নাসিরনগরে বিয়ে বাড়িতে স্বামীর দাবিতে স্ত্রীর আগমন : ক্ষতিপূরণ দিয়ে ফিরে গেলেন বর

আকতার হোসেন ভুইয়া নাসিরনগর :–
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলা সদরের কুলিনকুন্ডা গ্রামে বিয়ে বাড়িতে বরের স্ত্রী দাবি করে নাজমা আক্তারের আগমন ঘটায় এলাকায় কৌতুহলের সৃষ্টি হয়েছে । এলাকাবাসী জানায়, উপজেলা সদরের কুলিনকুন্ডা গ্রামের দরিদ্র পরিবারের পিতৃহীন জিল্লুর মিয়ার কন্যা কুলসুম বেগমের সাথে রবিবার লাখাই উপজেলার মুড়াকুড়ি গ্রামের মস্তু মিয়ার পুত্র আবদুল হামিদের বিবাহের দিন ঠিক করা হয়। ওই দিন দুপুরে বরযাত্রী নিয়ে বর পক্ষ বিয়ের উদ্দেশ্যে কুলিনকুন্ডা গ্রামে কনের বাড়ি আসে। বরযাত্রীদের দুপুরের খাওয়া শেষে বিয়ের পড়ানোর প্রস্তুতি যখন নিচ্ছিলে মাওলানা মোঃ মহিউদ্দিন ঠিক তখনই দেখা দেয় বিপত্তি। লাখাই উপজেলার মোড়াকরি গ্রামের জাহিদ মিয়ার কন্যা নাজমা আক্তার ও তার মাকে নিয়ে হাজির হন বিয়ে বাড়িতে। বিয়ের বর আবদুল হামিদ তার স্বামী। বিয়ে বাড়িতে লেগে যায় হৈ চৈ। গাঢাকা দেয় বরযাত্রীরা। এসময় আটক করা হয় বরসহ কয়েকজনকে। খবর পেয়ে গ্রামের সর্দার-মাতুব্বররা ছুটে আসেন। এনিয়ে চলে রাতভর নিষ্পত্তি সভা। সভায় নাজমা আক্তার তার সাথে আবদুল হামিদের বিয়ের কাগজপত্র দেখান। গত বছরের ২২ নভেম্বর মোহাম্মদী শরা শরীয়তের বিধান মতে বিবাহ হয়। ভেঙে যায় কুলসুমের সাথে বিয়ের আসর। পরে উভয়পক্ষের সম্মমিক্রমে সালিশের মাধ্যমে বিয়ের ক্ষতিপূরন হিসাবে বর পক্ষ কনে পক্ষকে নগদ ২০ হাজার টাকা আধা ভরি স্বর্ণসহ মুচলেকা দিয়ে মুক্তি নেয়। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যকর সৃষ্টি হয়েছে। সাবেক ইউপি সদস্য বাচ্চু ভুইয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানায় উভয়পক্ষের সম্মমিক্রমে একটি রায় হয়েছে। রায়ের প্রতি সম্মান দেখিয়ে তারা ভূল স্বীকার করে বর নিয়ে সোমবার সকালে তারা চলে যায়।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply