দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা, মোশাররফকে আদালতে তলব

ঢাকা :–
পাকিস্তানের সাবেক সেনাশাসক জেনারেল পারভেজ মোশাররফকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সুপ্রিমকোর্টে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির সর্বোচ্চ আদালত। একইসঙ্গে তার দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

২০০৭ সালে রাজনৈতিক প্রতারণা, বিচারকদের গ্রেফতার ও জরুরি অবস্থা জারি করার বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সামনের মাসের জাতীয় নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অনুমতি পাওয়ার একদিন পর মোশাররফকে তলব করলেন আদালত। একইসঙ্গে তাকে পাকিস্তান ছেড়ে না যাওয়ার আদেশ দিয়েছেন সুপ্রিমকোর্ট।

স্বেচ্ছানির্বাসন থেকে দেশে ফেরার দুই সপ্তাহের মাথায় আদালতের বিধিনিষেধের মুখে পড়লেন সেনাপ্রধান থেকে ক্ষমতা দখল করে দীর্ঘদিন প্রেসিডেন্ট থাকা মোশাররফ।

বিবিসির খবরে বলা হয়, ১৯৯৯ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত ক্ষমতা দখল করে থাকা মোশাররফ পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার পর গত মাসে দেশে ফিরে আসেন নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য।

নিজের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা বিচারাধীন থাকলেও আসা মাত্রই গ্রেফতার না করার জন্য আগাম জামিন নিয়ে দেশে আসেন তিনি।

দেশে ফেরার পর থেকেই তার চলার পথ বিপদ-সঙ্কুল হয়ে উঠছে। এরই মধ্যে তার মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। তবে শেষ পর্যন্ত আদালতের আদেশে একটি আসনে তিনি নির্বাচন করার সুযোগ পাচ্ছেন।

সর্বশেষ একজন আইনজীবীর পিটিশনের পক্ষে তাকে আদালতে হাজির ও দেশত্যাগের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছেন সর্বোচ্চ আদালত।

পিটিশনকারী আইনজীবী অভিযোগ করেছেন, মোশাররফ সংবিধান স্থগিত করার মাধ্যমে প্রতারণা করেছেন। একইসঙ্গে ২০০৭ সালের নভেম্বরে তিনি উচ্চ আদালতের সব বিচারককে বরখাস্ত করে সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন।

আদালত মোশাররফকে মঙ্গলবার হাজির হওয়ার জন্য আদেশ দিয়েছেন। সেখানে ঠিক হবে তার বিরুদ্ধে বিচার চলবে কিনা।

এছাড়াও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোকে নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হওয়াসহ একাধিক মামলা বিচারাধীন রয়েছে মোশাররফের বিরুদ্ধে।

তবে এসব অভিযোগকে ভিত্তিহীন দাবি করে আসছেন তুখোড় বক্তা মোশাররফ।

Check Also

রিয়াদে জ্যাবের ‘অমর একুশে’ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

ষ্টাফ রির্পোটার :– “অমর একুশের চেতনায় গন মানুষের মনে জেগে উঠুক উজ্জলতা উৎকৃষ্টতা” শীর্ষক আলোচনা ...

Leave a Reply