আদালতের নির্দেশ যথাযথভাবে পালন করেননি ওসি: চান্দিনায় সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ

Chandina Picture 22-03-13মাসুমুর রহমান মাসুদ, স্টাফ রিপোর্টার চান্দিনাঃ—
কুমিল্লার চান্দিনায় উপজেলা সদরের (রারিরচর) গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিষয়ে বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশ যথাযথভাবে পালন করেননি চান্দিনা থানার ওসি। সংবাদ সম্মেলনে ওই অভিযোগ করেন চান্দিনা (রারিরচর) গ্রামের মৃত মোকশত আলীর ছেলে মোঃ কামাল হোসেন। অভিযোগে জানাযায়, চান্দিনা থানার ওসি’কে ১৮ শতাংশ ভূমি’র রিসিভার নিয়োগ করা হলেও ওসি স্থিতাবস্থা জারির কোন কার্যকরী ভূমিকা পালন করেননি। শুধুমাত্র নোটিশ দিয়েই দায়িত্ব শেষ করেছেন। এতে বিবাদী পক্ষ নালিশী সম্পত্তি অবৈধভাবে দখল করে আছেন।
চান্দিনা হাই স্কুল মার্কেটস্থ সাপ্তাহিক নয়ারবি কার্যালয়ে শুক্রবার (২২ মার্চ) সকালে ওই সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, আমার মা আনোয়ারা বেগম গত ১৩ আগস্ট ২০১২ইং তারিখ কুমিল্লার বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৮ শতাংশ জমি সংক্রান্ত বিষয়ে তার সৎ ছেলে মো. আলী মিয়া ও মো. আ. জলিল কে বিবাদী করে একটি মামলা দায়ের করেন। আদালতে পুলিশ প্রতিবেদন দাখিলের পর শান্তি ভঙ্গের আশঙ্কায় বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইকবাল হোসেন এর আদালত গত ২০ সেপ্টেম্বর ২০১২ইং তারিখে বিবাদীদের বিরুদ্ধে ফৌজধারী কার্য বিধির ১৪৫ ধারায় প্রসিডিং স্থাপন এবং চান্দিনা থানার ওসি’কে রিসিভার নিয়োগ করেন।
রিসিভার নিয়োগের পর বিবাদী মো. আলী মিয়া পুলিশ প্রতিবেদন গোপন করে বিজ্ঞ জেলা দায়রা জজের নিকট আবেদন করলে, আদালত গত ৫ নভেম্বর ২০১২ইং তারিখে নিষেধাজ্ঞা স্থগিত করেন। পরে আলী মিয়া পুনরায় উক্ত স্থানে নির্মাণ কাজ ও বসবাস করতে থাকে।
তিনি আরও বলেন, পরে আমার মা আনোয়ারা বেগম জেলা দায়রা জজের আদেশের বিরুদ্ধে মহামান্য হাইকোর্টে ৫৩৯/১৩নং সিভিল ডিভিশন মোকদ্দমা দায়ের করেন। যার ফলে গত ৮ জানুয়ারী ২০১৩ইং তারিখে জেলা দায়রা জজের গত ৫ নভেম্বর ২০১২ইং তারিখের সকল আদেশ ৩ মাসের জন্য স্থগিত করেন। মহামান্য হাইকোর্ট গত ২৭ জানুয়ারী ২০১৩ইং তারিখে উক্ত আদেশটি কুমিল্লা জেলা দায়রা জজকে অবগত করেন। কুমিল্লা জেলা দায়রা জজ গত ১১ ফেব্র“য়ারী ২০১৩ইং তারিখে ওসি চান্দিনা থানাকে পত্রের মাধ্যমে অবগত করেন। যা চান্দিনা থানা গত ২০ ফেব্র“য়ারী ২০১৩ইং তারিখে গ্রহণ করেন। কিন্তু ওসি অদ্যাবধি ওই নির্দেশের আলোকে স্থিতাবস্থা নিশ্চিত করতে কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি। ওসি চান্দিনা থানার এসআই বিপুল কে দিয়ে একটি নোটিশ বিবাদীদের নিকট পাঠিয়ে দায়িত্ব শেষ করেন। এতে বিবাদী পক্ষ নোটিশের তোয়াক্কা না করে অদ্যাবধি অবৈধভাবে উক্ত সম্পত্তিতে বসবাস করে আসছে।
তিনি আরও অভিযোগ করেন, আমি গত ১৯ মার্চ চান্দিনা থানার ওসি’র সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, “আমার কোন কিছু করার নাই। আপনি কোর্টে যেয়ে বোঝেন।” একথা বলার পর আমাকে কোন কিছু বলার সুযোগ না দিয়ে থানা থেকে বের করে দেন। পরে দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসার এসআই বিপুল সাহেবের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, “ওসি সাহেবের আদেশের কারণে আমার কিছু করার নেই।”
এ ব্যাপারে চান্দিনা থানার অফিসার ইন চার্জ (সার্বিক) মো. গোলাম মোর্শেদ জানান, ঘরে যারা অবস্থান করছে তাদের বের করার কোন অর্ডার নেই। এর জন্য আলাদা অর্ডার নিতে হয়।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply