেরামতে সরকারি বরাদ্দ এসেছে। ঠিকাদার বিদ্যালয় ভবনের ছাদ ভাঙার পর গত ৬ ফেব্রুয়ারি থেকে কাজ বন্ধ রেখেছেন। ফলে শিক্ষার্থীদের ক্লাশ নিতে হচ্ছে পাশের বাঁশবাগানে খোলা আকাশের নীচে বসিয়ে। তিনি বলেন, গত দুইমাস ১০দিন যাবত এ অবস্থা চলছে। বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ শিক্ষকদের দূর্ভোগের শেষ নেই। ইতিমধ্যে ৫/৭ বার দফতরে গিয়ে উপজেলা প্রকৌশলীকে এই দূর্ভোগের কথা জানানো হয়েছে।
সহকারি শিক্ষক আকবর আলী বলেন, এ বিদ্যালয়ে বিভিন্ন শ্রেণীতে ৩০৪ জন শিক্ষার্থী রয়েছে। শিক্ষক আছেন মোট চারজন। ভবনের ছাদ ভাঙার পর ঠিকাদার এখানে আর আসছেন না। শিক্ষার্থীদের ক্লাশ নিতে হচ্ছে যত্রতত্র বসে।
এ বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র বায়েজিদ বলে- রোদে পুড়ে, বৃষ্টিতে ভিজে বাঁশবাগানের ধূলা-বালুতে বসে ক্লাশ করছি। এতে আমাদের (শিক্ষার্থী) খুব কষ্ট হচ্ছে। একই শ্রেণীর সালমা আক্তার বলে, দুইমাস ধরে বাঁশবাগানের খোলা আকাশের নীচে ও নোংরা পরিবেশে বসে ক্লাশ করতে হচ্ছে। এই কষ্ট আর সইতে পারছি না।
এ মেরামত কাজে তদারকির দায়িত্বে থাকা এক সহকারী প্রকৌশলী বলেন, আট লাখ ৪০ হাজার টাকা ব্যয়ে এই বিদ্যালয় ভবনের মেরামত কাজ চলছে। ভবনটির ছাদ ভাঙার পর দেখা গেছে কলামে (আর.সি.সি পিলার) রড নেই। এ অবস্থায় ছাদ ঢালাই দেওয়া হলে যেকোন সময় ভেঙে পড়তে পারে। কলামগুলোতে রড লাগানোর জন্য সংশোধিত প্রাক্যলিত মূল্য দুই লাখ ৩৮ হাজার টাকা ধরে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে একটি প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন পাওয়া গেলে দুইমাসের মধ্যে বিদ্যালয় ভবনের কাজ শেষ হবে।
সরাইল উপজেলা প্রকৌশলী মাহবুব আলম বলেন, সমস্যা সৃষ্টি হওয়ায় এ বিদ্যালয় ভবনের মেরামত কাজ আপাদত বন্ধ রয়েছে। আমরা দ্রুত কাজটি সম্পন্ন করার চেষ্টা করছি। আশা করি আগামি একমাসের মধ্যে এ সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply