কুমিল্লার দাউদকান্দিতে পরকীয়ায় বাঁধা দেওয়ায় স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে ঘাতক স্বামী

শামীমা সুলতানা, দাউদকান্দি (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ—
আজ ২৭ মার্চ দাউদকান্দি উপজেলার সুন্দলপুরে স্বামীর পরকীয়ায় বাঁধা দেওয়ায় মোসা: মাকসুদা বেগমকে হত্যা করে স্বামী মো: লিটন মিয়া।
উপজেলার সুন্দলপুর মডেল ইউনিয়নের ছোট মোহাম্মদপুর গ্রামে স্বামীর পরকীয়ায় বাঁধা দেয়ায় আজ বুধবার আনুমানিক সকাল ৯টায় দুই সন্তানের জননী মোসা: মাকসুদা বেগম (২৪) কে তার স্বামী মো: লিটন মিয়া (২৮) ভীষণ মারধর করার পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।
স্থানীরা ও দাউদকান্দি পুলিশ জানায়, নবগঠিত তিতাস উপজেলার দড়িকান্দি গ্রামের মৃত করম আলীর একমাত্র মেয়ে মাকসুদা বেগমকে ১১ বছর পূর্বে ইসলামী শরিয়া মোতাবেক দাউদকান্দি উপজেলা সুন্দুলপুর মডেল ইউনিয়নের ছোট মোহাম্মদপুর গ্রামে মো: নুরু মিয়ার পুত্র মো: লিটন মিয়ার সাথে বিবাহ হয়। বিবাহের পর সাঈদুল ইসলাম (৭) ও মেহরীন (৪) নামে দুইটি সন্তান লাভ করে এই দম্পতি।
কাজের সুবাদে স্বামী লিটন মিয়া রাজমিস্ত্রীর কাজ করার জন্য বিভিন্ন জায়গায় অবস্থান কালে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে। শুধু তাই নয়, লিটন মিয়া প্রায় সময় বাড়িতে না এসে অন্য স্থানে রাত্রিযাপন করতে থাকে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়াঝাটি হয়।
লিটনের বড় ছেলে সাঈদুল ইসলাম জানান, ‘আজ সকাল ৯টায় তার বাবা লিটন মিয়া বসত ঘরের পেছনে মোবাইল ফোনে অন্য মহিলার সাথে কথা বলার সময় মা মাকসুদা বেগম বাবাকে বাঁধা দেয়। এজন্য বাবা মাকে মারধর করে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে’।
এ ব্যাপারে মাকসুদার বড় ভাই মনির মিয়া দাউদকান্দি মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ মর্গে প্রেরণ করেছে দাউদকান্দি থানা পুলিশ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...